বাংলা নিউজ > ময়দান > কেন যাবতীয় জৌলুস ক্রিকেটেই, ফুটবল-দাবার আকর্ষণ কোথায় হারিয়ে গেল? বিজয় দিবসে ফিরে দেখা বাংলাদেশের খেলার জগত

কেন যাবতীয় জৌলুস ক্রিকেটেই, ফুটবল-দাবার আকর্ষণ কোথায় হারিয়ে গেল? বিজয় দিবসে ফিরে দেখা বাংলাদেশের খেলার জগত

শাকিব আল হাসান। (ফাইল ছবি, সৌজন্য টুইটার)

ক্রিকেটে মনোযোগ, টাকা, ভালোবাসা সব যোগ হল৷ এসব গায়ে মেখে ক্রিকেট উড়েছে৷ বাকিরা ডুবেছে৷

শেষ ৫০ বছরে বাংলাদেশের সেরা ক্রীড়াবিদ কে? সেরা ৫০ এ-ই বা কারা থাকবেন? দেশের অর্ধশতাব্দী উপলক্ষে ক্রীড়াবিদদের এমন তালিকা করতে কিছু বিজ্ঞ মানুষকে দিয়ে একটা র‍্যাঙ্কিং করিয়েছিলাম৷

অবাক হয়ে খেয়াল করলাম, তালিকার উপরের দিকে প্রত্যাশামত ক্রিকেটারদের আধিক্য নেই৷ বরং ফুটবলার, দাবাড়ু–, বক্সার, শুটাররা ভালোমতোই ঢুকে পড়েছেন৷ তালিকাটা কৌতূহল জাগিয়ে তুলেছে বলে গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করলাম৷ তাতে আরও একটা মজার জিনিস বের হল৷ শীর্ষে যে সব ক্রিকেটাররা আছেন, তাঁরা সব এই প্রজন্মের৷ যখন অন্য সব খেলার ক্ষেত্রে তারকারা সব পুরনো দিনের৷ ক্রিকেটে শাকিব-মাশরাফি, ফুটবলে সালাহউদ্দিন-মুন্না৷ দাবায় নিয়াজ-রানি৷ দেখতে দেখতে মনে হল, এটাই আসলে পঞ্চাশ বছরের খেলা আর খেলার দিকবদল চিত্রিত করে সঠিকভাবে৷ প্রথম দুই-তিন দশক, মানে নব্বই দশক পর্যন্ত ছিল সব খেলা৷ এরপর শুধুই ক্রিকেট৷ পঞ্চাশ বছরের চিত্র খোলা চোখে ক্রিকেটের সাফল্যের গল্প৷ চোখ কচলে দেখলে আসলে ক্রিকেটের তোড়ে অন্য সব খেলার হারানোর গল্পও৷ একদিকে ক্রিকেটীয় তোরণ তৈরির ঝলমলে ছবি৷ ঠিক তাঁর পিছনের অন্ধকারে অন্য সব খেলার সমাধিক্ষেত্রও৷

