বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > রক্ত দিয়েও ট্রোলড! হাতের কাটা দাগ নিয়ে প্রশ্ন নেটিজেনের,পালটা জবাব স্বস্তিকার
সপাট জবাব স্বস্তিকার
সপাট জবাব স্বস্তিকার

রক্ত দিয়েও ট্রোলড! হাতের কাটা দাগ নিয়ে প্রশ্ন নেটিজেনের,পালটা জবাব স্বস্তিকার

  • ‘কথা তো অনেক দিলেন এ বার রক্ত দিন’, বার্তা স্বস্তিকার। তবে রক্তদানের ছবি পোস্ট করে নেটিজেনের বক্রোক্তির শিকার নায়িকা। 

করোনা আবহে বেহাল দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা, মিলছে না প্রয়োজনীয় রক্ত,চারিদিকে হাহাকার! সোশ্যাল মিডিয়ায় কোভিড রোগীদের প্রয়োজনীয় অক্সিজেন,রক্ত কিংবা হাসপাতালের বেডের ঠিকানা খুঁজে দিতে ব্যস্ত স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়। তবে শুধু সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেই ক্ষান্ত থাকেননি অভিনেত্রী। তিনি নিজে অতিমারী আক্রান্তদের পাশে থাকতে রক্তদান করলেন। শুধু রক্ত দিয়েই চুপ থাকলেন না, সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে রাখলেন জরুরি আর্তিও। স্বস্তিকা লেখেন- ‘কথা তো অনেক দিলেন। এ বার রক্ত দিন। আর সঙ্গে বন্ধু-বান্ধবীদেরও নিয়ে যান’।

স্বস্তিকার এই পদক্ষেপের প্রশংসা করছেন অনেকেই, তবে নিন্দুকদেরও অভাব নেই! স্বস্তিকার পোস্ট করা সেই ছবি দেখেই এক নেটিজেন বাঁকা প্রশ্ন করে বসেন। তিনি লেখেন- হাতে এত কাটা দাগ কেন? স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিকে সেই ব্যক্তিতে সপাট উত্তর দিলেন স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়।স্বস্তিকার ঝাঁঝালো জবাব, ‘হাতটা আমার রাখবো না কাটবো সেটা আমায় বুঝতে দিন, আপনি একটু রক্ত দিয়ে আসুন’।

স্বস্তিকার জবাব 
স্বস্তিকার জবাব 

আসলে স্বস্তিক ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে বরাবরই উঁকিঝুঁকি , সমালোচনার অন্ত নেই । কিন্তু কেরিয়ারের পিচে বরাবরই সেইসব অবান্তর বিষয়কে স্ট্রেট ব্যাটেই খেলতে ভালোবাসেন টলিউড সুন্দরী স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়। ট্রোলারদের বরাবরই পালটা জবাব দিতে পিছিয়ে আসেন না স্বস্তিকা। এই টলি সুন্দরীর ঠোঁটকাটা ইমেজকে সকলেই সমঝে চলেন।

সোশ্যাল মিডিয়া ট্রোলিং স্বস্তিকার কাছে জলভাত। এই প্রসঙ্গে হিন্দুস্তান টাইমসকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে মাসখানেক আগে অভিনেত্রী বলেছিলেন- ‘বিশ্বব্যাপী এত পরিবর্তনের মাঝে আমরা আশা করেছিলাম মানুষের ধ্যান ধারণার পরিবর্তন হয়েছে। হ্যাঁ,অবশ্যই হয়েছে তবে তা শুধুই নিম্নগামী বা নরকের পথে পরিবর্তন। আজ শুধু আমি কেন , যে কোনও মেয়ে যদি পুরুষের মতো মদের দোকানে যায়, শর্টস পরে, সিগারেট খায় সাথে সাথে প্রশ্ন উঠবে। কিন্তু চুপ করে থাকার তো কোনো মানে নেই , প্রতিবাদ করতে হবে। না করলে সোশ্যাল মিডিয়াতে থাকারও মানে নেই'।

বন্ধ করুন