বাংলা নিউজ > ময়দান > বিসিসিআইয়ের কমিটির নিদান, ক্ষতিপূরণ হিসেবে দেওয়া হোক ৫০% রঞ্জি ট্রফির ম্যাচ ফি
বিসিসিআই-এর লোগো
বিসিসিআই-এর লোগো

বিসিসিআইয়ের কমিটির নিদান, ক্ষতিপূরণ হিসেবে দেওয়া হোক ৫০% রঞ্জি ট্রফির ম্যাচ ফি

  • যেসব ক্রিকেটাররা তাদের জীবিকা নির্বাহ করেন ঘরোয়া ক্রিকেটের উপর নির্ভর করে, তাদের বেশ সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়েছিল। মূলত তাদের কথা মাথায় রেখেই, বিসিসিআইয়ের কমিটি তাদের অ্যাপেক্স কাউন্সিলের কাছে শেষ মরশুমে রঞ্জির মোট ম্যাচ ফি'র ৫০% ক্রিকেটারদের প্রদান করার নিদান দিল।

শুভব্রত মুখার্জি: করোনার কারণে শেষ মরশুমে দীর্ঘ কয়েক দশকে প্রথমবার আয়োজন করা সম্ভব হয়নি রঞ্জি ট্রফি। ফলে ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে যেসব ক্রিকেটাররা তাদের জীবিকা নির্বাহ করেন ঘরোয়া ক্রিকেটের উপর নির্ভর করে, তাদের বেশ সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়েছিল। মূলত তাদের কথা মাথায় রেখেই বিসিসিআইয়ের কমিটি তাদের অ্যাপেক্স কাউন্সিলের কাছে শেষ মরশুমে রঞ্জির মোট ম্যাচ ফি'র ৫০% ক্রিকেটারদের প্রদান করার নিদান দিল।

বিসিসিআইয়ের ওয়ার্কিং গ্রুপের এই প্রস্তাব আপাতত বিসিসিআইয়ের অ্যাপেক্স কাউন্সিলের কাছে বিশেষত সৌরভ গঙ্গোপাধ্যা, জয় শাহদের বিবেচনাধীন। ক্রিকেট কমিটি এছাড়া ও একাধিক প্রস্তাব দিয়েছে অ্যাপেক্স কাউন্সিলের কাছে। ক্রিকেট কমিটির সদস্যদের মধ্যে রয়েছেন প্রাক্তন ক্রিকেটার মহম্মদ আজহারউদ্দিন, অভিষেক ডালমিয়া, যুধাবির সিং, সন্তোষ মেনন, রোহন জেটলি, জয়দেব শাহ এবং দেবজিৎ সাইকিয়া।

বিসিসিআইয়ের সূত্রে বলা হয়েছে গত মরসুমের মোট ম্যাচ ফি'র ৫০% দেওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। একটি বিষয়ে মতভেদ ছিল ২০১৯-২০ মরসুমে যেসব ক্রিকেটার অন্ততপক্ষে একটি ম‌্যাচ খেলেছেন তাদেরকে দেওয়া হবে নাকি যারা অন্ততপক্ষে দুটি মরসুমে খেলেছেন তাদের কথা ভাবা হবে তা নিয়ে। এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে অ্যাপেক্স কাউন্সিল। কারণ মোট খরচের বিষয়টি তাদের এক্তিয়ারভুক্ত। বর্তমানে দাড়িয়ে একজন রঞ্জি ক্রিকেটার প্রতিদিন ৩৫ হাজার টাকা এবং একটি ম্যাচে ১.৪ লাখ টাকা পান। অর্থাৎ প্রস্তাব মানা হলে এক একজন অন্ততপক্ষে ৭০০০০ টাকা ম্যাচ প্রতি পাবেন। অ্যাপেক্স কাউন্সিলের পরবর্তী মিটিংয়ে রঞ্জি ক্রিকেটারদের ম্যাচ ফি বৃদ্ধির বিষয়টি নিয়েও আলোচনা করা হবে।

বন্ধ করুন