বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Covid Report of WHO: ভারতে কোভিডে ‘বাড়তি’ মৃত্যুর সংখ্যা ৪৭ লাখ! বলছে হু-এর বিস্ফোরক রিপোর্ট
হু-এর পরিসংখ্যান নিয়ে ভারতের প্রশ্ন। (AP Photo/Nardus Engelbrecht, File) (AP)
হু-এর পরিসংখ্যান নিয়ে ভারতের প্রশ্ন। (AP Photo/Nardus Engelbrecht, File) (AP)

Covid Report of WHO: ভারতে কোভিডে ‘বাড়তি’ মৃত্যুর সংখ্যা ৪৭ লাখ! বলছে হু-এর বিস্ফোরক রিপোর্ট

  • হু এর পরিসংখ্যান দেখাচ্ছে, ভারতে ২০২০ সালের অগাস্টের মধ্যে যতদিন লকডাউন ছিল, ততদিন কোভিডে মৃত্যুর সংখ্যা অনেকটাই কম ছিল। তবে মৃত্যু মিছিল বাড়তে থাকে সেপ্টেম্বরের পর থেকে।যদিও সরকারি পরিসংখ্যানের থেকে হু -এর পরিসংখ্যান বেড়ে যাওয়ার ঘটনায় ভারত সরকার প্রশ্ন তুলছে হু-এর গণনার পদ্ধতি নিয়ে।

ভারতে কোভিডের জেরে সরকারি মৃত্যুর পরিসংখ্যান থেকে ৪.৭ মিলিয়ন (৪৭ লাখ) বেশি মৃত্যু হয়েছে কোভিড মহামারীকালে। এই তথ্য উঠে এসেছে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা হু-এর পরিসংখ্যানে। সেখানে বলা হয়েছে ২০২০ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ২০২১ সালের ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে এই ভয়াবহ পরিস্থিতি উঠে এসেছে। এরমধ্যে উল্লেখ্য, ২০২১ সালের শুরুতেই ভারত দেখেছে কোভিডের দ্বিতীয় স্রোত। যেখানে হাসপাতালে পর হাসপাতালে বেড পেতে কালঘাম ছুটেছে সাধারণের। অক্সিজেন সিলিন্ডারের অভাব কার্যত বিধ্বস্ত করে তোলে স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে।

এদিন হু-এর রিপোর্টে গোটা বিশ্বে কোভিডের মহামারী নিয়ে পরিসংখ্যান তুলে ধরা হয়। সেখানে দেখা গিয়েছে ১৪.৯ মিলিয়ন মৃত্যু ঘটেছে বিশ্বে কোভিডের জেরে। এই পরিসংখ্যান তুলে ধরে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা প্রতিটি দেশকে তার স্বাস্থ্য ব্যবস্থা আরও মজবুত করতে বলেছেন। এদিকে, দেখা যাচ্ছে, হু-এর পরিসংখ্যান বলছে, ভারতে কোভিডের জেরে সরাসরি বা পরোক্ষে মৃত্যু হয়েছে ৪.৭ মিলিয়ন মানুষের। আর ভারতের সরকারি পরিসংখ্যান বলছে ভারতে কোভিডের জেরে মৃত্যু হয়েছে ৫২০,০০০ জনের।

হু এর পরিসংখ্যান দেখাচ্ছে, ভারতে ২০২০ সালের অগাস্টের মধ্যে যতদিন লকডাউন ছিল, ততদিন কোভিডে মৃত্যুর সংখ্যা অনেকটাই কম ছিল। তবে মৃত্যু মিছিল বাড়তে থাকে সেপ্টেম্বরের পর থেকে। ভারতে মৃত্যুর যা স্বাভাবিক অঙ্ক তার থেকে ১৩ শতাংশ বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে মৃত্যুর সংখ্যা কোভিড কালে। যদিও সরকারি পরিসংখ্যানের থেকে হু -এর পরিসংখ্যান বেড়ে যাওয়ার ঘটনায় ভারত সরকার প্রশ্ন তুলছে হু-এর গণনার পদ্ধতি নিয়ে। এদিকে, যে পরিমাণ বাড়তি মৃত্যুর সংখ্যা দেখানো হয়েছে, তার একটা বড় অংশ ভারতে কোভিডের দ্বিতীয় স্রোত থেকে উঠে আসছে বলে দেখা যাচ্ছে।

এদিকে, সরাকরি পরিসংখ্যানের থেকে বাড়তি মৃত্যুর পরিসংখ্যানে নিরিখে সবচেয়ে আগে রয়েছে দক্ষিণ পূর্ব এশিয়া, তারপর রয়েছে ইউরোপ ও আমেরিকা। এই এলাকায় ৮৪ শতাংশ বাড়তি মৃত্যুর পরিসংখ্যান লুকিয়ে রয়েছে। বাকি ৬৮ শতাংশ বাড়তি মৃত্যুর পরিসংখ্যান রয়েছে বিশ্বের বাকি ১০ টি দেশে। এদিকে, একটি বিবৃতি প্রকাশ করে ভারত সরকার হু-এর দাবিকে কার্যত খারিজ করে দিয়েছে। সেখানে গণনা প্রক্রিয়া নিয়ে প্রশ্ন কুলে হু-এর কাছে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করেছে ভারত।

বন্ধ করুন