বাংলা নিউজ > ময়দান > ‘হাসান আলি আমার কাছে ক্ষমা চেয়েছিলেন’, পদত্যাগ করা নিয়ে নীরবতা ভাঙলেন ইউনিস খান
হাসান আলি।
হাসান আলি।

‘হাসান আলি আমার কাছে ক্ষমা চেয়েছিলেন’, পদত্যাগ করা নিয়ে নীরবতা ভাঙলেন ইউনিস খান

  • দু' বছরের জন্য পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের ব্যাটিং কোচের দায়িত্ব নিলেও, মাত্র সাত মাসের মধ্যে পদত্যাগ করেন ইউনিস খান। এর কারণ কী, স্পষ্ট করে জানানি তিনি। পিসিবি-র তরফেও কিছু জানানো হয়নি।

সকলকে কিছুটা অবাক করেই সাত মাসের মধ্যে পাকিস্তানের ব্যাটিং কোচের দায়িত্ব ছেড়ে দিয়েছিলেন ইউনিস খান। আর তার জন্য অনেকেই দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের ‘আইস বাথ’ বিতর্ককেই দায়ী করেছিলেন। এ বার এই প্রসঙ্গে মুখ খুললেন ইউনিস খান।

তিনি স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিয়েছেন ‘আইস বাথ’ বিতর্কের জন্য তিনি মোটেও পদত্যাগ করেননি। এবং তাঁর পদত্যাগের সঙ্গে একেবারেই অকারণে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের ঘটনাটি জড়ানো হচ্ছে। ‘আইস বাথ’ বিতর্ক আসলে কী?

পাকিস্তান যখন দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে গিয়ছিল, তখন ইউনুস খান আইস বাথ নেওয়ার কথা হাসান আলিকে বলেছিলেন। কিন্তু আইস বাথ নিতে অস্বীকার করেছিলেন হাসান আলি। এই নিয়ে দু'জনের মধ্যে উত্তপ্ত বাক্যবিনিময় হয়। এটা নিয়ে পরে তীব্র বিতর্কও হয়। অনেকেই দাবি করেছেন, এই ঘটনার জন্যই ইউনিস খান ব্য়াটিং কোচের দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন।

তবে ইউনিস খান পরিষ্কার বলে দিয়েছেন, ‘হাসান আলি আমার কাছে এর জন্য ক্ষমা চেয়েছিল। এবং আমি ওকে ক্ষমা করে দিয়েছি।’ এর সঙ্গেই পাকিস্তানের প্রাক্তন ব্যাটিং কোচ বলেন, ‘হাসান আলির এই ঘটনাকেই আমার পদত্যাদের কারণ বলা হচ্ছে দেখে আমি সত্যিই খুব অবাক হয়েছি।’

এর পাশাপাশি ইউনিস খান জানিয়ে দিয়েছেন, তিনি নিজে কখনও ব্যাটিং কোচ হওয়ার জন্য পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের দ্বারস্থ হননি। বরং পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডই তাঁকে প্রস্তাব দিয়েছিল। তাঁর দাবি, ‘আমি কখনওই কাজের জন্য বা কোন পজিশনের জন্য পিসিবি-র দ্বারস্থ হইনি। আমাকে বোর্ডের তরফেই এই প্রস্তাব (ব্য়াটিং কোচ হওয়ার) দেওয়া হয়েছিল।’

এই কথার মাধ্যমে ইউনিস খান কি বোঝাতে চেয়েছেন, পিসিবি-র সঙ্গে কোনও সমস্যার কারণেই দু'বছরের চুক্তি থাকা সত্ত্বেও তিনি মাত্র সাত মাসের মধ্যে পদত্যাগ করেছেন? এর উত্তর যদিও স্পষ্ট করে পাওয়া যায়নি।

বন্ধ করুন