বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > আগামী ১৩ মাসে ৫০০ তেজস স্লিপার কোচ চালু, প্রথম ট্রেনেই ত্রিপুরা-বাংলা যোগ
আগামী অর্থবর্ষে ৫০০ টি তেজস স্লিপার কোচ নিয়ে আসবে ভারতীয় রেল। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
আগামী অর্থবর্ষে ৫০০ টি তেজস স্লিপার কোচ নিয়ে আসবে ভারতীয় রেল। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

আগামী ১৩ মাসে ৫০০ তেজস স্লিপার কোচ চালু, প্রথম ট্রেনেই ত্রিপুরা-বাংলা যোগ

আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে তেজসের স্লিপার ক্লাস ট্রেন চালু করছে ভারতীয় রেল।

যাত্রীবাহী ট্রেনের ক্ষেত্রে সুখবর শোনাল রেল মন্ত্রক। আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে তেজসের স্লিপার ক্লাস ট্রেন চালু করছে ভারতীয় রেল। আগরতলা রাজধানী স্পেশাল ট্রেনs চালু হবে। আগরতলা আনন্দবিহার টার্মিনাল স্পেশাল রাজধানী এক্সপ্রেস যেটা ছিল সেই রেকটি সরিয়ে ফেলে তেজস স্লিপার কোচ নতুন করে যুক্ত করা হবে। যে ট্রেন নিউ জলপাইগুড়ির উপর দিয়ে যায়। রেল মন্ত্রক এমনই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

রেল মন্ত্রক সূত্রে খবর, সাধারণ এক্সপ্রেস ট্রেনের থেকে তেজস স্লিপার ক্লাস ট্রেনে উন্নিত হওয়া যাবে। সেখানে থাকবে একাধিক আধুনিক ব্যবস্থা। থাকবে স্মার্ট ফিচার। যা এক্সপ্রেস ট্রেনে থাকে না। এমনকী এই ট্রেনে সফর করলে দারুণ অভিজ্ঞতা হবে যাত্রীদের। আগামী ১৫ ফেব্রয়ারি থেকে এই পরিষেবা চালু হয়ে যাবে। দূরে সফরের ক্ষেত্রে এই ট্রেন যাত্রীদের কাছে দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।

জানা গিয়েছে, প্রায় ৫০০ তেজস ট্রেনের মতো স্লিপার ক্লাস ট্রেন তৈরি করা হবে। এই ধরনের ট্রেনের কোচ তৈরি হচ্ছে ইন্টিগ্রাল কোচ ফ্যাক্টরি এবং মর্ডান কোচ ফ্যাক্টরিতে। ২০২১–২২ সালে ধীরে ধীরে এমন ট্রেন তৈরির মাত্রা বাড়ানো হবে। বিশেষ করে দূরপাল্লার যাত্রীবাহী ট্রেনগুলিকেই এই ধাঁচে তৈরি করা হবে। তাতে রেলের আয়ও বাড়বে। আবার যাত্রী স্বাচ্ছন্দ্যও বাড়বে।

কী বৈশিষ্ট্য থাকছে এই ট্রেনে?‌ এই ট্রেনে থাকছে অটোমেটিক প্লাগের দরজা, লোহার ফ্রেম, বায়ো–ভ্যাকুয়াম শৌচাগার, এয়ার সাসপেনশন বগি, ফায়ার অ্যালার্ম, ডিটেকশন এবং সাপ্রেশন সিস্টেম–সহ আরও অত্যাধুনিক প্রযুক্তি নির্ভর ব্যবস্থা।

বন্ধ করুন