বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > 'মেরুদণ্ডে সূচ ঠেকিয়ে ধর্ষণ', ট্যাটু করাতে গিয়ে লালসার শিকার ৬, ধৃত ‘আর্টিস্ট'
ধৃত ট্যাটু আর্টিস্ট সুজেশ পিএস (ছবি সৌজন্যে সোশ্যাল মিডিয়া)

'মেরুদণ্ডে সূচ ঠেকিয়ে ধর্ষণ', ট্যাটু করাতে গিয়ে লালসার শিকার ৬, ধৃত ‘আর্টিস্ট'

  • সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া পোস্টে নির্যাতিতা দাবি করেন, তাঁর মেরুদণ্ডে সূচ দিয়ে ট্যাটু করতে করতে তাঁকে ধর্ষণ করা হয়েছিল।

কোচির এক জনপ্রিয় ট্যাটু শিল্পীকে রবিবার গ্রেফতার করেছে কেরল পুলিশ। ধৃতের নাম সুজেশ পিএস ধর্ষণ, যৌন নিপীড়ন এবং শ্লীলতাহানির অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অন্তত পক্ষে ৬ জন মহিলার এই ট্যাটু শিল্পীর বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছেন। অভিযোগকারী সবাই ট্যাটু শিল্পীর প্রাক্তন ক্লায়েন্ট। তাকে দুই সপ্তাহের জন্য বিচারবিভাগীয় হেফাজতে পাঠানো হয়েছে।

একটি ১৮ বছর বয়সী তরুণীর সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট ভাইরাল হওয়ার পরেই অভিযোগগুলি দায়ের করা হয়েছিল। ভাইরাল পোস্টে সেই তরুণী সুজেশ পিএস-এর ট্যাটু স্টুডিও - ইনকফেক্টেড ট্যাটু স্টুডিওতে তাঁর ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতা বর্ণনা করেন। এরপরই একে একে আরও নির্যাতিতা প্রকাশ্যে আসেন নিজেদের অভিজ্ঞতা জানাতে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া পোস্টে নির্যাতিতা দাবি করেন, তাঁর মেরুদণ্ডে সূচ দিয়ে ট্যাটু করতে করতে তাঁকে ধর্ষণ করা হয়েছিল। পুলিশ অবশ্য জানায়, নির্যাতিতা পুলিশের কাছে সরকারি ভাবে কোনও অভিযোগ জানাননি। এরপর একে একে আরও অনেক যুবতী সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁদের ভয়াবহ অভিজ্ঞতার কথা জানান। এরপরই শোরগোল পড়ে যায়। তার বিরুদ্ধে করা পোস্টগুলি ভাইরাল হতেই সুজেশ পালিয়ে যান। পরে অবশ্য সে আত্মসমর্পণ করে।  

কোচি শহরের পুলিশ কমিশনার সিএইচ নাগারাজু সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘আমরা অভিযোগকারীদের ১৬৪টি বিবৃতি রেকর্ড করব। এখনও পর্যন্ত অভিযুক্তের বিরুদ্ধে আমারা ছয়টি এফআইআর নথিভুক্ত করেছি। অভিযুক্ত আবার প্রাথমিকভাবে পলাতক ছিল। আপাতত যে সব ধারায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে, তার সবকটি জামিন অযোগ্য অপরাধ।’

বন্ধ করুন