বৃহস্পতিবার কিছুটা শান্ত রাজধানী। চাপা উত্তেজনা থাকলেও নতুন করে অশান্তির খবর পাওয়া যায়নি। এরমধ্যেই উত্তরপূর্ব দিল্লিতে হিংসার ঘটনার তদন্তের জন্য দুইট বিশেষ তদন্তকারী দল (এসআইটি) গঠিত করা হয়েছে।

দিল্লি পুলিশ জানিয়েছে প্রখম দলের নেতৃত্বে থাকবেন ডিসিপি জয় তির্কে। অন্যটির নেতৃত্ব দেবেন ডিসিপি রাজেশ দেও। চারজন করে এসিপি থাকবেন দুই দলে। দুই এসআইটির কাজের নজরদারি করবেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার বিকে সিংহ।

দিল্লি হিংসা নিয়ে মোট ৪৮টি এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। প্রতিটি আসবে এই দুই তদন্তকারী দলের আওতায়। রাজধানীতে হিংসা রোধে দিল্লি পুলিশ সময়মতো যথেষ্ট সক্রিয়তা দেখাননি বলেই অভিযোগ। দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল পর্যন্ত বলেন যে পুলিশের কাছে কোনও নির্দেশ ছিল না শক্ত হাতে পরিস্থিতি মোকাবিলা করার।

সিএএ বিরোধী ও পন্থীদের মধ্যে দাঙ্গায় কম করে ৩৪ জন মারা গিয়েছেন। এর মধ্যে আছেন দুই নিরাপত্তা কর্মীও। আইবি অফিসার অঙ্কিত শর্মার হত্যায় ভূমিকা নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে আপ কাউন্সিলর মহম্মদ তাহির হুসেনের বিরুদ্ধে।





বন্ধ করুন