বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Delhi Mundka Fire: NOC ছিল না, দিল্লি অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় পুলিশের জালে পুড়ে যাওয়া ভবনের মালিক
অনুমোদন ছাড়াই তৈরি হয়েছিল মুন্ডকার সেই বিল্ডিং (HT_PRINT)
অনুমোদন ছাড়াই তৈরি হয়েছিল মুন্ডকার সেই বিল্ডিং (HT_PRINT)

Delhi Mundka Fire: NOC ছিল না, দিল্লি অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় পুলিশের জালে পুড়ে যাওয়া ভবনের মালিক

  • Delhi Mundka Fire: শনিবার দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল মুন্ডকা অগ্নিকাণ্ডের একটি ম্যাজিস্ট্রেট পর্যায়ের তদন্তের নির্দেশ দিয়েছিলেন। তিনি ঘটনাস্থলেও যান। কেজরিওয়ালের সঙ্গে ঘটনাস্থলে গিয়েছিলেন দিল্লির উপমুখ্যমন্ত্রী মণীশ সিসোদিয়া এবং দিল্লির মন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈনও।

অনুমোদন ছাড়াই তৈরি হয়েছিল বিল্ডিং। তাতেই ছিল বিভিন্ন সংস্থার অফিস। সেই ভবনেই ভয়াবহ এক অগ্নিকাণ্ড প্রাণ কেড়ে নিল ২৭ জনের। এই আবহে দিল্লির মুন্ডকার অগ্নিদগ্ধ ভবনের মালিক মণীশ লাকড়াকে গ্রেফতার করল দিল্লি পুলিশ। দিল্লি পুলিশে ডেপুটি কমিশনার এই তথ্য জানিয়েছেন। অগ্নিকাণ্ডের পর থেকেই লাকড়া পলাতক ছিল। সে এই ভবনেরই ওপর তলায় থাকত বলে জানা গিয়েছে।

এর আগে শনিবার দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল মুন্ডকা অগ্নিকাণ্ডের একটি ম্যাজিস্ট্রেট পর্যায়ের তদন্তের নির্দেশ দিয়েছিলেন। তিনি ঘটনাস্থলেও যান। কেজরিওয়ালের সঙ্গে ঘটনাস্থলে গিয়েছিলেন দিল্লির উপমুখ্যমন্ত্রী মণীশ সিসোদিয়া এবং দিল্লির মন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈনও। মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেন মৃতদের পরিবার সদস্যদের ১০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। এদিকে পুড়ে যাওয়া দেহ শনাক্ত করার জন্য ডিএনএ পরীক্ষা করা হবে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, গত পরশু বিকেলে দিল্লির মুন্ডকা মেট্রো স্টেশনের কাছে একটি তিনতলা বিল্ডিংয়ে আগুন লাগে। আর তাতে কমপক্ষে ২৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। সূত্রের খবর, মেট্রো স্টেশনের ৫৪৪ নম্বর পিলারের কাছে প্রথম আগুন দেখা যায়। প্রথমে ১০টি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে। পরে আরও ২৪টি ইঞ্জিন পৌঁছায় ঘটনাস্থলে। আগুনের গ্রাসে চলে যাওয়া বিল্ডিংটিতে মূলত বিভিন্ন সংস্থার অফিস ছিল। সেই অফিসের কর্মীদের অনেকেই অগ্নিকাণ্ডের জেরে আটকে পড়েন। পুলিশ জানিয়েছে, বিল্ডিং থেকে ৫০ জনেরও বেশি লোককে সুরক্ষিত ভাবে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। তবে আরও কিছু লোক গভীর রাত পর্যন্ত ভবনের ভিতরে আটকে ছিলেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছিল। দমকল এবং পুলিশের পাশাপাশি জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীও সেখানে উদ্ধার কাজে নিয়োজিত ছিল। আহতদের সবাইকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপরই মালিকের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছিল পুলিশ।

বন্ধ করুন