বাড়ি > বায়োস্কোপ > সৃজিত থেকে প্রসেনজিত, সন্তু মুখোপাধ্যায়ের প্রয়াণে শোকস্তব্ধ টলিপাড়া
সন্তু মুথোপাধ্যায়ের স্মৃতিচারণায় টলিগঞ্জের কলাকুশলীরা
সন্তু মুথোপাধ্যায়ের স্মৃতিচারণায় টলিগঞ্জের কলাকুশলীরা

সৃজিত থেকে প্রসেনজিত, সন্তু মুখোপাধ্যায়ের প্রয়াণে শোকস্তব্ধ টলিপাড়া

  • বুধবার ক্যানসারের সঙ্গে লড়াইয়ে হেরে গেলেন অভিনেতা সন্তু মুখোপাধ্যায়। গলফ গ্রিণে নিজের বাসভবনেই মৃত্যু হয় অভিনেতার। তিনি রেখে গেলেন দুই কন্যা স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায় ও অজপা মুখোপাধ্যায়কে।

ক্যানসারের সঙ্গে লড়াইটা চলছিল দীর্ঘদিন ধরেই। তবুও অভিনয় থেকে নিজেকে দূরে সরিয়ে রাখতে পারেননি তিনি। কারণ অভিনয় পাগল এই মানুষটার ধ্যান-জ্ঞান সবটাই ছিল লাইট-ক্যামেরা-অ্যাকশন,এই তিনটে শব্দের মধ্যে আটকে। শুধু বড়মাপের অভিনেতা নয় টলিগঞ্জের অন্যতম প্রিয় মানুষ ছিলেন সন্তু মুখোপাধ্যায়। আট থেকে আশি সবার ভালোবাসার মানুষ। তাঁর মৃত্যুতে শোকের ছায়া টলিউডে।

সন্তুকাকুর মৃত্যুর খবর পেয়ে সূদূর দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে সৃজিত মুখোপাধ্যায় লিখলেন, আমার বাবা মনে করতেন উত্তম পরবর্তী জমানায় অন্যতম সম্ভাবনাময় অভিনেতা ছিলেন সন্তু মুখোপাধ্যায়, সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের পাশাপাশি তাঁর প্রিয় অভিনেতাও। যখন আমি তাঁর(সন্তু মুখোপাধ্যায়) সঙ্গে ঘন্টার পর ঘন্টা গল্প করে কাটাতাম, তখন আমার বাবার কথা আমার খুব মনে পড়ত। তাঁর সুদৃঢ় কন্ঠ, অদম্য আদর্শের পরিপূর্ণ এক মানুষ সন্তুকাকু। তোমার নতুন যাত্রা শুভ হোক। ভালোবাসা নিও।


দীর্ঘদিনের সহকর্মী সন্তুদা'র মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ প্রসেনজিত্ চট্টোপাধ্যায়। টুইট বার্তায় তিনি লেখেনএকজন অসাধারণ অভিনেতা আজ আমাদের ছেড়ে চলে গেলেন ,'তুমি যেখানেই থাকো সুস্থ থেকো .. ভালো থেকো আমাদের সন্তুদা..'

অভিনেতার প্রয়াণে শোকপ্রকাশের ভাষা হারিয়েছেন অভিনেত্রী ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। তিনি লেখেন, 'আমার কাছে এটা প্রকাশের ভাষা নেই, আজ আমরা কী হারালাম! একজন মহান অভিনেতা এবং একজন বড় মনের মানুষ, সন্তু মুখোপাধ্যায়। সিনেমার মধ্যেই আপনি চিরকাল বেঁচে থাকবেন!'


মালঞ্চ ছবি থেকে জলনূপূর ধারাবাহিক-সন্তু মুখোপাধ্যায়ের অভিনয় পথের দীর্ঘদিনের সঙ্গী মাধবী মুখোপাধ্যায়। তার এই প্রয়াণে গভীর ভাবে শোকাহত অভিনেত্রী। কান্নাভেজা গলায় অভিনেত্রী জানিয়েছেন, ‘একসঙ্গে কত কাজ করেছি। মন খারাপ, আনন্দ, ভাল সময়, খারাপ সময়-অনেক মুহূর্ত একসঙ্গে পার করেছি। ওর সঙ্গে দেখা করতে যাব ভাবছিলাম, সেই সময় চলে গেল। মেনে নিতে পারছি না ওর চলে যাওয়াটা।


পরিচালক বিরসা দাশগুপ্ত জানান, 'একটু একটু করে ছোটবেলাটা মুছে যাচ্ছে। আজ যেমন আরেকটু গেলো। কত বাঁদরামি যে লায় দিয়েছ সন্তু মামু! ভেবলি, বুবু, আমরা আছি। কেয়া পিসি, রাজা কাকু, বিদীপ্তা, আমি.. আমরা সবাই আছি। আজ যেভাবে আঁকড়ে ছিলাম, তেমনি থাকবো আজীবন। অনেক আদর..'

এদিন সন্তু কাকুর স্মৃতি রোমন্থন করলেন অভিনেতা পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ও।পরমের প্রথম ফিচার ফিল্ম হেমন্তের পাখিতে অভিনেতার বাবার ভূমিকায় অভিনয় করেছেন সন্তু মুখোপাধ্যায়। টুইটারের দেওয়ালে তিনি লেখেন, 'বড়ো হওয়ার পর ও এ শৈশব টা অনেক দিন থেকে যায় , সেই সময়ের অনেক টা নিয়ে , কিছু man talk, নিভৃত, ব্যক্তিগত কিছু গল্প গুজবের অমোঘ স্মৃতি নিয়ে চলে গেলেন সন্তু কাকু ... তাঁর আত্মার শান্তি ও চির আনন্দ কামনা করি...'

দীর্ঘদিন জলনূপূর ধারাবাহিকে একসঙ্গে কাজ করেছেন অপরাজিতা আঢ্য ও সন্তু মুখোপাধ্যায়। স্মৃতিকাতর অভিনেত্রী জানালেন, 'কাছের মানুষ ছিলেন,অনেক কিছু শিখেছি ওঁনার থেকে। অসুস্থ ছিলেন জানতাম তবে এত তাড়াতাড়ি চলে যাবেন ভাবতে পারিনি'।

বুধবার গলফ গ্রিণের বাড়িতেই প্রয়াত হন অভিনেতা। বয়স হয়েছিল ৬৮ বছর। অভিনেত্রী সুদীপ্তা চক্রবর্তী থেকে প্রযোজক সত্রাজিত্ সেন, সবার কন্ঠেই প্রিয়জনকে হারানোর আপেক্ষ।




বন্ধ করুন