পানভেল ফার্ম হাউসে খোশমেজাজে জ্যাকলিন (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
পানভেল ফার্ম হাউসে খোশমেজাজে জ্যাকলিন (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)

সলমনের ফার্মহাউসে লকডাউনে কেমন সময় কাটছে জ্যাকলিনের? দেখুন ভিডিয়ো

  • পানভেলের ফার্মহাউসে প্রকৃতির কোলেই কাটছে জ্যাকলিনের দিনরাত।রোজনামচার একটি ভিডিয়ো তৈরি করে ফেলেছেন জ্যাকলিন ফার্নান্দিজ।

লকডাউনে আম জনতা থেকে তারকা-সকলের সুপ্ত প্রতিভাগুলো সামনে আসছে। নিজের 'লকডাউন লাইফ' নিয়ে এবার তো একটা শর্টফিল্মই বানিয়ে ফেলেছেন জ্যাকলিন।লকডাউনে নিজের বন্ধু তথা কিক কো-স্টার সলমন খানের সঙ্গে তাঁরই পানভেলের ফার্ম হাউসে দিন কাটাচ্ছেন জ্যাকলিন। পানভেলে কী কী করছেন জ্যাকলিন? সকাল থেকে রাত পর্যন্ত নিজের রোজনামচা নিয়েই একটি ৩ মিনিট ৪৯ সেকেন্ডের ভিডিয়ো কোলাজ বানিয়েছেন জ্যাকি। সেখানে তাঁকে দেখা গেল ঘোড়সওয়াড়ি থেকে গাছেচড়া-নানান রোমাঞ্চকর কাজে সময় কাটাতে। এছাড়াও বই পড়তে দেখা গেল জ্যাকলিনকে। 

পানভিলের ফার্মহাউসে এককথায় প্রকৃতির সঙ্গে একাত্ম হয়ে গিয়েছেন অভিনেত্রী। শহুরে কোলাহল থেকে দূরে দিব্যি খোশমেজাজে কাটছে দিন।নিজের কাজও নিজেই করছেন জ্যাকলিন। কাপড়-জামা কাচা থেকে কফি বানানো-চলছে পুরোদমে। জ্যাকলিনের এই ভিডিয়োয় উঠে এসেছে-গোরু,পথকুকুর,মুগরি,প্রজাপতি থেকে ছাগল ছানা। পানভিলের পরিচারক-পরিচারিকাদের সঙ্গেও গল্প-গুজব চলছে নিয়ম মেনে। অমৃতা প্রীতমের ‘কোরা কাগজ’ বই পড়ছেন,ডায়রি লিখছেন জ্যাকলিন। সবচেয়ে মজার ব্যাপার হল নারকেল গাছে চড়াও শিখছেন এই শ্রীলঙ্কান সুন্দরী। 

ফার্মহাউসে সলমনের প্রিয় ঘোড়াদের সঙ্গে অনেকটা সময় কাটছে জ্যাকলিনের। ঘোড়ায় চড়ার পাশাপাশি ঘোড়াদের পরিচর্যাতেও মন দিচ্ছেন অভিনেত্রী। সম্প্রতি এখান থেকেই হারপার বাজার ইন্ডিয়ার জন্য ফটোশ্যুট সেরেছেন জ্যাকলিন। পানভেলের এই মুহূর্তগুলো প্রসঙ্গে তিনি জানান, এটা আমার জন্য একটা দুর্দান্ত অভিজ্ঞতা। আমি জানি এই মহামারীর জেরে অনেকেই কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে, তবে আমি এই ফার্মে একদম সুরক্ষিত রয়েছি এর জন্য আমি কৃতজ্ঞ। এখানে লোকজনকে সাহায্য করতে আমার পক্ষে যেটুকু করা সম্ভব আমি করছি এবং এই বিশ্বের সব মানুষের জন্য মঙ্গলকামনা করছি'। 

 

বৃহস্পতিবারই নিজের নতুন বন্ধু জেনির সঙ্গে অনুরাগীদের পরিচয় করিয়েদেন জ্যাকলিন। জেনি হল ছোট্ট একটা ছাগল ছানা। জেনির সঙ্গে একগুচ্ছ ছবি শেয়ার করেছেন অভিনেত্রী। 

View this post on Instagram

My friend Jenny! ❤️

A post shared by Jacqueline Fernandez (@jacquelinef143) on

বন্ধ করুন