বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > উত্তরাখণ্ড ভোটের আগে বিজেপিতে যোগ সিডিএস বিপিন রাওয়াতের ভাইয়ের, অবসান জল্পনার
বিজেপিতে যোগ দিলেন সিডিএস বিপিন রাওয়াতের ভাই। ছবি সৌজন্য এএনআই।
বিজেপিতে যোগ দিলেন সিডিএস বিপিন রাওয়াতের ভাই। ছবি সৌজন্য এএনআই।

উত্তরাখণ্ড ভোটের আগে বিজেপিতে যোগ সিডিএস বিপিন রাওয়াতের ভাইয়ের, অবসান জল্পনার

  • এদিকে, বুধবার পুষ্কর সিং ধামির সঙ্গে বিপিন রাওয়াতের ভাইয়ের সাক্ষাৎ নিয়ে ব্যাপক তোলপাড় হয় রাজনৈতিক মহলে। বাড়ে জল্পনা। 

২০২২ বিধানসভা ভোটের দিন ঘোষণার পর থেকেই বহু রাজ্যে দলবদলের নানান ছবি উঠে আসছে। একই সঙ্গে চলছে প্রার্থী তালিকা ঘোষণার পালা। এরই মাঝে, বুধবার বিজেপিতে যোগ দিলেন সিডিওস বিপিন রাওয়াতের ভাই কর্নেল বিজয় রাওয়াত। তার আগে, বিজেপি শাসিত উত্তরাখণ্ডে মুখ্যমন্ত্রী পুষ্কর ধামির সঙ্গে দেখা করেন প্রয়াত সিডিএস জেনারেল বিপিন রাওয়াতের ভাই। ভারতীয় সেনার অবসরপ্রাপ্ত কর্নেল বিজয় রাওয়াতের সঙ্গে বিজেপির পুষ্কর ধামির সাক্ষাৎ ঘিরে দলে যোগদানের জল্পনা বেড়ে যায়।

গত ৮ ডিসেম্বর এক কপ্টার দুর্ঘটনায় সস্ত্রীক মৃত্যু হয় দেশের প্রথম সিডিএস বিপিন রাওয়াতের। সেই ঘটনা ঘিরে শোক নেমে আসে গোটা দেশে। শোকস্তব্ধ হয় রাওয়াক পরিবার। এদিকে, বুধবার পুষ্কর সিং ধামির সঙ্গে বিপিন রাওয়াতের ভাইয়ের সাক্ষাৎ নিয়ে ব্যাপক তোলপাড় হয় রাজনৈতিক মহলে। সাক্ষাতের পর কর্নের বিজয় রাওয়াত বলেন, 'রাজ্য নিয়ে ওঁর (উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী)র দৃষ্টিভঙ্গি আমার ভালো লাগে। আমার ভাইয়ের যা ভাবনা ছিল, তার সঙ্গে মিলে যায় এই ভাবনা।' এরপরই কর্নেল রাওয়াতকে প্রশ্ন করা হয় তাঁর বিজেপিতে যোগদানের সম্ভাবনা নিয়ে। যার উত্তরে তিনি বলেন, 'যদি ওঁরা জিজ্ঞাসা করেন যোগ দিতে, তাহলে উত্তরাখণ্ডের মানুষকে আমি সেবা করব।' এদিকে, উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী পুষ্কর সিং ধামি নিজেও একথা জানিয়েছেন যে, এদিন তাঁর সঙ্গে কর্নেল রাওয়াতের সাক্ষাৎ হয়েছে। তিনি একটি টুইটে লেখেন, 'বিপিন রাওয়াতজি ও তাঁর পরিবার দেশের জন্য যা করেছেন , তার প্রতি আমরা শ্রদ্ধা জানাই। উত্তরাখণ্ডকে নিয়ে তাঁদের যে দৃষ্টিভঙ্গি তা বাস্তবায়িত করতে আমি সব সময়ই কাজ করব।' উল্লেখ্য, উত্তরাখণ্ডের পাউরি গারওয়ালের বাসিন্দা রাওয়াত পরিবার।

এদিকে, স্বনামধন্য রাওয়াত পরিবারের থেকে কর্নেল বিজয় রাওয়াত বিজেপিতে যোগ উত্তরাখণ্ডের রাজনীতিতে বড় ইস্যু হতে চলেছে। এই ঘটনা যে গেরুয়া শিবিরকে উত্তরাখণ্ড নির্বাচনের আগে বাড়তি মাইলেজ দেবে, তা বলাই বাহুল্য। উল্লেখ্য, যেখানে উত্তরাখণ্ড কংগ্রেস বারবার বিজেপির অন্দরের ফাটলের দিকে নিশানা করে হরিশ রাওয়াতের মতো ব্যক্তিত্বদের প্রচারের মুখ হিসাবে তুলে ধরছে, সেখানে বিজেপি দলে তাবড় চমক আনতে মরিয়া। এই লড়াইয়ের শেষ হাসি কে হাসবে, তা জানান দেবে ১০ মার্চ ভোট গণনার ফলাফল।

বন্ধ করুন