বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > COVID-19: টিকা নেওয়ার সুযোগ হাতছা়ড়া না করতে অনিচ্ছুক স্বাস্থ্য কর্মীদের বার্তা কেন্দ্রের
রাজস্থানের ছবি
রাজস্থানের ছবি

COVID-19: টিকা নেওয়ার সুযোগ হাতছা়ড়া না করতে অনিচ্ছুক স্বাস্থ্য কর্মীদের বার্তা কেন্দ্রের

মাত্র ০.০০২ শতাংশ কেসে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছে টিকা নেওয়ার পর বলে জানাল সরকার। 

 

 

সুযোগ পেয়েও অনেকে নিচ্ছেন না করোনা ভ্যাকসিন। বিশেষত ভারত বায়োটেকের কোভ্যাক্সিন নেওয়া নিয়ে অনেকেই ইতস্তত বোধ করছেন। এই নিয়ে এবার স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পক্ষ থেকে বার্তা দেওয়া হল। করোনা টিকা না নিলে ফের কেসের সংখ্যা বাড়তে পারে, তাহলে এতদিনের যে শ্রম সেটা বৃথা যাবে, সেই বিষয় সতর্ক করা হল স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফ থেকে। অনুমোদিত দুটি টিকাই যে সম্পূর্ণ নিরাপদ ও ধাপে ধাপে পরীক্ষা নিরীক্ষার পর ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে বলে জানায় স্বাস্থ্যমন্ত্রক। 

নীতি আয়োগের সদস্য় ভিকে পাল, যিনি কেন্দ্রের কোভিড টাস্ক ফোর্সের সদস্য, এই নিয়ে বার্তা দেন। তিনি বলেন, যাদের টিকাকরণের জন্য নাম এসেছে, তারা ভাগ্যবান। দয়া করে ফেরাবেন না। একবার টিকা পেয়ে গেলে আপনি সুরক্ষিত হয়ে যাবেন ও তারপর কোনও ভয় ভীতি ছাড়াই কাজ করতে পারবেন। একবার সুরক্ষিত হয়ে গেলে ভাইরাস কিছু করতে পারবে না। এরপর তিনি বলেন যে যারা টিকা নিচ্ছেন না, তারা তাদের সামাজিক কর্তব্য পূরণ করছেন না। সারা দুনিয়া টিকা চাইছে, সব সরকারই নিজেদের প্রায়োরিটি গ্রুপকে আগে টিকা দেওয়াচ্ছে। কোভিড ছাড়া অন্যান্য যে স্বাস্থ্য ব্যবস্থা যাতে দ্রুত পুরোদমে শুরু হতে পারে তার জন্য স্বাস্থ্যকর্মীদের টিকা নেওয়া অত্যন্ত জরুরি বলে তিনি জানান। 

এদিন সরকারের থেকে বলা হয় যে টিকাকরণের পর এখনও মাত্র ০.১৮ শতাংশ ক্ষেত্রে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা গিয়েছে। হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে ০.০০২ শতাংশ মানুষকে অর্থাৎ ১০ হাজার মানুষে দুই জনকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে টিকা দেওয়ার পর।ভিকে পাল বলেন যে এই সংক্রান্ত যাবতীয় উদ্বেগ অর্থহীন ছিল কারণ পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া যা দেখা গিয়েছে সেটা অধিকাংশই খুবই সামান্য ও মামুলি। 

বন্ধ করুন