বাংলা নিউজ > ময়দান > তরুণদের সুযোগ দিতে টেস্ট থেকে অবসর, বললেন ৩২ বছরের রুবেল হাসান
রুবেল হোসেন।

তরুণদের সুযোগ দিতে টেস্ট থেকে অবসর, বললেন ৩২ বছরের রুবেল হাসান

  • নিজের ফেসবুক পেজে একটি পোস্টের মাধ্যমে রুবেল তাঁর টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসরের কথা ঘোষণা করেন। বাংলাদেশের হয়ে ২৭টি টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন রুবেল। যা তাঁর ক্যারিয়ারের অন্যতম প্রাপ্তি বলে তিনি মনে করেন। রুবেল জানিয়েছেন, তরুণরা যদি বেশি করে খেলার সুযোগ পান, সে ক্ষেত্রে দেশের পাইপলাইন আরও মজবুত হবে।

টেস্ট ক্রিকেটকে বিদায় জানালেন বাংলাদেশের পেসার রুবেল হোসেন। অবসর নেওয়ার পর তিনি জানিয়েছেন, লাল বলে তরুণদের সুযোগ দিতেই ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় ফর্ম্যাটকে বিদায় জানানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। কয়েক দিন ধরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় রুবেলের টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়ে নানা জল্পনা চলছিল। সেই জল্পনাই সত্যি হল। সোমবার নিজের অবসরের সিদ্ধান্তের কথা রুবেল নিজেই জানালেন। টেস্ট থেকে অবসর নিলেও তিনি টি-টোয়েন্টি এবং ওয়ানডে ক্রিকেট চালিয়ে যাবেন।

আরও পড়ুন: কোহলিকে নিয়ে লোকে প্রশ্ন কী ভাবে করে! ফুঁসছেন অজি অধিনায়ক ফিঞ্চ

দীর্ঘদিন ধরেই জাতীয় দলের বাইরে তিনি। তাঁকে প্রায় ভুলতে বসেছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট। এই পরিস্থিতিতে ক্রিকেটকে বিদায় জানানো ছাড়া উপায় ছিল না তাঁর কাছে। যদিও তাঁর বিদায় বার্তায় তিনি কাউকে দোষ দেননি। কারণ হিসেবে তরুণদের সুযোগ দেওয়ার যুক্তি দিয়েছেন।

নিজের ফেসবুক পেজে একটি পোস্টের মাধ্যমে রুবেল তাঁর টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসরের কথা ঘোষণা করেন। বাংলাদেশের হয়ে ২৭টি টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন রুবেল। যা তাঁর ক্যারিয়ারের অন্যতম প্রাপ্তি বলে তিনি মনে করেন। রুবেল জানিয়েছেন, তরুণরা যদি বেশি করে খেলার সুযোগ পান, সে ক্ষেত্রে দেশের পাইপলাইন আরও মজবুত হবে।

আরও পড়ুন: অজিদের হারানোর প্রস্তুতি শুরু, নেটে দীর্ঘ কসরত রোহিত, কোহলিদের

প্রসঙ্গত, ২০২০ সালে তিনি শেষবার টেস্ট ক্রিকেটে জাতীয় দলের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন। এরপর আর তাঁর ডাক পড়েনি। যদিও টি-টোয়েন্টি তিনি খেলেছেন। সীমিত ওভারের ক্রিকেটে নিয়মিত মুখ হলেও ২০১৪ সালের পর টেস্টে আর নিয়মিত সুযোগ পাননি তিনি। গত প্রায় ৮ বছরে তিনি জাতীয় দলের হয়ে টেস্ট খেলেছেন মাত্র ৫টি। তাতে উইকেট মোটে ৪টি। অর্থাৎ ১০টা ইনিংসে ৪টি উইকেট। এর মধ্যে ৩টিই আবার পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ২০২০ সালে।

ফেসবুকে রুবেল লিখেছেন, ‘বিসিবিতে অফিশিয়ালি চিঠি দিয়ে টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসরের সিদ্ধান্ত নিলাম। জাতীয় দলের পাইপলাইন শক্তিশালী করার ক্ষেত্রে টেস্ট ক্রিকেট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এই টুর্নামেন্টগুলোতে তরুণরা যত বেশি সুযোগ পাবে, পাইপলাইন তত মজবুত হবে।’

তিনি আরও যোগ করেছেন, ‘সেই কথা ভেবেই তরুণ ক্রিকেটারদেরকে সুযোগ করে দেওয়ার জন্য আমি লাল বলের ক্রিকেট থেকে অবসরের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। বাংলাদেশের হয়ে ২৭টি টেস্ট ম্যাচ খেলার সৌভাগ্য হয়েছে আমার। এটা আমার ক্যারিয়ারের অন্যতম প্রাপ্তি। লাল বলের ক্রিকেটে আন্তর্জাতিক এবং ঘরোয়া ক্ষেত্রে এই পথ চলায় আমাকে যাঁরা সহযোগিতা করেছেন, তাঁদের প্রতি কৃতজ্ঞ।’

এখানেই থামেননি রুবেল। তিনি এখনও টি-টোয়েন্টি এবং ওয়ানডে চালিয়ে যাবেন। আর তাই এখনও সকলকে তাঁর পাশে থাকার অনুরোধ জানিয়েছেন। রুবেল বলেছেন, ‘আশা করি, সামনের দিনগুলোতেও আপনাদের পাশে পাবো। ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে জাতীয় দলকে আমার আরও কিছু দেওয়ার সামর্থ্য আছে। তাই ডিপিএল, বিপিএলসহ অন্যান্য সাদা বলের টুর্নামেন্টে নিয়মিত খেলা চালিয়ে যেতে চাই। সাদা বলের খেলায় আপনাদের যেন রঙিন স্বপ্ন উপহার দিতে পারি, সেই প্রার্থনা করবেন।’

বন্ধ করুন