বাংলা নিউজ > ময়দান > ফার্স্টবয় রোহিত, অল-রাউন্ডার হিসেবে চমক শার্দুলের, ওভাল টেস্টের পর টিম ইন্ডিয়ার মার্কশিটে চোখ রাখুন
রোহিত ও বুমরাহ। ছবি- গেটি।
রোহিত ও বুমরাহ। ছবি- গেটি।

ফার্স্টবয় রোহিত, অল-রাউন্ডার হিসেবে চমক শার্দুলের, ওভাল টেস্টের পর টিম ইন্ডিয়ার মার্কশিটে চোখ রাখুন

  • সার্বিক পারফর্ম্যান্সের নিরিখে ১০-এর মধ্যে ভারতীয় তারকারা কত পেতে পারেন, দেখে নিন।

ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে পাঁচ ম্যাচের সিরিজের চারটি টেস্ট অতিক্রান্ত। ভারত সিরিজে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে। সিরিজ হারের সম্ভাবনা আর নেই কোহলিদের। এই অবস্থায় একনজরে দেখে নেওয়া যাক এপর্যন্ত পারফর্ম্যান্সের নিরিখে ভারতীয় ক্রিকেটারদের মার্কশিট।

রোহিত শর্মা (৯/১০): সিরিজে এপর্যন্ত ভারতের সবথেকে সফল ব্যাটসম্যান হলেন রোহিত। ৪ ম্যাচে ৫২.৫৭ গড়ে ভারতের হয়ে সর্বোচ্চ ৩৬৮ রান সংগ্রহ করেছেন হিটম্যান। সেঞ্চুরি করেছেন ১টি। হাফ-সেঞ্চুরি করেছেন ২টি। ইংল্যান্ডের পিচ ও পরিবেশে নতুন বলে রান তোলা কতটা কঠিন, তা বুঝতে বিশেষ অসুবিধা হওয়ার কথা নয়। সার্বিক পারফর্ম্যান্সের নিরিখে ১০-এর মধ্যে ৯ পাবেন হিটম্যান।

লোকেশ রাহুল (৮/১০): টিম ইন্ডিয়ার প্রথম পছন্দের ওপেনার ছিলেন না রাহুল। গিল চোট পেয়ে দেশে ফেরায় এবং মায়াঙ্ক প্রথম টেস্টের আগে মাথায় আঘাত পাওয়ায় শিকে ছেঁড়ে লোকেশের ভাগ্যে। সুযোগ পাবেন কিনা তা নিয়ে চূড়ান্ত অনিশ্চয়তার মাঝেই ওপেনে ভারতীয় দলকে নির্ভরতা দিয়েছেন লোকেশ। ৪ ম্যাচে ৩৯.৩৭ গড়ে ভারতের হয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩১৫ রান করেছেন রাহুল। সেঞ্চুরি করেছেন ১টি। হাফ-সেঞ্চুরি করেছেন ১টি। সার্বিক পারফর্ম্যান্সের নিরিখে ১০-এর মধ্যে ৮ পাবেন তিনি।

চেতেশ্বর পূজারা (৭/১০): পরিচিত ছন্দে নেই পূজারা। তবে শুরুর দিকের ব্যর্থতা শেষ দু'টি টেস্টে অনেকটাই কাটিয়ে উঠেছেন পূজারা। এমনকি লর্ডসেও রাহানের সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ পার্টনারশিপ গড়ে ম্যাচ জয়ে ইতিবাচক ভূমিকা নেন তিনি। ৪ ম্যাচে পূজারা ৩২.৪২ গড়ে ২২৭ রান সংগ্রহ করেছেন। হাফ-সেঞ্চুরি করেছেন ২টি। সার্বিক পারফর্ম্যান্সের নিরিখে ১০-এর মধ্যে ৭ পাবেন পূজারা।

বিরাট কোহলি (৬/১০): চলতি টেস্ট সিরিজে সবথেকে বেশি প্রত্যাশা ছিল কোহলির কাছ থেকেই। তিনি ব্যর্থ না হলেও প্রত্যাশা পুরোপুরি পূরণ করতে পেরেছেন, এমনটাও বলা যাবে না। ৪ ম্যাচে ৩১.১৪ গড়ে ২১৮ রান করেছেন ভারত অধিনায়ক। হাফ-সেঞ্চুরি করেছেন ২টি। সার্বিক পারফর্ম্যান্সের নিরিখে ১০-এর মধ্যে ৬ পাবেন কোহলি।

অজিঙ্কা রাহানে (৩/১০): লর্ডসের হাফ-সেঞ্চুরি ছাড়া এখনও পর্যন্ত গোটা সিরিজে পুরোপুরি ব্যর্থ রাহানে। তাঁর ফর্ম ভারতীয় শিবিরের দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। কার্যত বাধ্য হয়েই ওভালে তাঁর আগে ব্যাট করতে নামানো হয় জাদেজাকে। ৪ ম্যাচে ১৫.৫৭ গড়ে মাত্র ১০৯ রান করেন রাহানে। ১টি হাফ-সেঞ্চুরি করেন অজিঙ্কা। সার্বিক পারফর্ম্যান্সের নিরিখে ১০-এর মধ্যে ৩ পাবেন রাহানে।

