জনমানবহীন নয়াদিল্লি স্টেশন  (PTI)
জনমানবহীন নয়াদিল্লি স্টেশন (PTI)

বিশ্বযুদ্ধেও চলেছে কিন্তু করোনায় থামল চাকা, সারাদিনে মাত্র চারটি যাত্রিবাহী ট্রেন চালাল রেলওয়ে

ঘরে থাকার আর্জি ভারতীয় রেলের।

১৬৬ বছরে প্রথম। যুদ্ধের সময়েও ট্রেন চালানো ভারতীয় রেল স্তব্ধ হয়ে গেল করোনা মহামারীর জেরে। গড়ে কাজের দিনে ২ কোটির ওপর লোককে ফেরি করা ভারতীয় রেল সারাদিনে চালালো মাত্র চারটি ট্রেন। এরপর মঙ্গলবার সকালে ভারতীয় রেলের পক্ষ থেকে ফের জনসাধারণকে ঘরে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে করোনা সংক্রমণ আটকানোর জন্য।

সোমবার দুপুর তিনটে অবধি ভারতীয় রেলের লাইভ ড্যাশবোর্ডে মাত্র চারটি ট্রেন চলার কথা দেখা গেছিল। এগুলি রবিবার চালু হওয়া ট্রেন। রাত দশটার সময় ইতিহাসে প্রথম বার একটি ট্রেনও চলছিল না সম্পূর্ণ ভারতীয় রেলের আওতায়।

চলতি মাসে ইতিমধ্যেই ১৪২১ কোটি টাকা ক্ষতি হয়েছে রেলের। এই ক্ষতি আরও বাড়বে কারণ ৩১ মার্চ অবধি কোনও ট্রেন এমনকী মেট্রোও চলবে না করোনার জেরে। সেল্ফ কোয়ারেন্টাইন ভেঙে ট্রেনে ১২জন যাত্রা করার পরেই সংক্রমণ ছড়ানোর ভয় বাড়ে প্রশাসনের মধ্যে।

এছাড়াও অনেক করোনাভাইরাস পজিটিভ রোগীও ট্রেনে যাত্রা করেছেন। একবার যদি গ্রামাঞ্চলে এই রোগ ছড়িয়ে পড়ে, তাহলে নিয়ন্ত্রণ করা খুব কঠিন হয়ে যাবে, এর জন্যেই বন্ধ হয়েছে ট্রেন ব্যবস্থা। শহরে কাজ করতে আসা শ্রমিকদেরও নিজেদের গ্রামে ফিরতে মানা করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

বাড়িতে থাকতে বলা হয়েছে ভারতীয় রেলের ১৩ লক্ষ কর্মীকেও। শুধু যারা মেইনটেনেন্স বিভাগে আছেন, তারা আসছেন অল্প সংখ্যায়, কারণ মালগাড়ি এখনও চালাছে রেল।

৩০টি রাজ্য ও কেন্দ্রীয় শাসিত অঞ্চলে লকডাউন চলছে বর্তমানে। কেউ সেটি ভঙ্গ করলে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে বলেছে কেন্দ্র। সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, ভারতে করোনায় আক্রান্ত ৪৯২, মারা গিয়েছেন নয় জন।


বন্ধ করুন