এই নিয়ে পর পর দুই দিন দাম কমল সোনার।
এই নিয়ে পর পর দুই দিন দাম কমল সোনার।

সোমবার সোনার দাম কমল আরও, চালু দ্বিতীয় কিস্তির গোল্ড বন্ড সাবস্ক্রিপশন

  • দেশে এই নিয়ে পর পর দুই দিন দাম কমল সোনার। আন্তর্জাতিক বাজারে অবশ্য সোনার দাম এ দিন চড়ার দিকে। এ দিনই সভরেন গোল্ড বন্ডের দ্বিতীয় কিস্তি বাজারে ছেড়েছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক।

সোমবার আরও পড়ল সোনার দাম। এই নিয়ে পর পর দুই দিন দাম কমল সোনার। এ দিন এমসিএক্স সূচকে জুন গোল্ডের দর ০.২% কমার ফলে হিসেবে প্রতি ১০ গ্রাম সোনার দাম দাঁড়িয়েছে ৪৫,৭২২ টাকা। গত দিন দাম কমেছিল ০.৭০%। 

সুখের কথা, এর পাশাপাশি কিছু হলেও দাম বেড়েছে রুপোর। এ দিন এমসিএক্স সূচকে গত দিনের তুলনায় ০.৪২% বেড়েছে রুপোর দাম, যার ফলে প্রতি কেজির দাম যাচ্ছে ৪৩,৪৭৫ টাকা। 

আন্তর্জাতিক বাজারে অবশ্য সোনার দাম এ দিন চড়ার দিকে। প্রতি আউন্স সোনার দাম এ দিন ১,৭০০ ডলারের কাছাকাছি ঘোরাফেরা করছে। স্পট গোল্ড সূচক ০.২% বেড়ে গিয়ে প্রতি আউন্স সোনার দাম যাচ্ছে ১,৭০৪.২৬ ডলার। রুপোর দাম প্রতি আউন্সে ০.৪% বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৫.৫১ ডলার। 

সোমবার থেকে সভরেন গোল্ড বন্ডের দ্বিতীয় কিস্তি বাজারে ছেড়েছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া। আগামী ১৫ মে পর্যন্ত খোলা থাকবে ইস্যু। প্রতি গ্রাম সোনার হিসেবে দাম বেঁধে দেওয়া হয়েছে ৪,৫৯০ টাকা। অনলাইনে ডিজিটাল পেমেন্টের মাধ্যমে ইস্যু কেনার উপরে প্রতি গ্রামে ৫০ টাকা ছাড় ঘোষণা করেছে আরবিআই। 

অন্য দিকে, লকডাউনের জেরে দোকান বন্ধ থাকায় সোনার বাহ্যিক বিক্রিতে ভাটা পড়ায় সোনায় লগ্নিতে আংশিক শ্লথগতি দেখা দিয়েছে। একমাত্র ব্যতিক্রম বিশ্বের বৃহত্তম সোনার ক্রেতা চিনে। সেখানে সোনার চাহিদা ঊর্ধ্বগামী। 

আবার বাহ্যিক বিক্রির হারে উল্লেখজনক উত্থান দেখা না দিলেও অনলাইনে সোনায় বিনিয়োগের দিকে ঝোঁকার প্রবণতা বেড়েছে। করোনা লকডাউনের সুবাদে বিশ্বজুড়ে অর্থনীতিতে ঢিমে চাল দেখা দেওয়ায়, সোনায় লগ্নি অনেক বেশি নিরাপদ মনে করছেন বিনিয়োগকারীরা। কিছু কিছু দেশে নিষেধাজ্ঞায় ছাড় দেওয়ার ফলে চাহিদা অনুযায়ী শুরু হয়েছে উৎপাদনও। 

 

বন্ধ করুন