পৃথিবীতে খুব কম দেশ আছে (খুব সম্ভবত নেই-ই) যে দেশের প্রধান খেলা বদলে গিয়েছে৷ বাংলাদেশে ছবিটা এমন পাল্টেছে মাঝেমধ্যে প্রশ্ন জাগে, ফুটবলের সেই জোয়ারের দিনগুলো সত্যিই কি ছিল! নাকি সেসব অন্য জন্মের ঘটনা৷ নব্বই দশক পর্যন্ত খেলা মানেই ছিল ফুটবল৷ আবার ঠিক ফুটবল নয়৷ আসলে সব খেলা৷ তখনকার সময় কোনও খেলা সারা বছর হওয়ার সুযোগ ছিল না৷ কারণ, অত আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতা ছিল না৷ স্পনসরদেরও অত চাপ ছিল না যে জনপ্রিয় খেলাটা থেকে যতভাবে সম্ভব নিংড়ে নেওয়া হবে৷ এখন যে কারণে লিগের বাইরে আইপিএল-বিপিএল, ত্রিদেশীয়-চতুর্দেশীয় সিরিজ, তখন ফুটবলের যে রমরমা যে এখনকার মতো স্পনসর আর বাণিজ্য অধ্যুষিত যুগ হলে কত যে টুর্নামেন্ট হত৷ সেসব হলে সারাবছর ফুটবলে মেতে থাকতেন মানুষ৷ সুবিধা হল, তা না হওয়ায় বছরের তিন-চার মাসের ফুটবল মরশুমে বাদ দিলে বাকি সময় হাতে থাকত অন্য খেলার দিকে মনোযোগ দেওয়ার৷ তাই টিটি, ব্যাডমিন্টনে প্রচুর মানুষ হত৷ বাস্কেটবল-অ্যাথলেটিক্সে মনযোগ দেওয়ারও সময় ছিল৷ তাই কয়েক মাস ফুটবল৷ বাকি সময় অন্য খেলা৷ ফুটবলারদের দেবতাতুল্য তারকাখ্যাতি৷ কিন্তু মানুষ খেয়াল রাখে বলে স্প্রিন্টার শাহ আলমও মনোযোগ পান৷ ডানা-মরিয়মদের ব্যাডমিন্টনও উত্তাপ তৈরি করে৷ ছোটো খেলার তারকারা সমাদর পান বলে সেই খেলায়ও পরের প্রজন্ম আগ্রহ বোধ করে৷ যাঁর যে খেলায় ক্ষমতা বা প্রতিভা, তিনি সেখানে নিজেকে বিকশিত করার চেষ্টা করেন৷ সাঁতারু বা বক্সার হলে মোশাররফদের মতো তারকার মর্যাদা মেলে বলে কিশোররা সাঁতার কাটেন৷ বক্সিংয়েও হাত পাকানোর চেষ্টা করেন৷ আবার সেসব খেলায় কিশোর-তরুণদের আগ্রহ আছে, সেই সময়ের সীমিত কাঠামোয় ঠিকই পাড়ায় মহল্লায় বক্সিং খেলার পর্যন্ত বন্দোবস্ত হয়ে যায়৷ ৮০'র দশকের কিশোরদের মনে থাকবে, ১৯৮৫ এশিয়া কাপে বাংলাদেশে হওয়া এবং বাংলাদেশের সাফল্যসূত্রে হকির এমন জোয়ার তৈরি হয়েছিল যে সবাই খেলাটা খেলতে চান৷ কিন্তু সরঞ্জাম দামী এবং দুর্লভ৷ সমস্যা নেই৷ নিজেরাই বাঁশ দিয়ে বিকল্প তৈরি করে দেশকে বানিয়ে ফেলল হকিময়৷ এভাবেই কখনও বাংলাদেশ সাঁতারময়৷ কখনও বক্সিংময়৷ এবং কখনও ক্রিকেটময়ও৷

তখনও ক্রিকেট ছিল৷ কেউ কেউ আপত্তি করে বলেন, ক্রিকেট তখন দুই নম্বর খেলাও ছিল না। কিন্তু এর সঙ্গে একমত নই৷ ক্রিকেট ছিল বিপুল ব্যবধানে পিছিয়ে থাকা দুই নম্বর৷ এখনকার ফুটবলের সঙ্গে তাঁর দারুণ মিল৷ এখন মানুষ ক্রিকেটের চোখে ফুটবলকে দেখেন৷ ক্রিকেটের আন্তর্জাতিক সাফল্যের সমতুল্য সাফল্য ফুটবলে চায় এবং পায় না বলে খেলাটা এমন অনাদৃত৷ তখন ফুটবলের সমাদর ছিল পুরোই ক্লাবভিত্তিক (যেমনটা পুরো দুনিয়াতে এখনও৷ আবাহনী-মহামেডান-ব্রাদার্স এই ফুটবলভিত্তিক এবং সমর্থকপুষ্ট ক্লাবগুলো ক্রিকেট দলও করত৷ অনুগত ক্লাব সমর্থকেরা ক্রিকেটেও সমর্থনসূত্রে মনোযোগ রাখত৷ নিজের ক্লাব কেমন করছে না করছে-দেশের ক্রিকেট ছিল এই অঙ্কজাত সমীকরণে৷ তবে ক্রিকেটীয় ভালোবাসা বা উত্তেজনা ছিল আন্তর্জাতিকতাবাদী৷ ভারত-পাকিস্তান প্রায় আবাহনী-মহামেডানের কাছাকাছি উত্তেজনা যোগাত৷ ইমরান-গাভাসকার নিয়ে ধুন্ধুমার বিতর্ক৷ এখনকার ফুটবলের সঙ্গে মিলটা পাচ্ছেন তো! দেশের ফুটবল নিয়ে উদাসীনতার আড়ালে ব্রাজিল-আর্জেন্তিনা আর মেসি-রোনাল্ডো নিয়ে প্রায় জীবন-মরণ উন্মাদনা৷ কিন্তু ই যে, স্থানীয় ফুটবলের মত তখনকার আন্তর্জাতিক ক্রিকেটও সাময়িক, সারা বছরের ব্যাপার নয় বলে উন্মাদনার দিন আসত বছরে এক-দুই বার৷ বাকি অফুরন্ত সময়ে ক্রীড়ামনের অন্য খেলায় মনযোগ দিতে মানা নেই৷

