বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > সেপ্টেম্বর মাসেই উপনির্বাচন করা হোক, নির্বাচন কমিশনে দাবি জানালো তৃণমূল
নির্বাচন কমিশনের দফতর। ফাইল ছবি। সৌজন্যে–এএনআই।
নির্বাচন কমিশনের দফতর। ফাইল ছবি। সৌজন্যে–এএনআই।

সেপ্টেম্বর মাসেই উপনির্বাচন করা হোক, নির্বাচন কমিশনে দাবি জানালো তৃণমূল

  • আর জোরালো দাবি করেন, দ্রুত উপনির্বাচন করতে হবে। আজ নির্বাচন কমিশনে সাতটি কেন্দ্রে সংক্রমণের বিশদ রিপোর্ট জমা দেওয়া হয়।

বিজেপি উপনির্বাচন না চাইলেও তৃণমূল কংগ্রেস উপনির্বাচনের জন্য মরিয়া। বৃহস্পতিবার এই নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে নির্বাচন কমিশনে জোর দরবার করা হয়। সৌগত রায়, মহুয়া মৈত্র–সহ তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিনিধিদল নয়াদিল্লিতে নির্বাচন কমিশনের দফতরে যান। রাজ্যের করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে ফিরিস্তি তুলে ধরেন। আর জোরালো দাবি করেন, দ্রুত উপনির্বাচন করতে হবে। আজ নির্বাচন কমিশনে সাতটি কেন্দ্রে সংক্রমণের বিশদ রিপোর্ট জমা দেওয়া হয়।

বিজেপি বুধবারই জানিয়ে দিয়েছে, এখন উপনির্বাচন কোনওভাবেই করা উচিত হবে না। তাদের পক্ষ থেকেও বেশকিছু ফিরিস্তি দেওয়া হয়। এই নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হলে সাংসদ সুখেন্দু শেখর রায় বলেন, ‘‌বাংলায় পরাজিত হওয়ার পর বিজেপির মাথা খারাপ হয়ে গিয়েছে। রাজ্যের এখন করোনা পরিস্থিতি ঠিক কী, তার বিশদ রিপোর্ট আমরা কমিশনের কাছে জমা দিয়েছি।’‌ আর সাংসদ সৌগত রায় বলেন, ‘‌এই মুহূর্তে করোনা পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে। তাই যত দ্রুত সম্ভব নির্বাচন করানোর বিষয়টি বিবেচনা করা উচিত কমিশনের। সেকথা জানিয়েছি।’‌

উল্লেখ্য, অগস্ট মাসেই উপনির্বাচনের বিষয়ে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের মতামত জানতে চেয়ে চিঠি দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। তার প্রেক্ষিতে আজ তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে দ্রুত উপনির্বাচন চেয়ে চিঠি দেওয়া হয়। বিজেপি অবশ্য উপনির্বাতনের বিপক্ষে মত দিয়েছে। বঙ্গ বিজেপি কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকেও চিঠি দিয়েছে। সেখানে ৮টি কারণ তুলে ধরা হয়েছে উপনির্বাচন না করার বিষয়ে। সূত্রের খবর, বঙ্গ–বিজেপির সেই চিঠিই নির্বাচন কমিশনের হাতে তুলে দিতে পারেন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। আর তৃণমূল কংগ্রেস নির্বাচন কমিশনে আবেদন জানিয়েছে যেন সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যেই উপনির্বাচনের আয়োজন করা হয়।

বন্ধ করুন