ব্রেকিং নিউজ

করোনার জেরে CBSE ১ম থেকে ৮ম, ৯ম ও একাদশ শ্রেণির ছাত্রদের ঢালাও পাশের নির্দেশ

বার্ষিক পরীক্ষা ছাড়াই পড়ুয়াদের পরের ক্লাসে উত্তীর্ণ করার নির্দেশ।
বার্ষিক পরীক্ষা ছাড়াই পড়ুয়াদের পরের ক্লাসে উত্তীর্ণ করার নির্দেশ।

যে সমস্ত পড়ুয়া চলতি বছরে পাশ করতে ব্যর্থ হবে, তাদের জন্য অনলাইন ও অফলাইন ভিত্তিক স্কুলের পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হবে।

করোনা সংকটের জেরে সিবিএসই বোর্ডের অধীনে থাকা সমস্ত স্কুলের প্রথম থেকে অষ্টম শ্রেণির সব ছাত্রকে পাশ করিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দিল কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ মন্ত্রক।

সেই সঙ্গে নবম ও একাদশ শ্রেণির ছাত্রদেরও এ পর্যন্ত হওয়া স্কুলভিত্তিক অ্যাসেসমেন্ট, প্রোজেক্ট, ক্লাসের পরীক্ষা, টার্মভিত্তিক পরীক্ষার ফল বিবেচনা করে পাশ করানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বুধবার কেন্দ্রীয় শিক্ষা সচিব অমিত খারের নেতৃত্বে স্কুলশিক্ষা দফতরের শীর্ষস্থানীয় আধিকারিকদের সঙ্গে বিস্তারিত বৈঠকের পরে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন দফতরের ভারপ্রাপ্ত মন্ত্রী রমেশ পোখরিয়াল নিশঙ্ক।

এ দিন টুইটারে মন্ত্রী ঘোষণা করেনছেন, ‘COVID 19-এর জেরে সৃষ্টি হওয়া বর্তমান পরিস্থিতিতে সিবিএসই-কে আমি পরামর্শ দিয়েছি, প্রথম থেকে অষ্টম শ্রেণির সমস্ত পড়ুয়াকে পরের শ্রেণিতে তুলে দেওয়া হোক।’

সেই সঙ্গে নবম ও একাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদেরও এ পর্যন্ত নেওয়া অ্যাসেসমেন্ট, প্রোজেক্ট, ক্লাস টেস্ট ও টার্ম পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে পরের ক্লাসে তুলে দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছেন মন্ত্রী।

পাশাপাশি, যে সমস্ত পড়ুয়া চলতি বছরে পাশ করতে ব্যর্থ হবে, তাদের জন্য অনলাইন ও অফলাইন ভিত্তিক স্কুলের পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হবে।

এ দিন কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়নের তরফে আরও জানানো হয়েছে যে, দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির জন্য সিবিএসই-এর তরফে ২৯টি বিষয়ের উপরে বোর্ড পরীক্ষার আয়োজন করতে গেলে আগে কেন্দ্রীয় মন্ত্রককে তা চিঠি মারফৎ জানাতে হবে। অন্যান্য বিষয়ে বোর্ড পরীক্ষার আয়োজন করা যাবে না বলেও জানিয়েছে মন্ত্রক।

উল্লিখিত পরীক্ষার বিষয়গুলি সম্পর্কেও বিস্তারিত জানিয়েছে মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক।দশম শ্রেণির পরীক্ষা নেওয়া হবে:

১) শুধুমাত্র উত্তর-পূর্ব দিল্লির স্কুলগুলির জন্য: হিন্দি কোর্স এ, হিন্দি কোর্স বি, ইংলিশ কমিউনিকেশন, ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ অ্যান্ড লিটারেচার, সায়েন্স ও সেশ্যাল সায়েন্স।

২) দেশের অন্যান্য অঞ্চলের স্কুলগুলির জন্য: শূন্য

দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা নেওয়া হবে:

১) সারা ভারতের স্কুলগুলির জন্য: বিজনেস স্টাডিজ, জিওগ্রাফি, হিন্দি (ইলেক্টিভ), হিন্দি (কোর), হোম সায়েন্স, সোশিওলজি, কম্পিউটার সায়েন্স (পুরনো পাঠ্যক্রম), কম্পিউটার সায়েন্স (নতুন পাঠ্যক্রম), ইনফর্মেশন প্র্যাক্টিস (নতুন পাঠ্যক্রম), ইনফর্মেশন টেকনোলজি ও বায়ো টেকনোলজি।

২) শুধুমাত্র উত্তর-পূর্ব দিল্লির স্কুলগুলির জন্য: ইংলিশ কোর, ম্যাথামেটিক্স, ইকোনমিক্স, বায়োলজি, পলিটিক্যাল সায়েন্স, হিস্ট্রি, ইংলিশ ইলেক্টিভ-এন, ইংলিশ ইলেক্টিভ-সি, ফিজিক্স, অ্যাকাউন্টেন্সি ও কেমিস্ট্রি।

মন্ত্রকের তরফে বলা হয়েছে, খুব তাড়াতাড়ি পরীক্ষার নম্বর দেওয়া ও উত্তরপত্রের পর্যালোচনা সংক্রান্ত নিয়মাবলী প্রকাশ করা হবে।

এ ছাড়া, দেশের বাইরে অবস্থিত সিবিএসসি অধীনস্থ স্কুলগুলিতে দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা আপাতত স্থগিত রাখার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক।

মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, কিছু দিনের মধ্যেই সিবিএসসি অধীনস্থ স্কুলগুলি অনলাইন ক্লাসের ব্যবস্থা চালু করবে।

প্রসঙ্গত, লকডাউনের জেরে এর আগেই সিবিএসই ও আইসিএসই-সহ একাধিক স্কুল বোর্ড অনলাইন ক্লাস চালু করে দিয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

এর পাশাপাশি যে সমস্ত দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের বোর্ড পরীক্ষা লকডাউনের জেরে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, তাদের জন্য শ্রেষ্ঠ সমাধানের খোঁজে রয়েছে সিবিএসই ও কেন্দ্রীয় সরকার।

বন্ধ করুন