নব্বই দশকে বিশ্ব বদলাল৷ বদলাল বাংলাদেশও৷ খালি চোখে এটাও দেখা যাবে না যে এই ভূ- রাজনীতির বদল কীভাবে ক্রীড়াবোধও বদলাল৷ বিশ্বে সাম্য আর সমাজতন্ত্র পুরনো বলে পরিত্যাজ্য হয়ে চকচকে এক আধুনিক দুনিয়ার ঝলকানি এল৷ খোলা বাজার৷ যোগ্যতা অনুযায়ী যে যতদূর খুশি যেতে পারে৷ মানুষের স্বাভাবিক যে প্রবণতা তার জন্য দারুণ আকর্ষণীয়৷ ব্যক্তিগত বিধিনিষেধের সঙ্গে অর্থ আর বাণিজ্যের বিধিনিষেধও উঠে যাওয়ায় বিনিয়োগ-আর্থিক স্বচ্ছলতার অফুরন্ত সম্ভাবনা৷ খোলা বিশ্বের হাওয়া গায়ে লাগিয়ে মানুষ তাতে ঝাঁপালেন৷ উত্তেজনায় ব্যক্তি মানুষ খেয়াল করলেন না তিনি আসলে নিজেকে বিলিয়েই দিচ্ছেন৷ আর্থিক অগ্রগতির চেষ্টায় সংস্কৃতি-খেলা সব এমন খেলো ব্যাপার হল যে এর প্রয়োজনই যেন আর ঠিক থাকল না৷ আরও একটা অঙ্ক এল৷ সবকিছু আছে, তবে সেটা এক নম্বরের জন্য৷ জিততে পারলে, অন্যদের পিছনে ফেলতে পারলে তবেই তুমি সফল৷ রাজনীতি আর সমাজের এই অঙ্কের ফেরেই সমস্যায় পড়ল খেলা৷ যে খেলায় তুমি জিতবে, এক নম্বর হবে সেই খেলাটাই খেলবে৷ বাকিটা পয়সা দেবে না৷ মান দেবে না৷ ভালোবাসার কথা বলে এসবে মেতে থাকা বাতিল সময়ের বিলাসিতা৷

এদিকে বিশ্বের এই হাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বাংলাদেশেও বদল এসেছে৷ ১৫ বছরের সামরিক শাসন শেষে গণতন্ত্রে দেশ৷ খোলা সমাজ, প্রচুর পুঁজি৷ নতুন ধারার সংবাদমাধ্যম এল৷ এরা দেখল এবং দেখাল ক্রিকেটেই ভবিষ্যৎ সম্ভাবনা৷ ততদিনে আরও একটি ঘটনা ঘটেছে৷ জিম্বাবোয়ে টেস্ট সেস্টাস পেয়ে গিয়েছে, এর বাইরে আরও তিনটি দেশ বিশ্বকাপ খেলবে, কাজেই বাংলাদেশের সোনালী সুযোগ৷ সেই সম্ভাবনার অঙ্কই ক্রীড়াবোধ বদলাতে শুরু করল৷ ফুটবলে কিছু হবে না, ক্রিকেটেই ভবিষ্যৎ ধরে এমন একটা হাওয়া তৈরি হল যে বাকি সব খেলার সেই হাওয়ায় উড়ে যাওয়ার দশা তৈরি হয়েছিল৷ ক্রিকেটে মনযোগ, টাকা, ভালোবাসা সব যোগ হল৷ এসব গায়ে মেখে ক্রিকেট উড়েছে৷ বাকিরা ডুবেছে৷ আবার কেউ কেউ ক্রিকেটের মতো উড়তে গিয়ে পা মচকেছে৷

