বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > La Liga: ডিপাইয়ের সুবাদে মরশুমের দ্বিতীয় জয় বার্সার, শেষ মুহূর্তের আত্মঘাতী গোলে মান বাঁচল অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের
গেটাফের বিরুদ্ধে ম্যাচে ডিপাই। ছবি- রয়টার্স। (REUTERS)
গেটাফের বিরুদ্ধে ম্যাচে ডিপাই। ছবি- রয়টার্স। (REUTERS)

La Liga: ডিপাইয়ের সুবাদে মরশুমের দ্বিতীয় জয় বার্সার, শেষ মুহূর্তের আত্মঘাতী গোলে মান বাঁচল অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের

  • তিন ম্যাচে পরে বার্সা ও অ্যাটলেটিকো উভয় দলেরই সংগ্রহ সাত পয়েন্ট।

লা লিগায় অব্যাহত ডিপাই ম্যাজিক। গত ম্যাচে অ্যাটলেটিক বিলবাওয়ের বিরুদ্ধে আটকে গেলেও গেটাফের বিরুদ্ধে জয়ের সরণীতে ফিরল বার্সেলোনা। টানা দ্বিতীয় ম্যাচে গোল করে দলকে বাঁচালেন ডাচ ফরোয়ার্ড মেমফিস ডিপাই। গেটাফের বিরুদ্ধে ২-১ গোলে মরশুমের দ্বিতীয় জয় বার্সার।

ম্যাচের মাত্র দুই মিনিটের মাথায় সার্জিও রবার্তোর গোলে এগিয়ে যায় কাতালান ক্লাব। তবে মরশুমের প্রথম দুই ম্যাচ হারলেও স্প্যানিশ জায়ান্টদের বিরুদ্ধে দারুণ লড়াকু মানসিকতার পরিচয় দেয় গেটাফে। ১৮ মিনিটে বার্সার প্রাক্তন ফুটবলার স্যান্ড্রো রামিরেজের গোলে সমতা ফেরায় তারা। এরপরেই ৩০ মিনিটের মাথায় সুন্দর বোঝাপড়ার মাধ্যমে প্রথম পোস্টে এক জোরালো শটের মাধ্যমে বার্সার হয়ে ম্যাচের দ্বিতীয় গোলটি করে দলকে ফের এগিয়ে দেন ডিপাই।

প্রথমার্ধ বার্সার পক্ষে ২-১ শেষ হলেও দ্বিতীয়ার্ধেও গেটাফে সেয়ানে সেয়ানে লড়াই চালিয়ে যায়। তবে ফ্রি-কিক থেকে মার্টিন ব্রাথওয়েট গেটাফের নেটে বল জড়িয়ে দিলেও অফসাইডে তা বাতিল হয়। ম্যাচের ৮৫ মিনিটের মাথায় দলের জয় সুনিশ্চিত করার সুযোগ পান ডিপাই। এক্ষেত্রে তিনি হেডারের বদলে পিছনের পা দিয়ে গেটাফে গোলকিপারকে চিপ করার চেষ্টা করলেও তা ঠিকঠাক কানেক্ট না হওয়ায় বল বাইরে চলে যায়। অবশেষে গেটাফের বিরুদ্ধে রক্ষণ মজবুত রেখে ২-১ গোলেই জয় সুনিশ্চিত করে বার্সা।

অপরদিকে, লুইস সুয়ারেজের মরশুমের প্রথম গোল ও শেষ মুহূর্তে প্রতিপক্ষের আত্মঘাতী গোলের সুবাদে মান বাঁচল গত বারের চ্যাম্পিয়ন অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের। ঘরের মাঠে ভিলারিয়ালের বিরুদ্ধে ২-২ গোলে ড্র করে দিয়েগো সিমিওনের দল।

গোল করে সুয়ারেজের উচ্ছ্বাস। ছবি- রয়টার্স।
গোল করে সুয়ারেজের উচ্ছ্বাস। ছবি- রয়টার্স। (REUTERS)

প্রথমার্ধ গোলশূন্য থাকার পর দ্বিতীয়ার্ধ একেবারে প্রবল গতিতে শুরু হয়। ভিলারিয়ালের হয়ে মানু ট্রিগুয়েরোস ৫২ মিনিটে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন। তবে তার চার মিনিট পরেই সুয়ারেজের মরশুমের প্রথম গোলের সুবাদে ম্যাচে সমতা ফেরায় অ্যাটলেটিকো। 

৭৪ মিনিটে আর্নাউট ডানজুমার গোলে ভিলারিয়াল জয়ের দিকে অগ্রসর হয়। তবে একদম ম্যাচের শেষ মুহূর্তে, ইনজুরি টাইমের পঞ্চম মিনিটে আইজার মান্ডির আত্মঘাতী গোলে হৃদয় ভঙ্গ হয় ইউলো সাবমেরিনদের। এই পয়েন্টের ফলে অপরাজিত হয়ে সাত পয়েন্টে থাকলেও এককভাবে শীর্ষে যাওয়ার সুযোগ হারাল অ্যাটলেটিকো। তিন ম্যাচ পরে বার্সার দখলেও সমান সংখ্যক পয়েন্ট রয়েছে।

বন্ধ করুন