বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > আসছে ‘কৃষ ৪’, জুন থেকেই ‘সুপারহিরো’ হওয়ার প্রস্তুতি নেবেন হৃতিক, পরিচালনায় রাকেশ
ফের 'কৃষ' হিসেবে পর্দায় ফিরছেন হৃতিক রোশন।

আসছে ‘কৃষ ৪’, জুন থেকেই ‘সুপারহিরো’ হওয়ার প্রস্তুতি নেবেন হৃতিক, পরিচালনায় রাকেশ

  • ২০০৬ সালে বক্স অফিস কাঁপিয়ে মুক্তি পেয়েছিল 'কৃষ'। সেদিন থেকেই বলিউডের সুপারহিরোদের তালিকায় শুধু প্রথম সারিতেই নয়, বরং প্রথম নামটাই 'কৃষ'-এর থাকলেও অবাক হওয়ার কিছু নেই।

২০০৬ সালে বক্স অফিস কাঁপিয়ে মুক্তি পেয়েছিল 'কৃষ'। সেদিন থেকেই বলিউডের সুপারহিরোদের তালিকায় শুধু প্রথম সারিতেই নয়, বরং প্রথম নামটাই 'কৃষ'-এর থাকলেও অবাক হওয়ার কিছু নেই। দেড় দশক আগে মুক্তি পাওয়া সেই ছবির সুবাদে আসমুদ্রহিমাচল বুঁদ হয়েছিল 'কৃষ-জ্বরে'। এরপর মুক্তি পেয়েছে 'কৃষ ৩'। সেও প্রায় বছর নয়েক আগে। তারপর থেকে বহুদিন ধরেই এই সিরিজের পরবর্তী ছবি ঘিরে চলছিল বিস্তর জল্পনা। একাধিক সাক্ষাৎকারে 'কৃষ ৪' যে তৈরি হবেই সেকথা নিজেই জানিয়েছিলেন হৃতিক এবং এই সুপারহিরো ফ্র্যাঞ্চাইজি ছবির পরিচালক-প্রযোজক রাকেশ রোশন। এই সুপারহিরো সিরিজকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার কথাও ঘোষণা করেছিলেন হৃতিক স্বয়ং। এবার ETimes প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে 'কৃষ ৪' ছবির যাবতীয় প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছেন হৃতিক ও রাকেশ দু'জনেই!

এই মুহূর্তে সইফ আলি খানের সঙ্গে 'বিক্রম বেদা'-র শ্যুটিংয়ে ব্যস্ত রয়েছেন হৃতিক। তবে রাকেশ আর দেরি করতে চাইছেন না। তাঁর নির্দেশে আর কিছুদিনের মধ্যেই জোরকদমে শুরু হবে কৃষ সিরিজের চার নম্বর ছবির প্রি-প্রোডাকশনের কাজ। চললে আগামী বছরের শুরুতেই শ্যুটিং শুরু হয়ে যাবে এই ছবির। ছবি ঘনিষ্ঠ এক সূত্র জানিয়েছেন, 'চলতি বছরের জুন মাস থেকেই শুরু হয়ে যাবে এই ছবির প্রি-প্রোডাকশনের কাজ। ছবির জন্য অভিনেতা-অভিনেত্রীর বাছাই করার কাজও শুরু হয়ে যাবে তখনই। তবে এখনও পর্যন্ত ঠিক হয়নি কৃষ ৪-এ হৃতিকের বিপরীতে কোন বলি-সুন্দরী থাকবেন।'

প্রসঙ্গত, 'বিক্রম বেদা' ছবির শ্যুটিংয়ের পরপরই সিদ্ধার্থ আনন্দ পরিচালিত 'ফাইটার'-এর শ্যুটিং শুরু করে দেবেন তিনি। সেই ছবিতে হৃতিকের বিপরীতে দেখা যাবে দীপিকা পাড়ুকোনকে। জানা গিয়েছে,টানা ১০০ দিন ধরে চলবে 'ফাইটার' ছবির শ্যুটিং। সেই হিসেবে চলতি বছরের একদম শেষভাগে একটু হাত-পা ছাড়া হবেন বলিপাড়ার 'গ্রিক গড'।

প্রসঙ্গত, 'কৃষ ৪'-এর বাজেট যে আকাশছোঁয়া হতে চলেছে, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। ছবিতে হলিউডের মানের অ্যাকশন ও স্টান্ট দৃশ্যে যেমন থাকছে, তেমনই দেখা যাবে ভারি সিজিআই এফেক্টস। তাছাড়া ছবির বাজেট অত্যন্ত বেশি থাকার জন্য এই প্রজেক্টের সঙ্গে জড়িত প্রতিটি ব্যাপারে জন্যই দরকার নিখুঁত পরিকল্পনা। কোন সময়ে মুক্তি পেলে তা ভালো ব্যবসা করতে পারবে, সেসবও ভাবার আছে। তাই, সব মিলিয়ে এই প্রজেক্ট শেষ হতে হাতে বেশ সময় প্রয়োজন।

বন্ধ করুন