বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ওড়িশায় জন্ম বিশ্বের 'প্রথম' লেজযুক্ত শিশুর, বাদ দেওয়া হল অপারেশন করে
ছবিটি প্রতীকী। সৌজন্যে এএনআই (ANI)
ছবিটি প্রতীকী। সৌজন্যে এএনআই (ANI)

ওড়িশায় জন্ম বিশ্বের 'প্রথম' লেজযুক্ত শিশুর, বাদ দেওয়া হল অপারেশন করে

শিশুর শিরদাঁড়ার মধ্যবর্তী অংশ দিয়ে বের হয়েছে লেজ।

ভুবনেশ্বরের ইনস্টিটিউট অফ মেডিকেল সায়েন্সেস এবং এসইউএম হাসপাতালের নিউরোসার্জেনরা একটি মানব লেজের সঙ্গে একটি শিশুর সন্ধান পেয়েছেন, যা বক্ষ অঞ্চলের প্রথম অস্থি লেজ যা বিশ্বে রিপোর্ট করা হয়েছে।

শিশুর শিরদাঁড়ার মধ্যবর্তী অংশ দিয়ে বের হয়েছে লেজ। কুকর, বেড়াল, বাঁদরের মতোই রীতিমতো হাড়যুক্ত। এমন ঘটনা বিরলতম বললেও কম বলা হয়, বলছেন চিকিত্সকরা।পুরীর কাকাতপুর এলাকায় এক নবজাতক শিশুর পিঠে হাড়যুক্ত লেজ পাওয়া যায়। গত নভেম্বরে শিশুটির জন্ম হয়। প্রথমে এটি একটি বিরল রোগ বলে সন্দেহ হয়েছিল। শিশুটির বাবা-মা দুশ্চিন্তায় পড়ে যান। তাঁরা শিশুর চিকিৎসার জন্য ভুবনেশ্বরের SUM হাসপাতালে নিয়ে আসেন।

চিকিৎসকরা শিশুটির মেরুদণ্ডে লেজের মতো অংশ দেখতে পান। নিউরোসার্জেন ডঃ রমা চন্দ্র দেও বলেন, নবজাতক শিশুটির পিঠের উপরের অংশে একটি লেজ সহ মেরুদণ্ডের কর্ড এবং কোকিজিয়াল এলাকায় একটি ডার্মাল সাইনাস পিট ছিল।

'এখনও পর্যন্ত বিশ্বে হাড়যুক্ত লেজের ২৬টি কেস রিপোর্ট করা হয়েছে। তবে এটি পিঠের এই অংশ থেকে মানুষের অস্থি-সহ লেজের ঘটনা এই প্রথম। এর আগে কোকিজিয়াল অঞ্চলে মেরুদণ্ডের নিচের প্রান্তে লেজ দেখা গিয়েছে,' বলেন তিনি।

মানুষ লেজ নিয়ে জন্মায় না কারণ ভ্রূণের বিকাশের সময়ই কাঠামোটি অদৃশ্য হয়ে যায় বা শরীরে শোষিত হয়ে যায়। সেটি ভেস্টিজিয়াল লেজের হাড় বা কোকিক্স গঠন করে। মানুষের লেজ হওয়া একটি বিরল জন্মগত অবস্থা। আধুনিক চিকিত্সাশাস্ত্রে ১৮৮০ সাল থেকে মানুষের হাড়সহ লেজের উপস্থিতি রিপোর্ট করা হয়েছে। মোট ১৯৫টি এমন ঘটনা নথিভুক্ত আছে। তার মধ্যে ২৬টি প্রকৃত হাড়ের লেজ ছিল।নামজাদা নিউরোসার্জন অশোক কুমার মহাপাত্রের নেতৃত্বে নিউরোসার্জনের একটি দল অস্ত্রোপচার করে লেজটি অপসারণ করেন। অস্ত্রোপচারের সময় শিশুটির বয়স ছিল ১৪ দিন।

সফলভাবে একটানা তিনটি অস্ত্রোপচার হয়েছে। বর্তমানে সে সম্পূর্ণ সুস্থ রয়েছে। এটি একটি বিরল ঘটনা, জানান প্রফেসর মহাপাত্র।

বন্ধ করুন