বাংলা নিউজ > ময়দান > ফুটবল > CFC-র বিরুদ্ধে গোল না খাওয়াই গোয়ার বিরুদ্ধে নামার আগে তাতাচ্ছে দিয়াজের SC EB-কে
জিততে মরিয়া এফসি গোয়া।
জিততে মরিয়া এফসি গোয়া।

CFC-র বিরুদ্ধে গোল না খাওয়াই গোয়ার বিরুদ্ধে নামার আগে তাতাচ্ছে দিয়াজের SC EB-কে

  • লিগ তালিকার ১০ নম্বরের সঙ্গে ১১ নম্বর দলের লড়াই। এসসি ইস্টবেঙ্গল এবং এফসি গোয়া দুই দলই এখনও কোনও ম্যাচে জয় পায়নি। তাই দই দলই তিন পয়েন্টের জন্য ছটফট করছে।

আইএসএলে চার ম্যাচ খেলে ফেলেছে এসসি ইস্টবেঙ্গল। কিন্তু এখনও একটি ম্যাচেও জয় পায়নি ম্যানুয়েল দিয়াজের লাল-হলুদ ব্রিগেড। দু'টি ম্যাচ তারা হেরেছে। দু'টিতে ড্র করেছে। তবে আগের ম্যাচে চেন্নাইয়িন এফসি-র বিরুদ্ধে গোললেস ড্র করেছিল এসসি ইস্টবেঙ্গল। এই মরশুমে আইএসএলের প্রথম কোনও ম্যাচে একটি গোলও খায়নি দিয়াজের দল। আর এই বিষয়টিই এখন তাতাচ্ছে লাল-হলুদ ব্রিগেডকে।

এ দিকে তিন ম্যাচ খেলে তিনটিতেই হেরেছে এফসি গোয়া। সেই দলের বিরুদ্ধে জয়ে ফিরতে মরিয়া মহম্মদ রফিকরা। ম্যাচের আগে ম্যানুয়েল দিয়াজ কী বললেন, দেখে নিন এক নজরে:

নজরে এফসি গোয়া

এফসি গোয়া খুবই ভাল দল। ওদের একসঙ্গে ভালো খেলতে শুরু করা শুধু সময়ের অপেক্ষা। আমাদের কাছে প্রতিটা ম্যাচই গুরুত্বপূর্ণ।

চেন্নাইয়িনের বিরুদ্ধে গোলশূন্য ড্র

এটা খুবই দরকার ছিল আমাদের। ম্যাচের বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সঙ্গে আমরাও ভালো খেলতে শুরু করি। ওডিশার বিরুদ্ধে ছ’গোল খেয়েছি আমরা। তবে চেন্নাইয়িন এফসি-র বিরুদ্ধে কোনও গোল খাইনি। এই জায়গা থেকে নিজেদের গুছিয়ে তোলা শুরু করতে হবে। বিশেষ করে আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে তোলার কাজটা ভালো ভাবে করতে হবে।

প্রথম একাদশে নিয়মিত পরিবর্তন

তিন দিন অন্তর একটা করে ম্যাচ খেলতে হচ্ছে আমাদের। তাই সবাইকেই ঘুরিয়ে ফিরিয়ে খেলাতে হচ্ছে। টানা তিন ম্যাচে তো আর একই দল খেলানো যায় না। গোয়ায় আর্দ্রতা বেশি, যা খেলোয়াড়দের পক্ষে বেশ কঠিন হয়ে ওঠে।

দলের চোট আঘাত সমাচার

অঙ্কিত মুখোপাধ্যায় এবং জ্যাকিচাঁদ সিং ক্রমশ সুস্থ হয়ে উঠছে। ওরা কবে মাঠে ফিরতে পারবে, বলতে পারব না। এই ধরনের চোটগুলোর ক্ষেত্রে তাড়াহুড়ো করে লাভ হয় না। ওদের ব্যাপারে আমাদের সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। প্রত্যেকের শারীরিক অবস্থার ওপরই নজর রাখা হচ্ছে। কারণ, আমরা প্রাক-মরশুম প্রস্তুতি দেরি করে শুরু করেছি। দলের সবাই মাঠে নামার সুযোগ পাবে।

বন্ধ করুন