বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > শুক্রবার সোনার দাম কিছু বাড়লেও মোটের ওপর নিম্নমুখী রইল বাজার
শুক্রবার সূচকে ০.১১% উত্থানের জেরে প্রতি ১০ গ্রাম সোনার দাম যাচ্ছে ৫০,০২৯ টাকা।
শুক্রবার সূচকে ০.১১% উত্থানের জেরে প্রতি ১০ গ্রাম সোনার দাম যাচ্ছে ৫০,০২৯ টাকা।

শুক্রবার সোনার দাম কিছু বাড়লেও মোটের ওপর নিম্নমুখী রইল বাজার

  • ভারতীয় বাজারে এ দিন প্রতি ১০ গ্রাম সোনার দাম যাচ্ছে ৫০,০২৯ টাকা।

আন্তর্জাতিক বাজারের ঝিমানো ভাবের জেরে ভারতেও সোনার দামে বিশেষ উত্থানের লক্ষণ দেখা দিল না পর পর চার দিন। এর জেরে শুক্রবার সামান্য দাম চড়লেও সোনা ও রুপোর দর রইল আগের তুলনায় নিম্নমুখীই।

গত চার দিন সোনার দাম পড়ার পরে এ দিন এমসিএক্স সূচকে ০.১১% উত্থানের জেরে প্রতি ১০ গ্রাম সোনার দাম যাচ্ছে ৫০,০২৯ টাকা। পাশাপাশি, সূচকে ০.৩% বৃদ্ধির জেরে প্রতি কেজি রুপোর দাম যাচ্ছে ৬১,৬৯০ টাকা। 

গত দিন সোনার দামে ০.৭% পতনের ফলে প্রতি ১০ গ্রামে ৩৫০ টাকা ঘাটতি দেখা দেয়। ১.৬৩% পতনের জেরে প্রতি কেজিতে ১,০০০ টাকা কমে রুপোর দাম। 

আন্তর্জাতিক বাজারে এ দিন সোনার দামে পতন ঘটেছে মার্কিন অর্থনীতিতে অনিশ্চয়তা দূর না হওয়ার দরুণ। স্পট গোল্ড সূচকে ০.২% পতনের ফলে প্রতি আউন্স সোনার দাম যাচ্ছে ১.৮৬৩.২১ ডলার। সূচকে ০.১% পতনের কারণে প্রতি আউন্স রুপোর দাম যাচ্ছে ২৪.০৬ ডলার। 

কোভিড প্রতিষেধক ভ্যাক্সিন উৎপাদন নিয়ে সদর্থক বার্তা পাওয়ার পরে আন্তর্জাতিক শেয়ার বাজারে চলতি সপ্তাহে সর্বকালীন সেরা দর ওঠে। কিন্তু টিকা উৎপাদনের প্রতিযোগিতা এবং সংক্রকমণের হার লাগামছাড়া হওয়ায় ফের বাজারে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে।

বাজার পরিস্থিতি বুঝে বর্তমানে গোল্ড ইটিএফ-এ বিনিয়োগে বিশেষ উৎসাহী নন লগ্নিকারীরা। বৃহস্পতিবার বিশ্বের বৃহত্তম গোল্ড ইটিএখ এসপিডিআর গোল্ড ট্রাস্টে মজুত সোনার পরিমাণে ০.১৪% ঘাটতি দেখা দেওয়ায় মোট সোনার পরিমাণ দাঁড়ায় ১,২১৭.২৫ টন। 

কোটিক সিকিওরিটিস-এর তরফে জানানো হয়েছে, ‘আউন্সপ্রতি ১,৯০০ ডলার দর অতিক্রম করতে না পারায় চাপের মুখে পড়েছে সোনার দাম। Covid-19 ভ্যাক্সিন ট্রায়ালের অগ্রগতির প্রভাবে সোনায় বিনিয়োগের হার কমতে শুরু করেছে। এই সম্পর্কে স্পষ্ট ছবি না পাওয়া পর্যন্ত সোনা ও রুপোর দরে ওঠাপড়া লেগেই থাকবে।’

বন্ধ করুন