বাড়ি > বায়োস্কোপ > সুশান্তের মৃত্যু: করণ জোহরকে কেন সমন পাঠাল না মুম্বই পুলিশ ? প্রশ্ন টিম কঙ্গনার
করণ জোহরের কোম্পানির সিইওকে ডেকে পাঠিয়েছে পুলিশ 
করণ জোহরের কোম্পানির সিইওকে ডেকে পাঠিয়েছে পুলিশ 

সুশান্তের মৃত্যু: করণ জোহরকে কেন সমন পাঠাল না মুম্বই পুলিশ ? প্রশ্ন টিম কঙ্গনার

  • যেখানে কঙ্গনা রানাওয়াতকে সমন পাঠানো হয়েছে, সেখানে করণ জোহরকে নয় কেন? প্রশ্ন তুলল টিম কঙ্গনা। 

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর তদন্তে এবার প্রশ্নের মুখে পড়তে চলেছেন করণ জোহর ঘনিষ্ঠরা। রবিবার মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনিল দেশমুখ সংবাদমাধ্যমকে জানান সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর তদন্তে  মুম্বই পুলিশের জেরার মুখে পড়তে চলেছেন করণ জোহরের ম্যানেজার। এবং ভবিষ্যতে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হতে পারে করণ জোহরকেও। যদিও এখন পর্যন্ত করণ জোহরকে কোনওরকম সমন পাঠায়নি পুলিশ। পাশাপাশি বয়ান রেকর্ডের জন্য ডেকে পাঠানো হয়েছে পরিচালক মহেশ ভাটকেও। সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর তদন্তে করণ জোহরকে সমন না পাঠানোয় ক্ষুদ্ধ কঙ্গনা রানাওয়াত। করণ জোহরকে সমন না পাঠিয়ে তাঁর অ্যাসোসিয়েটদের জেরা করার বিষয়টি নিয়ে হয়রান অভিনেত্রী। যেখানে বয়ান রেকর্ডের জন্য কঙ্গনাকে সমন পাঠিয়েছে পুলিশ,সেখানে করণ জোহরকে ডাকল না কেন? এই দ্বিচারিতা কী জন্য? টুইট বার্তায় ক্ষোভ উগরে দেয় টিম কঙ্গনা রানাওয়াত।

তাঁদের দাবি সুশান্তের মৃত্যুটাকে প্রহসনে পরিণত করেছে মুম্বই পুলিশ। তাঁরা কঙ্গনাকে সমন পাঠাচ্ছে, অভিনেত্রীর ম্যানেজারকে নয়, অথচ করণ জোহরের জায়গায় তাঁর ম্যানেজারকে ডেকে পাঠানো হচ্ছে! কেন? কারণ করণ জোহর মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের ছেলে আদিত্য ঠাকরের ব্রেস্ট ফ্রেন্ড।

উল্লেখ্য করণ জোহরের ম্যানেজার নয়, মুম্বই পুলিশের জেরার মুখে পড়তে চলেছেন ধর্মা প্রোডাকশনের সিইও অপূর্ব মেহতা। যিনি করণ জোহরের প্রযোজক সংস্থার সিইও হওয়ার পাশাপাশি করণের দীর্ঘদিনের বন্ধু। করণ জোহরের ম্যানেজার রেশমা শেট্টির বয়ান আগেই রেকর্ড করেছে মু্ম্বই পুলিশ। গত ১১ জুলাই জেরা করা হয় রেশমাকে।

উল্লেখ্য জীবদ্দশায় সুশান্তের শেষ ছবি ড্রাইভের প্রযোজক ছিলেন করণ জোহর। ওটিটি প্ল্যাটফর্ম নেটফ্লিক্সে সরাসরি এই ছবি মুক্তি দেওয়ার করণের সিদ্ধান্তে সায় ছিল না সুশান্তের। সেই নিয়ে দুজনের মনোমালিন্যের খবরও গত বছর সামনে এসেছিল। সেই নিয়েই বেশকিছু প্রশ্নের মুখে পড়তে হতে পারে অপূর্ব মেহতাকে। সুশান্তের মৃত্যুর পরেই মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর তরফে জানানো হয়েছিল, সুশান্তের আত্মহত্যার কারণ হিসাবে পেশাদার জগতের রেষারেষির বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে খতিয়ে দেখছে মুম্বই পুলিশ। সঞ্জয় লীলা বনশালি, আদিত্য চোপড়ার মতো বলিউডের একাধিক নামী ব্যক্তিত্বকে ইতিমধ্যেই এই মামলায় জিজ্ঞাসাবাদ করেছে মুম্বই পুলিশ। গত ১৪ জুন মুম্বইয়ের বান্দ্রার অ্যাপার্টমেন্ট থেকে উদ্ধার হয় সুশান্তের দেহ। মুম্বই পুলিশের দাবি আত্মহত্যাই করেছেন অভিনেতা, এই মামলায় কোনওরকম ফাউল প্লে'র সম্ভাবনা এখনও খুঁজে পাননি তদন্তকারীরা, আত্মহত্যার কারণ জানতে প্রায় ৪০ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ।

বন্ধ করুন