বাড়ি > বায়োস্কোপ > সুশান্ত মামলা-মিডিয়া ট্রায়ালের বিষয়টি খতিয়ে দেখছে NBA,হাইকোর্টকে জানাল কেন্দ্র
রিয়া চক্রবর্তী (ফাইল ছবি) (PTI)
রিয়া চক্রবর্তী (ফাইল ছবি) (PTI)

সুশান্ত মামলা-মিডিয়া ট্রায়ালের বিষয়টি খতিয়ে দেখছে NBA,হাইকোর্টকে জানাল কেন্দ্র

  • ন্যাশনাল ব্রডকাস্টিং অ্যাসোসিয়েশন ইতিমধ্যেই এই বিষয় নিয়ে তদন্ত করছে বম্বে হাইকোর্টকে জানাল কেন্দ্র সরকার। 
  • সংস্থার তরফে নেওয়া সিদ্ধান্ত রিভিউ করবে তথ্য-সম্প্রচারক মন্ত্রক, জানাল ভারত সরকার। 

সুশান্ত সিং রাজপুত মামলায় বেশ কিছু সংবাদমাধ্যম অনৈতিকভাবে রিয়া চক্রবর্তীকে আদালতে দোষী সাব্যস্ত হওয়ার আগেই দোষী বলে ঘোষণা করছে, এমনকি সুশান্তের মৃত্যু সংবাদ পরিবেশনের ক্ষেত্রেও সংযম বজায় রাখছে না এমনই অভিযোগ করে বম্বে হাইকোর্টে দুটি পৃথক জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়েছিল। সেই মামলার দ্বিতীয় শুনানির দিন নির্দিষ্ট ছিল বৃহস্পতিবার। যেখানে কেন্দ্র সরকারের তরফে অ্যাডিশ্যানাল সলিসিটার জেনারেল অনিল সিং বম্বে হাইকোর্টকে জানালেন সুশান্ত সিং মামলায় মিডিয়া ট্রায়েল নিয়ে যে প্রশ্ন তোলা হয়েছে তা নিয়ে ইতিমধ্যেই তদন্ত করছে ন্যাশনাল ব্রডকাস্টিং অ্যাসোসিয়েশন (NBA)। সংশ্লিষ্ট সংস্থার তরফে নেওয়া সিদ্ধান্ত রিভিউ করবে তথ্য-সম্প্রচারক মন্ত্রক। কেন্দ্রের তরফে জবাবে আরও বলা হয়, এই ধরণের অভিযোগের তদন্ত অ্যাসোসিয়েশন অভ্যন্তরীণভাবে করতে পারে।

গত ৩ সেপ্টেম্বর বম্বে হাইকোর্ট এই মামলার শুনানিতে জানিয়েছিল সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু সংক্রান্ত খবর পরিবেশনের সময় সংবাদমাধ্যমকে সংযম বজায় রাখা প্রয়োজন। এই মামলার তদন্তে ক্ষতি করতে পারে এমন কোনও তথ্য পরিবেশন করা থেকে বিরত থাকতে সংবাদমাধ্যমকে অনুরোধ করেছিল আদালত। আজ সিজে দীপঙ্কর দত্ত এবং বিচারপতি জিএস কুলাকর্নির ডিভিশন বেঞ্চে এই মামলার শুনানি চলে। 

আদালতের তরফে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে প্রাক্তন পুলিশ আধিকারিক এবং দুই সমাজকর্মীর তরফে দায়ের দুটি জনস্বার্থ মামলায় নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো এবং এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটকে আবেদনের পক্ষ হিসাবে কার্যকর করতে হবে। এবং নতুন করে হলফনামা জমা দিতে হবে।

কেন ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া নিয়ন্ত্রণের জন্য রাষ্ট্রের কোনও পদ্ধতি নেই তা জানতে চেয়েছে আদালত। এই মামলায় আদালতের পর্যবেক্ষণ, মিডিয়া গ্রুপগুলির কেউই এই বিষয়ে দায়ের করা ফৌজদারি জনস্বার্থ মামলার জবাব দাখিল করেনি। আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে সেই জবাব আদালতে জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যাদের বিরুদ্ধে আবেদনকারীরা অভিযোগ জানিয়েছে।

মুম্বই পুলিশের একাধিক প্রাক্তন আধিকারিকদের হয়ে আদালতে এদিন দলিল পেশ করেন সিনিয়র আইনজীবী মিলিন্দ সাথে। তিনি বলেন সুশান্ত বা রিয়া চক্রবর্তী নয়, তাঁদের আপত্তি সংবাদমাধ্যমে এই মামলায় মুম্বই পুলিশের গায়ে কালি ছেটানো হচ্ছে তা নিয়ে। এই প্রসঙ্গে সুপ্রিম কোর্টের ১৯ অগস্টের দেওয়া রিয়ার পিটিশনের রায়ের উল্লেখ করেন আইনজীবী। তিনি বলেন, সুপ্রিম কোর্টে মুম্বই পুলিশের তদন্ত নিয়ে কোনও প্রশ্ন তোলেননি।

আদলত আপতত এই মামলা মুলতুবী করেছে এবং জানিয়েছে তাঁদের বিশ্বাস গত ৩ সেপ্টেম্বর আদালতের তরফে জারি সংযম বজায় রাখবার নির্দেশ পালন করবে সংবাদ মাধ্যম। 

বন্ধ করুন