বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > রাত আড়াইটের আচমকাই হাসপাতাল পরিদর্শনে হিমন্ত, খতিয়ে দেখলেন CCTV ফুটেজ
হাসপাতালে হিমন্ত বিশ্বশর্মা। (ছবি সৌজন্য, টুইটার @himantabiswa)
হাসপাতালে হিমন্ত বিশ্বশর্মা। (ছবি সৌজন্য, টুইটার @himantabiswa)

রাত আড়াইটের আচমকাই হাসপাতাল পরিদর্শনে হিমন্ত, খতিয়ে দেখলেন CCTV ফুটেজ

হিমন্ত জানান, রাত আড়াইটের সময় আমি গুয়াহাটি মেডিকেল কলেজ এবং হাসপাতালের জরুরি বিভাগে যাই, কীভাবে করোনা আক্রান্তের চিকিৎসা করা হচ্ছে তা দেখতে।

‌করোনা পরিস্থিতিতে সরকারি ব্যবস্থাপনা খতিয়ে দেখতে মধ্যরাতে সরকারি হাসপাতাল পরিদর্শনে গেলেন অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা। শনিবার রাত আড়াইটের সময়ে গুয়াহাটি মেডিকেল কলেজ এবং হাসপাতালের আচমকাই পরিদর্শনে যান অসমের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত বিশ্বশর্মা।

হাসপাতালে চিকিৎসক, নার্স, কর্মীদের সঙ্গে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলেন তিনি।হাসপাতালের সিসিটিভি ক্যামেরায় হাসপাতালের চিকিৎসা পরিষেবার কাজ কেমন চলছে, তাও খতিয়ে দেখেন তিনি। এরপর হাসপাতালে যাওয়ার কথা টুইট করেও জানান অসমের মুখ্যমন্ত্রী। টুইটারে তিনি লেখেন, ‘‌যেসব রোগীর অবস্থা খুবই গুরুতর, তাঁদের চিকিৎসা করা খুবই চ্যালেঞ্জের বিষয়। রাত আড়াইটের সময় আমি গুয়াহাটি মেডিকেল কলেজ এবং হাসপাতালের জরুরি বিভাগে যাই, কীভাবে করোনা আক্রান্তের চিকিৎসা করা হচ্ছে তা দেখতে। চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়ার ক্ষেত্রে যে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, তা সন্তোষজনক।চিকিৎসক, নার্সরা যেভাবে কাজ করছেন, তাতে তাঁদের কৃতজ্ঞতা জানাই।’‌

এই প্রসঙ্গে অসমের মুখ্যমন্ত্রী স্পষ্ট জানান, ‘‌আমি অড আওয়ার ম্যানেজমেন্টের কথা আগেই বলেছিলাম যেখানে চিকিৎসকরা রাত ১১টা থেকে সকাল ৭টা পর্যন্ত ডিউটি দিচ্ছেন। অনেক সময়ই আমরা দেখেছি, বেশি রাতের দিকে রোগীর বেশি সংখ্যক রোগীর মৃত্যু হচ্ছে। অনেকেই খুব রাতে রোগী হাসপাতালে ভর্তি করাতে নিয়ে আসছেন, তারপর দু'তিন ঘণ্টা পরই সেই রোগীর মৃত্যু হচ্ছে। অনেক সময় দেখা যায়, সিনিয়র ডাক্তাররা দিনের বেলা ডিউটি দিচ্ছেন।এখন থেকে তাঁদের রাতেও ডিউটি দিতে হবে। প্রতিটি ওয়ার্ডে সিসিটিভি ক্যামেরা আছে।সেই ক্যামেরার মাধ্যমেই নজর রাখা হবে।’‌ অসমের মুখ্যমন্ত্রী স্পষ্ট জানিয়ে দেন, এখনও পর্যন্ত অসমে অক্সিজেন সরবরাহের ক্ষেত্রে কোনও ঘাটতি নেই। সরকারি হাসপাতালগুলিতে বেডের কোনও ঘাটতি নেই। বরং হাসপাতালে বেড সংখ্যা আরও বাড়ানো হচ্ছে ।সরুসাজাই থেকে সেই প্রক্রিয়া শুরুও হয়ে গিয়েছে।

বন্ধ করুন