বাংলা নিউজ > ময়দান > সৌরভের বিরুদ্ধে কী কী অভিযোগ? বোর্ডের নিয়ম কী? আইনজীবীর মতামত ও BCCI কী ভাবছে?
সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। ছবি- গেটি ইমেজেস।
সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। ছবি- গেটি ইমেজেস।

সৌরভের বিরুদ্ধে কী কী অভিযোগ? বোর্ডের নিয়ম কী? আইনজীবীর মতামত ও BCCI কী ভাবছে?

  • বোর্ড সভাপতিকে নিয়ে স্পনসরদের মতামতও সামনে এল। 

বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে স্বার্থের সংঘাতের অভিযোগ উঠলেও সেই অভিযোগ আদৌ ধোপে টিকবে কিনা সন্দেহ। বার্ষিক সাধারণ সভায় বেশ কয়েকজন রাজ্য সংস্থার কর্তা সৌরভের কাছে জানতে চাইতে পারেন যে, সভাপতির পদে থাকা সত্ত্বেও তিনি কীভাবে বিসিসিআইয়ের স্পনসরদের বিরোধী সংস্থার হয়ে বিজ্ঞাপন করতে পারেন। যদিও এমন প্রশ্ন উত্থাপিত হলেও সৌরভের কাছে যথাযথ জবাব তৈরি বলেই মনে করছে তাঁর ঘনিষ্ঠমহল।

সৌরভের বিরুদ্ধে মূলত কী কী অভিযোগ:

১. বিসিসিআই সভাপতি হিসেবে সৌরভ এমন কিছু সংস্থার সঙ্গে বাণিজ্যিকভাবে যুক্ত, যেগুলি বোর্ডের একাধিক স্পনসরের বিরোধী সংস্থা। যেমন ড্রিম ইলেভেন আইপিএলের স্পনসর হলেও সৌরভ ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর মাই ইলেভেন সার্কলের। দু'টিই অনলাইন ফ্যান্টাসি গেমিং প্ল্যাটফর্ম। অন্যদিকে, বাইজু'স ভারতীয় দলের স্পনসর হওয়া সত্ত্বেও সৌরভ যুক্ত হয়েছেন ক্লাসপ্লাসের সঙ্গে। দু'টি সংস্থা বাণিজ্যিক দিক দিয়ে একে অপরের প্রতিদ্বন্দ্বী।

২. সৌরভ জেএসডব্লিউর ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর। সংস্থার ডিরেক্টর হিসেবে নিযুক্ত তিনি। এই জেএসডব্লিউর হাতে রয়েছে আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজি দিল্লি ক্যাপিটালসের মালিকানা।

ড্রিম ইলেভেন কী বলছে: এপ্রসঙ্গে আইপিএলের টাইটেল স্পনসর ড্রিম ইলেভেনের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা তথা সিইও হর্ষ জৈনের বক্তব্য হাতিয়ার হতে পারে সৌরভের। ড্রিম ইলেভেনের তরফে তিনি বলেন, ‘আমরা সৌরভের ব্যক্তিগত চুক্তি নিয়ে চিন্তিত নই। আমাদের এই বিষয়ে কোনও আপত্তি নেই। এটা বিসিসিআইয়ের আভ্যন্তরীণ বিষয়। সুতরাং, এই নিয়ে আমারা কোনও মন্তব্য করতে চাই না।’

জেএসডব্লিউ সূত্রে খবর: সূত্র মারফৎ পিটিআই জানতে পেরেছে যে, বিসিসিআইয়ের দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে সৌরভ ডেএসডব্লিউর বোর্ড মেম্বার নন। তাছাড়া জেএসডব্লিউর হাতে আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজির মালিকানা থাকলেও তারা স্পনসর নয়।

বিসিসিআই কর্তাদের বক্তব্য: এক সিনিয়র বিসিসিআই কর্তা স্বার্থের সংঘাত প্রসঙ্গে বলেন, ‘সৌরভ টাটা মোটরস ও বাইজু’স-এর সঙ্গে চুক্তি করতে চায়নি স্বার্থের সংঘাতের প্রসঙ্গ উত্থাপিত হতে পারে বলে। জানি না কোথা থেকে স্বার্থের সংঘাতের অভিযোগ উঠছে।'

বিশেষজ্ঞ আইনজীবীর বক্তব্য: সৌরভের স্বার্থের সংঘাত প্রসঙ্গে ক্রীড়া আইনজীবী ভি সিংঘানিয়া বলেন, 'যদি ড্রিম ইলেভেন তাঁদের চুক্তিতে এমন শর্ত রাখে যে, বোর্ডের কোনও কর্তা ব্যক্তিগতভাবে তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী কোনও সংস্থার সঙ্গে যুক্ত থাকতে পারবেন না, তাহলেই একমাত্র স্বার্থের সংঘাতের প্রসঙ্গ আসে। মনে হয় না ড্রিম ইলেভেন এমন কোনও শর্ত রেখেছে চুক্তিতে। সুতরাং, এক্ষেত্রে স্বার্থের সংঘাতের কোনও প্রশ্নই নেই।

বিসিসিআইয়ের নিয়ম: বিসিসিআইয়ের নিয়মে বলা রয়েছে যে, কোনও প্রশাসক অথবা তাঁদের নিকটাত্মীয় এমন কোনও সংস্থার সঙ্গে যুক্ত থাকতে পারবেন না, যারা বোর্ডের সঙ্গে বাণিজ্যিকভাবে যুক্ত। কোনও প্রশাসক অথবা তাঁদের নিকটাত্মীয় কোনও ক্রিকেটারের ব্যাক্তিগত ম্যানেজমেন্ট সংস্থার সঙ্গে আর্থিক বা সাম্মানিক, কেনওভাবেও যুক্ত থাকতে পারবেন না।

বন্ধ করুন