নিজের সারাজীবনের সঞ্চয় করা ১০ লাখ টাকা প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দান করলেন উত্তরাখণ্ডের চামোলির বাসিন্দাদেবকী ভাণ্ডারী। ছবি টুইটার থেকে সংগৃহীত।
নিজের সারাজীবনের সঞ্চয় করা ১০ লাখ টাকা প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দান করলেন উত্তরাখণ্ডের চামোলির বাসিন্দাদেবকী ভাণ্ডারী। ছবি টুইটার থেকে সংগৃহীত।

Covid-19 এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ১০ লাখ দান বৃদ্ধার

সারাজীবনের সঞ্চয় করা ১০ লাখ টাকা প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দান করলেন উত্তরাখণ্ডের চামোলির বাসিন্দা ৬০ বছরের সমাজকর্মী।

করোনা আক্রান্ত পীড়িতদের সাহায্যে নিজের সারাজীবনের সঞ্চয় করা ১০ লাখ টাকা প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দান করলেন উত্তরাখণ্ডের চামোলির বাসিন্দা ৬০ বছরের মহিলা।

চামোলির গৌচরের অধিবাসী সমাজকর্মী দেবকী ভাণ্ডারী সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ‘পেনশন ও ফিক্সড ডিপোজিট বাবদ ব্যাঙ্কে ১০ লাখ টাকা জমিয়েছিলাম। ছোট ভাড়া করা ফ্ল্যাটে থাকি, তার উপর বেশি খরচও আমার করতে হয় না। বরং এই অর্থ মহামারী পরিস্থিতির বিরুদ্ধে লড়াইতে কাজে লাগলে ভালো হবে।’

উত্তরাখণ্ডের বাসিন্দার এই মানবিক পদক্ষেপের প্রশমসা করে টুইট করেছেন রাষ্ট্রপতি রাম নাথ কোবিন্দ। তিনি দেবকী ভাণ্ডারীকে একজন 'খাঁটি রাষ্ট্র নির্মাতা' শিরোপা দিয়ে তাঁর সিদ্ধান্তের অকুণ্ঠ প্রশংসা করেছেন।

দেবকীর এই পদক্ষেপের প্রশংসা করে উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী ত্রিবেন্দ্র সিং রাওয়াত জানিয়েছেন, তাঁর দেওয়া ১০ লাখ টাকা পীড়িতদের সেবায় কাজে লাগানো হবে।

তিনি বলেন, ‘আমাদের ভারতে এতদিন মহান রাজা ও তাঁদের দানের কথা পড়ে এসেছি। কিন্তু আজ তা বাস্তবে দেখতে পেলাম। এেকা থেকেও শ্রমীতী ভাণাডারী তাঁর সর্বস্ব দেশের হিতে দান করলেন। কারণ তিনি দেশকে নিজের পরিবার হিসেবে ভাবেন। আমাদের সামনে তিনি এক মহান দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।’

এ পর্যন্ত উত্তরাখণ্ডে করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়েছেন ৩৫ জন। তাঁদের মধ্যে ২৬ জন দিল্লির নিজামুদ্দিনে তবলিঘি জামাত আয়োজিত সমাবেশে যোগ দিয়েছিলেন। রাজ্যে এ পর্যন্ত ৫ জন চিকিৎসার পরে সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

বন্ধ করুন