বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > প্রাক্তন স্বামী হ্যান্ডসম বলেই কাউকে মনে ধরেনি শ্রীলেখার,আজ বিয়ের ১৭ বছর পূর্তি!
প্রাক্তন স্বামীর সঙ্গে শ্রীলেখা 
প্রাক্তন স্বামীর সঙ্গে শ্রীলেখা 

প্রাক্তন স্বামী হ্যান্ডসম বলেই কাউকে মনে ধরেনি শ্রীলেখার,আজ বিয়ের ১৭ বছর পূর্তি!

  • বিয়ে ভেঙেছে সাত বছর আগে, তবে প্রাক্তন স্বামীর জন্য মনে কোনও তিক্ততা নেই শ্রীলেখার। বিবাহবার্ষিকীতে শুভেচ্ছা জানালেন প্রাক্তনকে। 

শ্রীলেখা মিত্র মানেই বরাবরই একটু অন্যরকম। কোনও ছকে বা গান্ডিতে তাঁকে বাঁধা হয় না। মনের কথা মন খুলে বলবার ক্ষেত্রে তাঁর জুড়ি মেলা ভার। এই জন্য অনেক সময়ই অপরের কাছে অপ্রিয় পাত্রী হন তিনি, তবে তাতে কুছ পরোয়া নেই শ্রীলেখার। কারণ তাঁর জীবনের একটাই মন্ত্র- ‘আমি আমার মতো’। ২০শে নভেম্বর শ্রীলেখার জীবনের একটা বিশেষ দিন। ১৭ বছর আগে আজের দিনেই শিলাদিত্য সান্যালের সঙ্গে সাত পাকে বাঁধা পড়েছিলেন অভিনেত্রী। আর বিয়ের বর্ষপূর্তিতে প্রাক্তন স্বামীকে স্মরণ করে নিলেন শ্রীলেখা। হোক না প্রাক্তন.. কিছু স্মৃতি তো ভালোবাসারও হয়। 

বিয়ের দুটি ছবি পোস্ট করে শ্রীলেখা একটি মনছোঁয়া ক্যাপশন জুড়ে দেন। যা দেখে আপনি অল্প হলেও ধন্দেও পড়তে পারেন বটে। তিনি লেখেন-'আজ হতে পারত আমাদের ১৭ তম বিবাহবার্ষিকী। হ্যান্ডসাম না আমার প্রাক্তন? তাই তো আর সেভাবে কাউকে মনে ধরল না'। এর সঙ্গে একটি বিধিবদ্ধ সতর্কীকরণ যোগ করেন তিনি, লেখেন- ‘দুঃখের ইমোজি আর শুভ বিবাহবার্ষিকী বললে ততক্ষণাৎ আনফ্রেন্ড করব!’

বিবাহবার্ষিকীতে প্রাক্তন স্বামীকে স্মরণ করে এইভাবে হ্যান্ডসম অ্যাখা দেওয়া কিন্তু সহজ কাজ নয়। তবে শ্রীলেখা কোনওদিনই সহজ পথের মানুষ নন। বিচ্ছেদ মানেই সেটা দুঃখের এমন মনে করেন না অভিনেত্রী। তাঁর কথায়, ‘দু-জন ভালো মানুষ এক ছাদের তলায় নাই থাকতে পারে তাই বলে তিক্ততা কেন থাকবে?’  ২০১৩ সালে শিলাদিত্য সান্যালের সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদ হয় শ্রীলেখার। তাঁদের এক সন্তান, ঐশী। মেয়ে মায়ের কাছেই থাকে। তবে বাবার সঙ্গেও নিয়মিত যোগাযোগ রয়েছে। শ্রীলেখার নিজেরও প্রাক্তন স্বামীর সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রেখে চলেছেন।

কাজ নিয়ে আপতত ভীষণ ব্যস্ত শ্রীলেখা। শীঘ্রই পরিচালক হিসাবে হাতখড়ি হচ্ছে তাঁর, এছাড়া বেদের মেয়ে জ্যোত্স্নার সুবাদে দীর্ঘদিন পর টেলিভিশনে কামব্যাক করেছেন অভিনেত্রী। পাশাপাশি শর্টফিল্ম ও ওয়েব প্ল্যাটফর্মেও কাজ করছেন তিনি। 

বন্ধ করুন