সেই সময়ের ক্রিকেট সংগঠকরা সম্ভাবনার হাইওয়ে ধরেই চলেছেন৷ চালিয়েছেন৷ ক্রিকেটে সাফল্য এসেছে৷ আরও সাফল্যের সম্ভাবনায় আরও নিজেদের ঢেলে দিয়েছি৷ এসবে কোনও সমস্যা ছিল না৷ ক্রিকেট বাংলাদেশকে যা দিয়েছে, সত্যি বললে বাকি সব খেলা মিলেও সেই সাফল্য দিতে পারেনি৷ শাকিব ক্রিকেটের বিশ্ব পর্যায়ে যে মাত্রায় পৌঁছেছেন, বাংলাদেশের আর কোনও ক্রীড়াবিদ তাঁর ধারেকাছে যেতে পারেননি৷ যতটা এগিয়ে যাওয়া উচিত ছিল, ততটা ক্রিকেটে পারলাম কিনা, সেই প্রশ্ন থাকবে৷ ইদানিং ব্যর্থ সময়ে সেটা নিয়ে আরও বড় প্রশ্ন৷ বৃহত্তর ক্রীড়া মানচিত্র বিবেচনায় গেলে ক্রিকেটীয় প্রভাবটা কেবল হারজিতের মধ্যে নেই৷ ক্রিকেট এখন তারুণ্যের স্বপ্ন৷ ক্রিকেটারেরা সবচেয়ে বড় সামাজিক নায়ক৷ এখানেই ক্রিকেট মিলে যাচ্ছে বাণিজ্য আর রাজনীতির অঙ্কের সঙ্গে৷ খেলাটা দেশের এক নম্বর আবেগ বলে বাণিজ্য দুনিয়া এটাকে যতভাবে সম্ভব ব্যবহার করতে চায়৷ আর তাই ক্রিকেটেই সব বিনিয়োগ৷ সামগ্রিক মনযোগ৷ তাতে ক্রিকেটের জৌলুস আরও বাড়ে৷ মানুষ আরও ক্রিকেটমুখী হয়৷ খেলা বলতে তাই টিকে থাকল শুধু ক্রিকেট৷ 

আবার বিশ্ব স্পনসর আর বাণিজ্যের ফেরে খেলাটা চলতে থাকে সারা বছর৷ একসময়ের শীতের খেলা এমন ছটি ঋতুর ব্যাপার হয়ে গিয়েছে যে অন্য দিকে মনোযোগ দেওয়ার সময়ই নেই৷ সবাই ক্রিকেট দেখেন, কেউ কেউ চেষ্টা করেন৷ না পারলে বাদ দেন৷ নিজের সন্তানের অন্য খেলায় প্রতিভা আছে দেখলেও উৎসাহিত হওয়ার বদলে আতঙ্কিত হন মানুষ৷ সম্ভাবনাহীন একটা খেলায় মেতে যদি ভবিষ্যৎটা নষ্ট করে বসে! কাজেই সামান্য কিছ মানুষ শেষপর্যন্ত খেলেন৷ এতে করে সামগ্রিকভাবে একটা ক্রীড়াবিমুখতাও তৈরি হচ্ছে৷ রাস্তার ধারে বা মাঠে দলে-দলে বাচ্চারা খেলছে, সেই দৃশ্য এখন পুরনো আর্কাইভেই মেলে শুধু৷

৫০ বছর পূর্তির দিনে লেখাটা লিখতে বসে এই ছবি হারিয়ে যাওয়ার দুঃখটা খুব বুকে বাজে৷ ক্রিকেটানন্দ আবার সেটাকে ভুলিয়ে রাখে৷ এই ভুলে থাকি বলে তবু কিছু আনন্দ নিয়ে বাঁচি৷ আবার ভুলে থাকি বলে অন্য খেলাকে অবহেলার ভুলটা বয়েই চলে৷ অর্ধশতাব্দীর খাতার শেষ পাতায় বোধহয় এটাই লেখা হবে৷ ক্রিকেটে অর্জন৷ বাকি সব বর্জন৷

