বাড়ি > ময়দান > উৎসবের মেজাজ তেতো করে ইস্টবেঙ্গলকে নোটিশ বেতন না পাওয়া ফুটবলারদের
ইস্টবেঙ্গল টেন্ট। ছবি- ফেসবুক।
ইস্টবেঙ্গল টেন্ট। ছবি- ফেসবুক।

উৎসবের মেজাজ তেতো করে ইস্টবেঙ্গলকে নোটিশ বেতন না পাওয়া ফুটবলারদের

  • চুক্তি অনুযায়ী অর্থ না মেলায় ফেডারেশকে চিঠি দিচ্ছেন ক্ষুব্ধ ফুটবলাররা।

একদিক দিয়ে সমস্যার জাল গুটিয়ে চলেছে ইস্টবেঙ্গল। অন্যদিক দিয়ে জাল বিস্তার করছে নতুন সমস্যা। 

কোয়েসের সঙ্গে আইনি প্রক্রিয়া মেনে বিচ্ছেদ সম্পন্ন হয়েছে লাল-হলুদ শিবিরের। স্পোর্টিং রাইটস হাতে এসেছে। হদিশ মিলেছে নতুন বিনিয়োগকারীর। এগুলি যদি সমস্যা কাটিয়ে পুনরায় উঠে দাঁড়ানোর লক্ষণ হয়, তবে আইএসএলে নতুন দল না নিতে চাওয়ার কথা ঘোষণা ইস্টবেঙ্গলের সামনে নতুন সমস্যা হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে নিশ্চত। তার উপর এবার পুরনো বেতন সমস্যা মাথা চাড়া দিয়ে উঠল আবার। এবার অবশ্য বল ফেডারেশনের কোর্টে যাচ্ছে নিশ্চিত।

অগস্টের প্রথম দিনেই একশো বছর পূর্ণ করছে ইস্টবেঙ্গল। এমন মাইলস্টোন পার করার ঠিক আগেই ইস্টবেঙ্গলের পুরনো স্কোয়াডের সাত জন ফুটবলার চুক্তি অনুযায়ী বেতন মিটিয়ে দেওয়ার দাবিতে নোটিশ পাঠাল ক্লাবে। সঙ্গে কার্যত হুমকিও দেওয়া হয়েছে যে, অবিলম্বে তারা ফেডারেশনের দ্বারস্থ হবেন বিষয়টি নিয়ে।

মহামারির জন্য অবশ্যিক শর্তে ইস্টবেঙ্গল মাঝপথেই দলের সমস্ত ফুটবলারের সঙ্গে চুক্তি ছিন্ন করেছে। ফুটবলারদের শেষ দু'মাসের বেতন দিতে অস্বীকার করে কোয়েস। পরে একমাসের বেতন মিটিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে খবর। তবে যাঁদের সঙ্গে ইস্টবেঙ্গলের দীর্ঘমেয়াদি চুক্তি ছিল, তাঁদের সমস্যা আরও বেশি।

অভিষেক আম্বেকর, পিন্টু মাহাতো, রক্ষিত ডাগার, কোলাদো, জনি অ্যাকোস্টা ও লালরিনডিকা রালতের সঙ্গে ট্রেনার কার্লোস নোদারের সঙ্গেও এখনও চুক্তি বাকি রয়েছে ইস্টবেঙ্গলের। কোয়েসের কাছে বকেয়া বেতন চেয়েও পাননি ফুটবলাররা। কোয়েস ক্লাবের সঙ্গে চুক্তি ছিন্ন হওয়ার কথা জানিয়ে দিয়েছে। অন্যদিকে ইস্টবেঙ্গল জানিয়ে দিয়েছে বিষয়টা দেখার কথা ছিল স্পনসরদের।

এই অবস্থায় ক্ষুব্ধ ফুটবলারদের সামনে ফেডারেশনে যাওয়া ছাড়া আর অন্য কোনও রাস্তাই খোলা নেই।

বন্ধ করুন