ঋষভ পন্ত (৪/১০): গত অস্ট্রেলিয়া সফর থেকে ব্যাট হাতে ভারতীয় দলকে নির্ভরতা দিয়েছেন পন্ত। তাঁকেই ভয় ছিল ইংল্যান্ডের। তবে ওভালের শেষ ইনিংসে রান করা ছাড়া পরিচিত ধ্বংসাত্মক মেজাজে ধরা দিতে পারেননি তিনি। ৪ ম্যাচে ২০.৮৫ গড়ে ১৪৬ রান সংগ্রহ করেছেন পন্ত। সার্বিক পারফর্ম্যান্সের নিরিখে ১০-এর মধ্যে ৪ পাবেন ঋষভ।

জাদেজা (৬/১০): ব্যাটের হাত তুলনায় ভালো বলেই স্পিনার অল-রাউন্ডার হিসেবে অশ্বিনের থেকেও প্রাধান্য পান জাদেজা। হতাশ করেননি টিম ম্যানেজমেন্টকে। ৪ ম্যাচে ২২.৮৫ গড়ে ১৬০ রান করেছেন তিনি। ১টি হাফ-সেঞ্চুরি করেছেন। উইকেট নিয়েছেন ৪ ম্যাচে ৬টি। সার্বিক পারফর্ম্যান্সের নিরিখে ১০-এর মধ্যে ৬ পাবেন জাদেজা।

শার্দুল ঠাকুর (৮/১০): চলতি সিরিজে পেসার অল-রাউন্ডার হিসেবে ভারতের আবিষ্কার বলা যায় শার্দুলকে। ব্যাটের হাত যে নিতান্ত মন্দ নয়, সেটা অস্ট্রেলিয়া সফরেই বুঝিয়েছিলেন। তবে ওভাল টেস্টের দুই ইনিংসে হাফ-সেঞ্চুরি করে এবং গুরুত্বপূর্ণ উইকেট তুলে শার্দুল প্রমাণ করেছেন, হার্দিকের মতো ভূমিকা নেওয়ার ক্ষমতা রয়েছে তাঁর। অল-রাউন্ডার হিসেবে ২ ম্যাচে ৩৯.০০ গড়ে ১১৭ রান করেছেন শার্দুল। হাফ-সেঞ্চুরি করেছেন ২টি। উইকেট নিয়েছেন ৭টি। সার্বিক পারফর্ম্যান্সের নিরিখে ১০-এর মধ্যে ৮ পাবেন শার্দুল।

জসপ্রীত বুমরাহ (৮/১০): ভারতের সেরা বোলার হিসেবে নিজেকে যথাযথ প্রয়োগ করেছেন বুমরাহ। ৪ ম্যাচে ২০.৮৩ গড়ে ভারতের হয়ে সবথেকে বেশি ১৮টি উইকেট নিয়েছেন তিনি। ১৭.৪০ গড়ে ৮৭ রানও করেছেন। সার্বিক পারফর্ম্যান্সের নিরিখে ১০-এর মধ্যে ৮ পাবেন বুমরাহ।

মহম্মদ সিরাজ (৭/১০): ভারতের বোলিং ইউনিটকে সচল রেখেছেন সিরাজ। প্রয়োজনের সময় ক্রমাগত উইকেট এনে দিয়েছেন তিনি। ৪ ম্যাচে ৩০.৭১ গড়ে এখনও পর্যন্ত ১৪টি উইকেট নিয়েছেন সিরাজ। সার্বিক পারফর্ম্যান্সের নিরিখে ১০-এর মধ্যে ৭ পাবেন তিনি।

মহম্মদ শামি (৭/১০): ওভাল টেস্টে খেলেননি শামি। তবে তার আগের তিনটি ম্যাচে বল হাতে বুমরাহর সঙ্গে মুখ্য ভূমিকায় দেখা গিয়েছে শামিকে। ৩ ম্যাচে ২৭.৫৪ গড়ে ১১টি উইকেট নিয়েছেন তিনি। লর্ডসে অপরাজিত ৫৬ রানের কার্যকরী ইনিংসও খেলেন শামি। সার্বিক পারফর্ম্যান্সের নিরিখে ১০-এর মধ্যে ৭ পাবেন তিনি।

উমেশ যাদব (৭/১০): প্রথম সুযোগেই ওভালে বল হাতে নজর কাড়েন উমেশ। ওভাল টেস্টে দুই ইনিংস মিলিয়ে ২২.৬৬ গড়ে ৬টি উইকেট নিয়েছেন তিনি। ব্যাট হাতে দুই ইনিংস মিলিয়ে ৩৫ রানের কার্যকরী অবদান রাখেন উমেশ। সার্বিক পারফর্ম্যান্সের নিরিখে ১০-এর মধ্যে ৭ পাবেন যাদব।

ইশান্ত (৪/১০): দলের সবথেকে সিনিয়র পেসার ইশান্ত। দু'টি ম্যাচে মাঠে নেমে ৩৪.৮০ গড়ে ৫টি উইকেট নিয়েছেন তিনি। পিছন থেকে বুমরাহদের যথাযথ সার্পোট করেন ইশান্ত। সার্বিক পারফর্ম্যান্সের নিরিখে ১০-এর মধ্যে ৪ পাবেন তিনি।

বন্ধ করুন