কেমনভাবে পালন করবেন মহাশিবরাত্রির ব্রত, জেনে নিন এই দিনের সব আচার-রীতি

  • শুক্রবার তিথি মেনে মহাশিবরাত্রি পালন করতে চলেছেন হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা। নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সকলেই এই ব্রত পালন করে থাকেন। ভক্তদের বিশ্বাস, এই পূণ্যতিথিতে নিময়নীতি মেনে ব্রত পালন করলে সমস্ত পাপ থেকে নিষ্কৃতি মেলে। সংসারে শান্তি ফেরে এবং মোক্ষ লাভ হয়।
প্রতি বছরই দেশজুড়ে হিন্দু ধর্মাবলম্বী মানুষরা ধুমধাম করে পালন করেন শিবরাত্রি। পঞ্জিকা মতে এই বছর ২১ ফেব্রুয়ারি অর্থাত্ শুক্রবার মহাশিবরাত্রির তিথি নির্দিষ্ট হয়েছে। এদিন সারা রাত জুড়ে মহাদেবের আরাধনায় ব্রতী হবেন শিবভক্তরা। পুরাণে কথিত আছে এই দিনই শিব-পার্বতীর বিয়ে হয়েছিল। নির্দিষ্ট কিছু আচার-রীতি মেনেই এই বিশেষ দিনে মহাদেব-পার্বতীর পুজো করতে হয়। চলুন জেনে নেওয়া যাক, কীভাবে মহা শিবরাত্রির ব্রত পালন করবেন- (ছবি সৌজন্যে-ইন্সটাগ্রাম)
1/9প্রতি বছরই দেশজুড়ে হিন্দু ধর্মাবলম্বী মানুষরা ধুমধাম করে পালন করেন শিবরাত্রি। পঞ্জিকা মতে এই বছর ২১ ফেব্রুয়ারি অর্থাত্ শুক্রবার মহাশিবরাত্রির তিথি নির্দিষ্ট হয়েছে। এদিন সারা রাত জুড়ে মহাদেবের আরাধনায় ব্রতী হবেন শিবভক্তরা। পুরাণে কথিত আছে এই দিনই শিব-পার্বতীর বিয়ে হয়েছিল। নির্দিষ্ট কিছু আচার-রীতি মেনেই এই বিশেষ দিনে মহাদেব-পার্বতীর পুজো করতে হয়। চলুন জেনে নেওয়া যাক, কীভাবে মহা শিবরাত্রির ব্রত পালন করবেন- (ছবি সৌজন্যে-ইন্সটাগ্রাম)
শিবরাত্রি পালনের দিন ভোরবেলায় ঘুম থেকে উঠতে হয়। কথিত আছে তিল মেশানো জলে স্মান সেরে শরীর ও আত্মা বিশুদ্ধ করে মহাশিবরাত্রির ব্রত পালন শুরু করতে হয়। সম্ভব হলে গঙ্গায় স্মান সারা উচিত।(ছবি-এপি)
2/9শিবরাত্রি পালনের দিন ভোরবেলায় ঘুম থেকে উঠতে হয়। কথিত আছে তিল মেশানো জলে স্মান সেরে শরীর ও আত্মা বিশুদ্ধ করে মহাশিবরাত্রির ব্রত পালন শুরু করতে হয়। সম্ভব হলে গঙ্গায় স্মান সারা উচিত।(ছবি-এপি)
স্মানের সময় শপথ নিতে হয় সারাদিন উপবাস করে থাকার এবং পুজো সম্পন্ন হলে তবেই ব্রত ভাঙার। এদিন মহাদেবের কাছে নিজের প্রিয়জনদের সুস্বাস্থ্য ও মঙ্গল কামানা করা হয় (ছবি-রয়টার্স)
3/9স্মানের সময় শপথ নিতে হয় সারাদিন উপবাস করে থাকার এবং পুজো সম্পন্ন হলে তবেই ব্রত ভাঙার। এদিন মহাদেবের কাছে নিজের প্রিয়জনদের সুস্বাস্থ্য ও মঙ্গল কামানা করা হয় (ছবি-রয়টার্স)
মহাশিবরাত্রির ব্রত পালন সহজ নয়। ব্রত পালনকারীকে উপবাসের সময় কোনও রকম খাবার খাওয়া থেকে বিরত থাকা উচিত। বিশেষ বিশেষ ক্ষেত্রে ফল খাওয়া ও দুধ পান করা যায়। তবে এই পুজোর কঠোর নিময় মেনে পালন করলে নির্জলা উপবাস রাখতে হয় সারাদিন (ছবি-সংগৃহীত)
4/9মহাশিবরাত্রির ব্রত পালন সহজ নয়। ব্রত পালনকারীকে উপবাসের সময় কোনও রকম খাবার খাওয়া থেকে বিরত থাকা উচিত। বিশেষ বিশেষ ক্ষেত্রে ফল খাওয়া ও দুধ পান করা যায়। তবে এই পুজোর কঠোর নিময় মেনে পালন করলে নির্জলা উপবাস রাখতে হয় সারাদিন (ছবি-সংগৃহীত)
