বাড়ি > ঘরে বাইরে > ২০ ঘণ্টার লড়াইয়ে চিনা সেনাদের নাস্তানাবুদ, ২১ ITBP জওয়ানকে সাহসিকতার পুরস্কার
ভারতীয় সেনার সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়ে চিনা ফৌজকে প্রতিহত করার দুঃসাহসিকতা দেখিয়েছে আইটিবিপি।
ভারতীয় সেনার সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়ে চিনা ফৌজকে প্রতিহত করার দুঃসাহসিকতা দেখিয়েছে আইটিবিপি।

২০ ঘণ্টার লড়াইয়ে চিনা সেনাদের নাস্তানাবুদ, ২১ ITBP জওয়ানকে সাহসিকতার পুরস্কার

আগ্রাসী পিপলস লিবারেশন আর্মিকে দুর্জয় সাহসের সঙ্গে রুখে দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছে আইটিবিপি বাহিনী।

পূর্ব লাদাখের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা অঞ্চলে ভারতীয় সেনার সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়ে চিনা ফৌজকে প্রতিহত করার জন্য সাহসিকতার পুরষ্কারে সম্মানিত হতে চলেছেন ইন্দো টিবেট বর্ডার পুলিশ (আইটিবিপি) বাহিনীর ২১ জন সদস্য। 

পাশাপাশি, লাদাখ অঞ্চলে একাধিক সংঘর্ষে সাহসিকতা প্রদর্শনের জন্য অভ্যন্তরীণ ডিরেক্টর জেনারেল কমেন্ডিং ডিস্ক-এ ভূষিত হতে চলেছেন আধাসামরিক বাহিনীর ২৯৪ জন সেনানী। 

শুক্রবার এক বিবৃতিতে আইটিবিপি-র তরফে জানানো হয়েছে, ‘শুধু নিজেদের রক্ষা করাই নয়, আগ্রাসী পিপলস লিবারেশন আর্মিকে দুর্জয় সাহসের সঙ্গে রুখে দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছে আইটিবিপি বাহিনী। উচ্চ পর্যায়ের পেশাদারি দক্ষতার সঙ্গে ভারতীয় সেনাবাহিনীর পাশাপাশি কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়েছে আইটিবিপি বাহিনী এবং আহত সেনাকে রক্ষা করতে এগিয়ে এসেছে এই বাহিনী।’

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘সারারাত ধরে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর যুদ্ধ করতে হলেও ন্যূনতম ক্ষতিসাধন হয়েছে বাহিনীর। কয়েক জায়গায় তাদের নাগাড়ে ১৭ থেকে ২০ ঘণ্টা পর্যন্ত অবস্থান করতে হয়েছে।’ 

ওয়াকিবহাল আধিকারিকরা অবশ্য জানিয়েছেন, বিবৃতিতে গালওয়ান উপত্যকায় ভারতীয় বাহিনীর সঙ্গে চিনা ফৌজের মুখোমুখি সংঘর্ষের কথা এ ক্ষেত্রে উল্লেখ করেনি আইটিবিপি। ওই সংঘর্ষ ছাড়াও গত মে মাস থেকে পূর্ব লাদাখ অঞ্চলে ভারত ও চিনের নিরাপত্তাবাহিনীর মধ্যে আরও প্রায় ছয়টি তুলনায় ছোট মাপের সংঘর্ষ ঘটেছে। এই সমস্ত অভিযানে ভারতীয় সেনার পাশে থেকে লড়েছে আধা সামরিক আইটিবিপি বাহিনী।

ঘটনাচক্রে এই প্রথম পূর্ব লাদাখের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা সংলগ্ন এলাকায় আনুষ্ঠানিক ভাবে চিনা ফৌজের আগ্রাসন এবং তার জেরে একাধিক সংঘর্ষের কথা স্বীকার করল ভারত সরকার। জানা গিয়েচে, এই অঞ্চলে এখনও ভারত ও চিনের সশস্ত্র বাহিনী অবস্থান করছে।

বন্ধ করুন