বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > নাবালিকা ধর্ষণকাণ্ডে জামিনের পর জন্মদিনে জনসমক্ষে এলেন পার্ল, গেলেন অনাথ আশ্রমে
পার্ল ভি পুরি
পার্ল ভি পুরি

নাবালিকা ধর্ষণকাণ্ডে জামিনের পর জন্মদিনে জনসমক্ষে এলেন পার্ল, গেলেন অনাথ আশ্রমে

  • ভারতীয় সংবিধানের ৩৭৬ নম্বর ধারা এবং পসকো আইন অনুযায়ী নাবালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার হয়েছিলেন পার্ল। আপাতত জামিনে মুক্ত অভিনেতা। 

নাবালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার হয়েছিলেন পার্ল ভি পুরি। কিছুদিন আগেই জামিনে মুক্তি পেয়েছেন এই অভিনেতা। ছোট পর্দায় বেশ জনপ্রিয় পার্ল ভি পুরি। শনিবার ছিল তাঁর জন্মদিন। জামিনে মুক্তির পর জন্মদিন উপলক্ষে প্রথমবার জনসমক্ষে আসেন। জীবনের বিশেষ দিনে সোজা পৌঁছান মুম্বই আন্ধেরির এক অনাথ আশ্রমে। 

আনাথ আশ্রমের বাইকে পাপারাৎজিদের লেন্সবন্দি হন পার্ল। অনাথ শিশুদের সঙ্গে জন্মদিনের আনন্দকে ভাগ করে নিতেই এদিন নানা রকমের খাবার নিয়ে সেখানে গিয়েছিলেন তিনি। সাদা কুর্তা এবং নীল রঙের ডেনিম প্যান্টে এদিন ধরা দেন অভিনেতা। কথা বলেন পাপারাৎজিদের সঙ্গেও।

ভারতীয় সংবিধানের ৩৭৬ নম্বর ধারা এবং পসকো আইন অনুযায়ী ওই অভিনেতাকে নাবালিকাকে ধর্ষণ এবং শ্লীলতাহানির অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে। মুম্বইয়ের ভাসাই পুলিশের তরফে পার্লকে ৪ জুন গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। এক সপ্তাহের বেশি সময় ধরে পুলিশি হেফাজতে ছিলেন অভিনেতা। ১১ দিন পর ১৫ জুন জামিনে মুক্তি পান তিনি। প্রসঙ্গত, পার্লের পাশে দাঁড়িয়েছেন তাঁর ইন্ডাস্ট্রির সহ-কর্মীরা। একতা কাপুর থেকে শুরু করে দিব্যা খোসলা কুমার, অনিতা হসনন্দানি, নিয়া শর্মাদের দাবি পার্লের বিরুদ্ধে মিথ্যে অভিযোগ আনা হয়েছে। রাখি সাওয়ান্তও পার্লের স্বপক্ষেই সুর চড়িয়েছিলেন।

মুক্তি পেয়েই ইনস্টাগ্রামে এক লম্বা বিবৃতি পোস্ট করেন পার্ল। পার্ল জানিয়েছিলেন, জীবন প্রতিটি মানুষের আলাদা আলাদাভাবে পরীক্ষা নেয়। বর্তমানে তাঁর ক্ষেত্রেও যে তাই হচ্ছে তা বলাই বাহুল্য। গত কয়েক সপ্তাহ যে তাঁর কাছে দুর্বিষহ হয়ে,উঠেছিল চরম হতাশা গ্রাস করেছিল সেকথাও জানিয়েছেন এই অভিনেতা।

তিনি আরও লিখেছিলেন, কয়েক মাস আগেই নিজের দিদাকে হারিয়েছেন। দিদার মৃত্যুর ঠিক সতেরো দিনের মাথায় প্রয়াত হয়েছেন তাঁর বাবা। তবে দুঃখের কথা এখানে থেমে থাকেনি। এর ঠিক পরপরই পার্লের মায়ের ক্যানসার ধরা পড়ে। মায়ের চিকিৎসা চলাকালীনই ধর্ষণের মতো ভয়ঙ্কর অভিযোগ আসে তাঁর বিরুদ্ধে। পার্লের কথায়, 'এই অভিযোগের সুবাদে প্রায় রাতারাতি সকলের সামনে আমাকে অপরাধী বানিয়ে দেওয়া হল। আর এসবকিছুই হল আমার মায়ের চিকিৎসা চলাকালীন!' এর পর থেকে অবশ্য চুপ ছিলেন অভিনেতা। সোশ্যাল মিডিয়াতেও দেখা যায়নি তাঁকে।

বন্ধ করুন