(বিশেষ দ্রষ্টব্য : প্রতিবেদনটি ডয়চে ভেলে থেকে নেওয়া হয়েছে। সেই প্রতিবেদনই তুলে ধরা হয়েছে। হিন্দুস্তান টাইমস বাংলার কোনও প্রতিনিধি এই প্রতিবেদন লেখেননি।)

রোহিতদের প্রস্তুতির রোজনামচা, পাল্লা ভারি কোন দলের, ক্রিকেট বিশ্বকাপের বিস্তারিত কভারেজ, সঙ্গে প্রতিটি ম্যাচের লাইভ স্কোরকার্ড । দুই প্রধানের টাটকা খবর, ছেত্রীরা কী করল, মেসি থেকে মোরিনহো, ফুটবলের সব আপডেট পড়ুন এখানে।

ময়দান খবর

Latest News

'কাজ করলে প্রচার কই'! ভোটারের প্রশ্নে মেজাজ হারালেন শতাব্দী, আঙুল উঁচিয়ে ধমক বক্তব্য রাখার সময় সভামঞ্চেই জ্ঞান হারালেন নীতীন গড়কড়ি, মহারাষ্ট্রে তোলপাড় ঘটনা মুঠোর মধ্যে যখন কিছু ধরেন, সবচেয়ে বেশি খাটে কে? কোন আঙুল, জানলে চমকে যাবেন রিঙ্কু, হার্দিক T20 বিশ্বকাপে থাকবেন? রবি বা সোমেই হতে পারে ঠিক, থাকবেন রোহিতও ১৪ বার এসেছেন দার্জিলিঙে, কতটা পালটেছে ‘পাহাড়ের রানি’? ভোটের আগে শুনল HT বাংলা এই বছর প্রথম T20 WC-এ অংশ নেবে উগান্ডা, কোচ করা হল ভারতের প্রাক্তনীকে কলকাতা হাইকোর্ট কিনে নিয়েছে বিজেপি, বিচারব্যবস্থাকে ফের বেলাগাম আক্রমণ মমতার মঞ্চে ভাষণের মাঝে অজ্ঞান হয়ে পড়লেন নিতিন গডকরি! গরমে ভোট প্রচারের সময় অসুস্থতা লালুর জামাইকে টিকিট দিয়েও সিদ্ধান্ত বদল সপার! কনৌজ থেকে লড়বেন অখিলেশ যাদব আমিরের ৩ নম্বর বিয়েটা কবে, প্রশ্ন কপিলের! জবাব মিস্টার পারফেকশনিস্টের

Latest IPL News

এই জন্য ম্যাচটা হাতের বাইরে চলে যায়- হারের জন্য কোন কারণ দেখালেন রুতুরাজ বিশ্ব ক্রিকেটের সেরা ঘরোয়া T20 টুর্নামেন্ট নিঃসন্দেহে আইপিএল:- রিকি পন্টিং 'MS ফিনিশেশ অফ ইন স্টাইল', ধোনিদের হারের ক্ষতে নুন দিল LSG? ভিডিয়ো: দৌড়ে গিয়ে জড়িয়ে ধরলেন লারাকে! যশস্বীর জীবনের অবিস্মরণীয় মুহূর্ত ক্যাপ্টেন রোহিতও রান করেননি,২-৩ বছরে IPL-ও জেতেননি, সেহওয়াগকে পাশে পেলেন হার্দিক IPL 2024- স্লো-টার্নার নয়, উঠল ৪২৩ রান, হেরে চিপকের পিচকেই দুষলেন CSK-র কোচ? যদি তখন এরকম করতে পারতাম.... নাইটদের সঙ্গে কাটানো দিনগুলি নিয়ে আক্ষেপ কুলদীপের IPL 2024 CSK vs LSG: রাহুলের এই সাহসী সিদ্ধান্তই বদলে দিল ম্যাচের রঙ! চুক্তি থেকে বাদ, আইপিএলে শতরানের পর জাতীয় দলে ফেরার স্বপ্ন দেখছেন স্টইনিস সারাক্ষণ ধোনি, ধোনি কী! ক্যামেরাম্যান ফোকাস করতেই বোতল ছোড়ার ভয় দেখালেন মাহি

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.