শনিবার গুয়াহাটিতে সাংবাদিক বৈঠকে বিরাট কোহলি (ছবি এএনআই)
শনিবার গুয়াহাটিতে সাংবাদিক বৈঠকে বিরাট কোহলি (ছবি এএনআই)

সিএএ ইস্যুতে অবশেষে মুখ খুললেন বিরাট কোহলি

  • শনিবার সিএএ নিয়ে প্রতিক্রিয়া দিলেন ভারতীয় ক্রিকেট অধিনায়ক বিরাট কোহলি। কোহলি জানালেন সিএএ সম্পর্কে তিনি সম্পূর্ন অবগত নন, তাই পুরো বিষয়টি না জেনে কোনওরকম মন্তব্য করা অনুচিত।
  • রবিবার অসমে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলবে ভারত। কোহলি জানান, অসম সম্পূর্ন সুরক্ষিত।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসি নিয়ে গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই উত্তাল দেশ। সিএএ ইস্যুতে এতদিন মুখ খোলেননি কোনও ভারতীয় ক্রিকেটার। অবশেষে শনিবার সিএএ নিয়ে প্রতিক্রিয়া দিলেন ভারতীয় ক্রিকেট অধিনায়ক বিরাট কোহলি। কোহলি জানালেন সিএএ সম্পর্কে তিনি সম্পূর্ন অবগত নন, তাই পুরো বিষয়টি না জেনে কোনওরকম মন্তব্য করা অনুচিত।

রবিবার অসমের বর্ষাপাড়ার এসিএ স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলতে নামছে টিম ইন্ডিয়া।

সিএএ বিরোধী আন্দোলনে এখনও উত্তাল অসম। দিন কয়েক আগে পর্যন্ত রাজ্য জুড়ে চলেছে কার্ফু, বন্ধ ছিল ইন্টারনেট পরিষেবা। রাজ্যে সিএএ বিরোধী আন্দোলনের বলি ৬।

১৪ মিনিট দীর্ঘ সাংবাদিক বৈঠকে শেষ প্রশ্ন হিসাবে কোহলির কাছে সিএএ সম্পর্কে তাঁর মতামত জানতে চাওয়া হয়। কোহলি জানান, ‘আমার মনে হয় এই শহর একদম সুরক্ষিত এবং আমরা কোনও সমস্যা দেখিনি রাস্তায়। আর এই ইস্যু নিয়ে আমি কোনও দায়িত্বজ্ঞানহীনের মতো মন্তব্য করতে চাই না। আমি বিষয়টি নিয়ে সম্পূর্নরূপে অবগত নই। এই ব্যাপার সম্পর্কে পুরোটা না জেনে কোনও মতামত দেওয়া অনুচিত। তুমি কিছু বলবে,তারপর অন্যজন কিছু বলবে। আমি যে বিষয় সম্পর্কে পুরোটা জানি না সেই নিয়ে কিছু মন্তব্য করা বোকামি’।

তিন বছর আগে, ২০১৬ সালের নভেম্বরে নোটবন্দি প্রসঙ্গে বিরাটের কাছে প্রশ্ন করা হলে কোহলি বলেছিলেন, 'আমি রাজকোটে হোটেলের বিল মেটাচ্ছিলাম বাতিল নোট দিয়ে, এরপর হঠাত্ খেয়াল পড়ে এইগুলো তো আর কোনও কাজের নয়। এগুলোতে তো লোককে স্বাক্ষর করে বিলিয়ে দিতে পারি। বাতিল নোট পুরোপুরি অকাজের'।

এরপরই হাসির রোল উঠেছিল সাংবাদিক সম্মেলনে। কোহলি হেসে যোগ করেছিলেন,'আমার মনে হয় ভারতীয় রাজনীতির ইতিহাসে সবচেয়ে সেরা ঘটনা নোটবন্দি। আমি এই ঘটনায় অত্যন্ত প্রভাবিত। যা ঘটেছে তা সত্যি অবিশ্বাস্য'।

সিএএ ইস্যুতে যখন গোটা দেশ উত্তাল সেই সময় মুখে কুলুপ এঁটেছিলেন দেশের অধিকাংশ ক্রীড়াবিদই। সিএএ বিরোধী আন্দোলনে, পুলিশের সঙ্গে খণ্ডযুদ্ধে প্রাণ হায়িছেন প্রায় ২০ জন ভারতীয়। ব্যাডমিন্টন তারকা জ্বলা গুট্টা টুইটারে ক্রীড়াবিদদের উদ্দেশে আবেদন করেছিলেন দেশে ঘটে চলা হিংসাত্মক ঘটনার প্রতিবাদ জানাতে। তাতেও বিশেষ ফল হয়নি।

অসম ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের তরফে জানানো হয়েছে রবিবার স্টেডিয়ামে কোনওরকম পোস্টার বা ব্যানার নিয়ে হাজির হতে পারবেন না দর্শকরা। এমনকি রুমাল বা স্কার্ফ নিয়েও দর্শকরা স্টেডিয়ামে উপস্থিত হতে পারবেন না। সিএএ বিরোধী কোনওরকম প্রচার যাতে ক্রিকেট মাঠে না করা হয় সেই কারণেই এমন নির্দেশ মনে করা হচ্ছে। যদিও গুয়াহাটির পুলিশ কমিশনার এমপি গুপ্তা জানিয়েছেন, 'আন্তর্জাতিক ম্যাচে নিরাপত্তার কারণেই এই সিদ্ধান্ত'।

বন্ধ করুন