বাংলা নিউজ > ময়দান > টি২০ বিশ্বকাপ > শেষ হল শাস্ত্রী অধ্যায়, তাঁর সময়কালে কী পেল ভারতীয় ক্রিকেট?
ভারতীয় ক্রিকেটে শেষ হল রবি শাস্ত্রী অধ্যায়।
ভারতীয় ক্রিকেটে শেষ হল রবি শাস্ত্রী অধ্যায়।

শেষ হল শাস্ত্রী অধ্যায়, তাঁর সময়কালে কী পেল ভারতীয় ক্রিকেট?

  • রবি শাস্ত্রীর সময়কালে ২০১৮-২০১৯ মরশুম এবং ২০২০-২০২১ মরশুমে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে তাদের হারিয়েই টেস্টে জয় পায় ভারত। নিঃসন্দেহে ভারতীয় ক্রিকেটে এটা বড় প্রাপ্তি। অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ২০১৮-১৯ সালেই ভারতীয় দল প্রথমবার কোনও টেস্ট সিরিজ জিতেছিল।

কোচ হিসেবে সোমবারই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ম্যাচে নামিবিয়ার বিরুদ্ধে শেষ বার দায়িত্ব পালন করলেন রবি শাস্ত্রী। ভারতীয় ক্রিকেটে শেষ হল শাস্ত্রী অধ্যায়। তাঁর জায়গায় বিরাট কোহলিদের কোচ হচ্ছেন রাহুল দ্রাবিড়। তবে শেষটা একেবারেই মধুর হল না রবি শাস্ত্রীর। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারতের ব্যর্থতার জন্য কোচ শাস্ত্রীর দিকেও আঙুল উঠছে। ২০১৭ সালের ১৩ জুলাই ভারতীয় দলের কোচ হিসেবে নিযুক্ত হয়েছিলেন তিনি। তার আগে ২০১৪ সাল থেকে ভারতীয় দলের ডিরেক্টর ছিলেন রবি। প্রসঙ্গত, টি-টোয়েন্টিতে অধিনায়ক বিরাট কোহলির অধ্যায়ও শেষ হয়ে গেল।

অস্ট্রেলিয়া থেকে ইংল্যান্ড- শাস্ত্রীর কোচিংয়ে সর্বত্রই দাপট দেখিয়েছে ভারত। বিশ্বের সব দলই ভারতকে সমীহ করে চলে। তবে ভারতীয় কোচ হিসেবে তাঁর সবচেয়ে বড় ব্যর্থতা, তাঁর সময়কালে ভারত কোনও আইসিসি টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি। শাস্ত্রীর কোচিংয়ে সাফল্য-ব্যর্থতা সবটাই মিলেমিশে এসেছে। তাঁর কোচিংয়ে ভারত ৪৩টি টেস্ট খেলে ২৫টিতে জিতেছে। ১৩টি ম্যাচ হেরেছে। ৫টি ড্র হয়েছে। কোচ শাস্ত্রীর অধীনে ৭৬টি ম্যাচ একদিনের ম্যাচ খেলে ৫১টি জিতেছে ভারত। ২২টি ম্যাচ হেরেছে। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের ক্ষেত্রে আবার তাঁর কোচিংয়ে ৬৫টি ম্যাচ খেলে ৪৩টি ম্যাচ জিতেছে ভারত। ১৮টি ম্যাচ হেরেছেন কোহলিরা। সব মিলিয়ে তাঁর সময় কালে মোট ১৮৪টি ম্যাচের মধ্যে ভারত ১১৯টি ম্যাচই জিতেছে ভারত। ৫৩টি ম্যাচ হেরেছে। ৫টি ম্যাচ ড্র হয়েছে।

এ ছাড়াও রবি শাস্ত্রীর কোচিংয়ে উল্লেখযোগ্য সাফল্যগুলো দেখে নেব এক নজরে:

১) ২০১৮-২০১৯ মরশুম এবং ২০২০-২০২১ মরশুমে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে তাদের হারিয়েই টেস্টে জয় পায় ভারত। নিঃসন্দেহে ভারতীয় ক্রিকেটে এটা বড় প্রাপ্তি। অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ২০১৮-১৯ সালেই ভারতীয় দল প্রথমবার কোনও টেস্ট সিরিজ জিতেছিল।

২) বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে ভারতের পারফরম্যান্স ছিল নজর কাড়া। এমন কী প্রথম বার টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালেও উঠেছিল ভারত। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। সাউদাম্পটনে নিউজিল্যান্ডের কাছে হেরে যায় তারা। তবে বিদেশের মাটিতে টেস্ট ক্রিকেটে সাফল্য পাওয়ার পাশাপাশি, শাস্ত্রীর কোচিংয়ে দেশের মাটিতে টেস্টে অপরাজিত রয়েছে ভারত।

৩) তাঁর সময়কালে ৪২ মাস ধরে টেস্ট ব়্যাঙ্কিংয়ে এক নম্বর জায়গা ধরে রেখেছিল ভারতীয় ক্রিকেট টিম। ২০১৬ থেকে ২০২০ প্রায় ৪ বছরের বেশি সময় ধরে এক নম্বর টেস্ট দল ছিল ভারত।

৪) আন্তর্জাতিক ওডিআই-তেও এসেছে নজর কাড়া সাফল্য। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ৪-১ ব্যবধানে জয়, শ্রীলঙ্কাকে ৫-০-তে হোয়াইট ওয়াশ করা থেকে শুরু করে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে ২-১-এ সিরিজ জয়, সব সাফল্যই এসেছে শাস্ত্রীর সময়কালে। 

৫) তাঁর সময়কালেই দক্ষিণ আফ্রিকাতে গিয়ে প্রথম বার প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে একদিনের সিরিজে জয় পায় ভারতীয় ক্রিকেট টিম। সিরিজের ফল ছিল ৫-১।

৬) রবি শাস্ত্রীর আমলে টি-টোয়েন্টিতেও সাফল্য নজর কাড়া। অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে টি-টোয়েন্টিতে সিরিজ জিতেছিল ভারত। একই সঙ্গে নিউজিল্যান্ডেও এই ফর্ম্যাটে সিরিজ জয় পায় তারা। 

৭) এ ছাড়াও ২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি ফাইনালে উঠেছিল ভারত। ২০১৯ সালের বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে উঠলেও হেরে যান বিরাট কোহলিরা। শাস্ত্রীর কোচিং ক্যারিয়ারে সবচেেয়ে বড় আক্ষেপ, আইসিসি-র কোনও টুর্নামেন্ট জিততে না পারা।

বন্ধ করুন