বাংলা নিউজ > ময়দান > দলের প্রয়োজন, তাই অসহ্য যন্ত্রণা নিয়েই ঐতিহাসিক সিবি সিরিজে মাঠে নামেন সচিন, উথাপ্পা সামনে আনলেন অজানা তথ্য
সচিন তেন্ডুলকর ও রবিন উথাপ্পা। ছবি- গেটি।
সচিন তেন্ডুলকর ও রবিন উথাপ্পা। ছবি- গেটি।

দলের প্রয়োজন, তাই অসহ্য যন্ত্রণা নিয়েই ঐতিহাসিক সিবি সিরিজে মাঠে নামেন সচিন, উথাপ্পা সামনে আনলেন অজানা তথ্য

  • রীতিমতো ছটফট করলেও তেন্ডুলকর মুখে বলতেন তিনি সুস্থ আছেন।

২০০৮-এর বিখ্যাত সিবি সিরিজে রীতিমতো যন্ত্রণা নিয়ে মাঠে নেমেছিলেন সচিন তেন্ডুলকর। জোড়া চোট নিয়ে মাঠে নেমেও সচিন ত্রিদেশীয় সিরিজে ৩৯৯ রান করেছিলেন। কতটা প্রতিবন্ধকতা নিয়েই ব্যাট করতে হয়েছিল মাস্টার ব্লাস্টারকে, হদিশ দিলেন রবিন উথাপ্পা।

দ্য গ্রেড ক্রিকেট পডকাস্টে উথাপ্পা বলেন, ‘আপনারা বিশ্বাস করতে পারবনে না, সচিন তেন্ডুলকর, যাকে আমি পাজি বলে ডাকি, কমনওয়েলথ ব্যাঙ্ক সিরিজে প্রচণ্ড যন্ত্রণা নিয়ে মাঠে নেমেছিল।’

আসলে সেই সিরিজের আগে সচিন পাঁজরে চোট পেয়েছিলেন। তার উপর ছিল তাঁর কুঁচকির চোট। জোড়া চোট নিয়েই সিবি সিরিজে মাঠে নেমেছিলেন তেন্ডুলকর।

উথাপ্পার কথায়, ‘শারীরিকভাবে সচিন সুস্থ ছিল না। যন্ত্রণা নিয়েই খেলতে হয় ওকে। মাঝে মাঝে যন্ত্রণায় ছটফট করতেও দেখেছি। আমরা কতবার জিজ্ঞাসা করেছি যে ও ঠিক আছে কিনা। প্রতিবারই বলেছে, কোনও অসুবিধা নেই। আসলে সচিন সবসময় দলের প্রয়োজনকে আগ্রাধিকার দিয়েছে এবং সেই অনুযায়ীই কাজ করেছে। সেকারণেই যন্ত্রণা সহ্য করেও মাঠে নামে।’

উল্লেখ্য, শ্রীলঙ্কা ও অস্ট্রেলিয়াকে নিয়ে আয়োজিত ত্রিদেশীয় কমনওয়েলথ ব্যাঙ্ক সিরিজে দু'টি ফাইনাল খেলতে হয়েছিল ভারতকে। প্রথম ফাইনালে ভারত অস্ট্রেলিয়াকে ৬ উইকেটে পরাজিত করে। দ্বিতীয় ফাইনাল ম্যাচে টিম ইন্ডিয়া জেতে ৯ রানে।

বন্ধ করুন