সন্ধ্যায় মন্দিরে শিবলিঙ্গে অভিষেক করতে যাওয়ার পূর্বে আবারও স্মান সেরে, শুদ্ধ বসন পরিধান করা প্রয়োজন। বর্তমানে অনেকেই ব্যস্ততার জন্য বা অন্য কোনও কারণে মন্দিরে যাওয়া সম্ভবকর না হলে কেউ বাড়িতেও শিবরাত্রির ব্রত সম্পন্ন করতে পারেন। সেক্ষেত্রে মাটি দিয়ে শিবলিঙ্গ তৈরি করে তাতে ঘি মাখিয়ে নিতে হবে (ছবি-হিন্দুস্তান টাইমস)
5/9সন্ধ্যায় মন্দিরে শিবলিঙ্গে অভিষেক করতে যাওয়ার পূর্বে আবারও স্মান সেরে, শুদ্ধ বসন পরিধান করা প্রয়োজন। বর্তমানে অনেকেই ব্যস্ততার জন্য বা অন্য কোনও কারণে মন্দিরে যাওয়া সম্ভবকর না হলে কেউ বাড়িতেও শিবরাত্রির ব্রত সম্পন্ন করতে পারেন। সেক্ষেত্রে মাটি দিয়ে শিবলিঙ্গ তৈরি করে তাতে ঘি মাখিয়ে নিতে হবে (ছবি-হিন্দুস্তান টাইমস)
পুরাণ মতে মহাশিবরাত্রিতে চার প্রহর ধরে মহাদেবের পুজো হয়। প্রথম প্রহরে জল দিয়ে, দ্বিতীয় প্রহরে দই দিয়ে, তৃতীয় প্রহরে ঘি এবং শেষ প্রহরে মধু দিয়ে শিবলিঙ্গের অভিষেক করতে হয়। মহাদেবের পুজোয় অত্যাবশ্যক হল অপরাজিতা, ধুতরো, আকন্দ ফুল এবং বেল পাতা, গোলাপ জল এবং চন্দন অবশ্যই ব্যবহার করা উচিত (ছবি-হিন্দুস্তান টাইমস)
6/9পুরাণ মতে মহাশিবরাত্রিতে চার প্রহর ধরে মহাদেবের পুজো হয়। প্রথম প্রহরে জল দিয়ে, দ্বিতীয় প্রহরে দই দিয়ে, তৃতীয় প্রহরে ঘি এবং শেষ প্রহরে মধু দিয়ে শিবলিঙ্গের অভিষেক করতে হয়। মহাদেবের পুজোয় অত্যাবশ্যক হল অপরাজিতা, ধুতরো, আকন্দ ফুল এবং বেল পাতা, গোলাপ জল এবং চন্দন অবশ্যই ব্যবহার করা উচিত (ছবি-হিন্দুস্তান টাইমস)
অভিষেকের বিধি সম্পন্ন হলে শিবলিঙ্গে বেলপাতার মালা পরাতে হয়, বেলা পাতা শিবরাত্রির অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ কারণ পুরাণে কথিত রয়েছে একমাত্র বেল পাতা দিয়েই মহাদেবকে শান্ত করা সম্ভব (ছবি-হিন্দুস্তান টাইমস)
7/9অভিষেকের বিধি সম্পন্ন হলে শিবলিঙ্গে বেলপাতার মালা পরাতে হয়, বেলা পাতা শিবরাত্রির অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ কারণ পুরাণে কথিত রয়েছে একমাত্র বেল পাতা দিয়েই মহাদেবকে শান্ত করা সম্ভব (ছবি-হিন্দুস্তান টাইমস)
বেলপাতার মালা পরানোর পর শিবলিঙ্গে কুমকুম এবং চন্দন মাখিয়ে দিতে হয় এবং ধূপ জ্বালাতে হয়। এরপর আকন্দ ফুল, বিভূতি দিয়ে মহাদেবকে তুষ্ট করা হয় (ছবি-হিন্দুস্তান টাইমস)
8/9বেলপাতার মালা পরানোর পর শিবলিঙ্গে কুমকুম এবং চন্দন মাখিয়ে দিতে হয় এবং ধূপ জ্বালাতে হয়। এরপর আকন্দ ফুল, বিভূতি দিয়ে মহাদেবকে তুষ্ট করা হয় (ছবি-হিন্দুস্তান টাইমস)
মহাশিবরাত্রির ব্রত পালন করার আগের দিনে একবার খাবার খাওয়া উচিত। যাতে উপবাস চলাকালীন আমাদের শরীরে হজমের কোনও সমস্যা না দেখা দেয় এবং আমাদের শরীর সেই পরিস্থিতির সঙ্গে সহজে মানিয়ে নিতে পারে (ছবি সৌজন্যে-হিন্দুস্তান টাইমস)
9/9মহাশিবরাত্রির ব্রত পালন করার আগের দিনে একবার খাবার খাওয়া উচিত। যাতে উপবাস চলাকালীন আমাদের শরীরে হজমের কোনও সমস্যা না দেখা দেয় এবং আমাদের শরীর সেই পরিস্থিতির সঙ্গে সহজে মানিয়ে নিতে পারে (ছবি সৌজন্যে-হিন্দুস্তান টাইমস)
অন্য গ্যালারিগুলি