বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > কঙ্গনার পদ্মশ্রী নিয়ে কটাক্ষ, প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার জয়গান গাইলেন ‘বিগ বস’-এর কবিতা!
কবিতা কৌশিক, কঙ্গনা ও প্রিয়াঙ্কা। (বাঁ দিক থেকে)
কবিতা কৌশিক, কঙ্গনা ও প্রিয়াঙ্কা। (বাঁ দিক থেকে)

কঙ্গনার পদ্মশ্রী নিয়ে কটাক্ষ, প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার জয়গান গাইলেন ‘বিগ বস’-এর কবিতা!

  • এবার কঙ্গনা রানাওয়াতকে কটাক্ষ করে তাঁর পদ্মশ্রী পাওয়ার যোগ্যতা নিয়ে ঠারেঠোরে প্রশ্ন তুললেন ছোটপর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী কবিতা কৌশিক।

এবার কঙ্গনা রানাওয়াতকে কটাক্ষ করে তাঁর পদ্মশ্রী পাওয়ার যোগ্যতা নিয়ে ঠারেঠোরে প্রশ্ন তুললেন ছোটপর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী কবিতা কৌশিক। সঙ্গে তাঁর জিজ্ঞাসা কেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়াকে পদ্মশ্রী সম্মানে ভূষিত করা হল না? টুইট করে প্রিয়াঙ্কা চোপড়া ও তাঁর স্বামী নিক জোনাসের এক ছবি পোস্ট করেছেন কবিতা। সেই ছবিতে দেখা যাচ্ছে লস এঞ্জেলস এর তাঁদের বাড়িতে ভারতীয় রীতিনীতি মেনে পুজো করছেন নিক-প্রিয়াঙ্কা। ছবির সঙ্গে 'বিগ বস' খ্যাত অভিনেত্রী কবিতা 'পিগি চপস' এর উদ্দেশে লেখেন, 'যেমন মানুষ তেমন দুর্দান্ত অভিনেত্রী। একজন আন্তর্জাতিক মানের অভিনেত্রী হয়েও যেভাবে ভারতীয় সংস্কৃতিকে তিনি বিশ্বের দরবারে তুলে ধরেন কোনওরকম ঝান্ডা কাঁধে নেওয়া ছাড়াই তা সত্যিই তারিফযোগ্য। তার ওপর আজ পর্যন্ত বলিউডে তাঁর থেকে বয়সে বড় এমন কোনও অভিনেতা-অভিনেত্রীদের কোনওরকম অসম্মান করতে দেখা যায়নি তাঁকে। তাই কেন তাঁকে পদ্মশ্রী দেওয়া হবে না?'

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালেই পদ্মশ্রী সম্মানে ভূষিত হয়েছেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। সেকথা জানতেন না কবিতা। তবে তা সত্বেও এই পোস্টের জন্য ট্রোলড হননি তিনি। বরং প্রিয়াঙ্কা যে পদ্মশ্রী সম্মানে আগেই ভূষিত হয়েছেন, সেকথা কবিতাকে স্মরণ করিয়ে দিয়ে নেটিজেনদের বিরাট এক অংশ প্রিয়াঙ্কার সম্পর্কে বলা তাঁর কথাগুলোকে সমর্থন জানিয়েছেন। কেউ কেউ তো সরাসরি কমেন্টেই জানিয়েছেন যে যোগ্যতার বিচারে এমন অনেক অভিনেত্রী রয়েছে যাঁরা কঙ্গনার থেকে অনেক বেশি যোগ্য পদ্মশ্রী সম্মানে ভূষিত হওয়ার ব্যাপারে।

সম্প্রতি, বিস্ফোরক মন্তব্য করে নতুন বিতর্কে জড়িয়েছেন অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত।বেফাঁস মন্তব্য করে বসেন এই বলি সুন্দরী।নেটিজেনরা তীব্র নিন্দা করছেন কঙ্গনার ওই বক্তব্যের এবং মানসিকতার। তাঁদের দাবি, কঙ্গনার এই মন্তব্য সেই সকল স্বাধীনতা সংগ্রামীর অপমান, যাঁরা দেশের স্বার্থে নিজেদের জীবন উত্সর্গ করেছিলেন। এরপর থেকেই কঙ্গনাকে ব্যাপক কটাক্ষের মুখে পড়তে হচ্ছে, ইতিমধ্যে অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগও জমা পড়েছে। দাবি উঠছে অবিলম্বে ‘কেড়ে নেওয়া হোক কঙ্গনার পদ্মশ্রী’ সম্মান। এক অনুষ্ঠানে হাজির হয়ে কঙ্গনা বলে বসেন, ভারত আসল স্বাধীনতা পেয়েছে ২০১৪ সালে। এবং ১৯৪৭ সালে যে স্বাধীনতা এসেছিল সেটা আসলে ‘ভিক্ষা’। মোদীর নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকার ক্ষমতায় এসেছিল ২০১৪ সালে,সেই মর্মেই কঙ্গনার এই মত।

২০১৪ সালে প্রকৃত স্বাধীনতা পাওয়ার ব্যাখা দিয়ে চারবারের জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেত্রী বলেন, ‘আমাদের কাছে কাগজে কলমে স্বাধীনতা ছিল, কিন্তু প্রকৃত জাগরণ ঘটেছে ২০১৪ সালে। একটা মৃতপ্রায় সভ্যতা নতুন করে জীবন পেয়েছে, আর সেটা এখন আকাশে ডানা মেলে উড়ছে… এখন ভারতীয়রা ইংরাজি না-জানা থাকবার জন্য তিরস্কৃত হন না, আমরা নিজেদের দেশের তৈরি জিনিস ব্যবহারে লজ্জা পাই না… সবটাই তো বলা হয়েছিল ওই সাক্ষাৎকারে, আসলে যাঁরা চোর তাঁদেরই এইসব গায়ে লাগে, সেটা নিয়ে কিছু করা যাবে না… জয় হিন্দ’।

বন্ধ করুন