বাংলা নিউজ > ময়দান > নেটে এত জোরে বাউন্সার কেন! তরুণ শ্রীনাথের উপর রেগে লাল হয়েছিলেন বেঙ্গসকর

নেটে এত জোরে বাউন্সার কেন! তরুণ শ্রীনাথের উপর রেগে লাল হয়েছিলেন বেঙ্গসকর

তরুণ শ্রীনাথের উপর রেগে লাল হয়েছিলেন বেঙ্গসকর

ভারতীয় দলে তখন একবাক্যে দ্রুততম বোলার ছিলেন শ্রীনাথ। শ্রীনাথ এবং বেঙ্গসরকারের সেই অজানা রোমাঞ্চকর কাহিনি এদিন জনসমক্ষে তুলে ধরেছেন সুব্রত ব্যানার্জি।

শুভব্রত মুখার্জি: বর্তমানে ভারতীয় সিনিয়র ক্রিকেট দলে একাধিক দ্রুতগতির পেসারকে একসঙ্গে খেলতে দেখা যায়। তবে ৯০'র দশকে চিত্রটা ছিল ভিন্ন। তখন ভারতীয় দলে দ্রুতগতির পেসার বলতে ছিলেন একমাত্র জাভাগল শ্রীনাথ। যিনি এই মুহূর্তে আইসিসির একজন স্বীকৃত ম্যাচ রেফারি হিসেবে কাজ করছেন। উল্লেখ্য শ্রীনাথের গতিতে অসুবিধাতে পড়তে হয়েছিল পৃথিবীর তাবড় তাবড় ব্যাটারদের‌। সদ্য তরুণ পেসার হিসেবে যখন শ্রীনাথ উঠে আসছেন সেই সময়ের এক অজানা কাহিনি শোনালেন আরেক প্রাক্তন ভারতীয় পেসার সুব্রত ব্যানার্জি। নেটে এমন দ্রুতগতির বাউন্সার শ্রীনাথ সেদিন করেছিলেন দিলীপ বেঙ্গসরকারের মতো ব্যাটারকে যে তার ব্যাটের হ্যান্ডেলে বল লেগে হাত থেকে ছিটকে গিয়েছিল ব্যাট।

আরও পড়ুন: 'একাই ম্যাচ ঘুরিয়ে দিতে পারবে', ভারতীয় পেসারের প্রশংসায় পঞ্চমুখ কার্তিক

আর ঘটনায় নাকি রেগে অগ্নিশর্মা হয়ে গিয়েছিলেন বেঙ্গসরকার। শ্রীনাথকে নেটে আর বাউন্সার করতেই নাকি নিষেধ করে দেন তিনি। সেদিন ওই নবীন পেসারের দ্রুতগতিতে মুগ্ধ হয়েছিলেষ সুব্রত ব্যানার্জি। ভারতীয় দলে তখন একবাক্যে দ্রুততম বোলার ছিলেন শ্রীনাথ। শ্রীনাথ এবং বেঙ্গসরকারের সেই অজানা রোমাঞ্চকর কাহিনি এদিন জনসমক্ষে তুলে ধরেছেন সুব্রত ব্যানার্জি।

এপিক চ্যানেলের ইউটিউব শো 'মিড উইকেট টেলস উইথ নাসিরুদ্দিন শাহ' নামক অনুষ্ঠানে সুব্রত ব্যানার্জি বলেন সেই সময় শ্রীনাথ ছিলেন মাউসোর থেকে উঠে আসা এক নবীন প্রতিভা। ১৯৯০ সালের ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে তাদের দেশের মাটিতে টেস্ট সিরিজ খেলার জন্য প্রস্তুত হচ্ছিল ভারতীয় দল। বিষেন সিং বেদি নেটে শ্রীনাথকে বল করতে বলেন।

সুব্রত ব্যানার্জি জানান বিষেন সিং বেদি, শ্রীনাথকে প্রশ্ন করেন যে তিনি বল করবেন কিনা। তিনি বলেন 'বেদি, শ্রীনাথকে বল ছুড়ে দিয়ে বলেন তুমি কি বল করবে? জবাবে শ্রীনাথ বলে নিশ্চয় স্যার। আমি ভারতে প্রথমবার কাউকে অত জোরে বল করতে দেখেছিলাম। প্রথম বলেই একটা ভয়ঙ্কর বাউন্সার শ্রীনাথ করে। বলটা সোজা এসে বেঙ্গসরকারের ব্যাটের হ্যান্ডেলে লাগে। ব্যাটটা তার হাত থেকে সোজা উড়ে যায়। প্রচণ্ড রেগে যান বেঙ্গসরকার। কারণ ওটা নেটে একটা প্র্যাকটিস সেশন ছিল। সেখানে ও (শ্রীনাথ) বাউন্সার দিয়ে শুরু করে। বেঙ্গসরকার প্রথম বলেই বাউন্সার খেলতে প্রস্তুত ছিলেন না। ওকে বেঙ্গসরকার আর বাউন্সার করতে বারণ করেন। পরের বলেই শ্রীনাথ সোজা একটা ইয়র্কার বল করে গতিতে। বলটা সোজা গিয়ে সজোরে বেঙ্গসরকারের আঙুলের ডগায় আঘাত করে। 'সেই ইংল্যান্ড সফরে শ্রীনাথের খেলা না হলেও পরের বছরেই শারজাহতে শ্রীনাথের অভিষেক হয় ভারতীয় জার্সিতে।

বন্ধ করুন