বাংলা নিউজ > ময়দান > রূপকথার ম্যাচে মাত্র ১ রানে হার, 'অবিশ্বাস' গ্রাস করল আইরিশদের ডাগ আউটকে
মাত্র ১ রানে হার

রূপকথার ম্যাচে মাত্র ১ রানে হার, 'অবিশ্বাস' গ্রাস করল আইরিশদের ডাগ আউটকে

  • এর আগে প্রথমে ব্যাট করা নিউজিল্যান্ডের হয়ে সেঞ্চুরি করেছিলেন মার্টিন গাপটিল। তিনি আউট হয়েছিলেন ১১৫ রানে।টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল নিউজিল্যান্ড। গাপটিল, ফিন অ্যালেনকে সঙ্গে নিয়ে গড়েন ৭৮ রানের জুটি।

শুভব্রত মুখার্জি: ৩৬০ রান করেও মাত্র ১ রানে জিততে হয়েছে নিউজিল্যান্ড দলকে। অনবদ্য রান তাড়া করেও মাত্র ১ রান দূরে থামতে হয় আইরিশদের। ব্লেয়ার টিকনারের করা স্লোয়ার বাউন্সারের বিরূপ নিজের সর্বশক্তি দিয়ে ব্যাট চালিয়েও গ্রাহখম হিউম কানেক্ট করতে পারেননি। ফলে শেষ বলে জয়ের জন্য ৩ রান দরকার থাকা আইরিশদের হারের সম্মুখীন হতে হয় ১ রানে। আর এই হারের প্রভাব এসে পড়ে আইরিশদের ডাগ আউটেও। একদিকে ধরা পড়ে হতাশার ছবি। অন্যদিকে যেন ছিল শুধুই অবিশ্বাসের ছবি। শুক্রবার রাতে এক রূপকথার ম্যাচের সাক্ষী থাকল ডাবলিনের মালাহাইড।

জয়ের জন্য ৩৬০ রান তাড়া করতে নেমে ৪৯ ওভারে ৩৫০ রান করে ফেলেছিল আইরিশরা। শেষ ওভারে জয়ের জন্য তাদের প্রয়োজন মাত্র ১০ রান। উইকেটে ছিলেন গ্রাহাম হিউম এবং ক্রেগ ইয়ং। শেষ পর্যন্ত এই ১০ রান আর করতে পারলেন না তারা। টিকনারের বিরুদ্ধে মাত্র ৮ রান করেন তারা। প্রথম বল ছিল ডট, দ্বিতীয় বলে হয় ১ রান। তৃতীয় বলে ক্যাচ উঠলেও ফিল্ডার ধরতে পারেননি। আসে বাউন্ডারি। ফলে ৩ বল থেকে হয় ৫ রান। বাকি ৩ বলে ৫ করতে পারলেই ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে শ্বাসরূদ্ধকর ম্যাচটি জিতে নিত আয়ারল্যান্ড। কিন্তু চতুর্থ বলেই বাউন্ডারি মারা ইয়ং ১ রানের পর দ্বিতীয় রান নিতে গিয়েই আউট হন। ৫ম এবং ৬ষ্ঠ বলে আসে মাত্র ১টি করে রান। শেষ পর্যন্ত মাত্র ১ রানের দুঃখজনক পরাজয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে আইরিশরা।

আয়ারল্যান্ডের অসাধারণ এই লড়াইটি সম্ভব হয়েছে কেবল পল স্টার্লিং (১২০)এবং হ্যারি টেকটরের (১০৮) দুর্দান্ত দুটি শতরানের সুবাদে। এর আগে প্রথমে ব্যাট করা নিউজিল্যান্ডের হয়ে সেঞ্চুরি করেছিলেন মার্টিন গাপটিল। তিনি আউট হয়েছিলেন ১১৫ রানে।টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল নিউজিল্যান্ড। গাপটিল, ফিন অ্যালেনকে সঙ্গে নিয়ে গড়েন ৭৮ রানের জুটি। ৩৩ রান করে আউট হন ফিন অ্যালেন। ১২৬ বলে ১১৫ রান করে আউট হন মার্টিন গাপটিল।

অধিনায়ক টম ল্যাথাম করেন ৩০ রান। হেনরি নিকোলস ৫৪ বলে করেন ৭৯ রান। গ্লেন ফিলিপস ৩০ বলে করেন ৪৭ রান। মিচেল ব্রেসওয়েল ২১ রানে এবং মিচেল স্যান্টনার অপরাজিত থাকেন ১৪ রানে। শেষ পর্যন্ত ৬ উইকেটে ৩৬০ রান সংগ্রহ করে নিউজিল্যান্ড।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে অ্যান্ডি ম্যাকব্রাইনকে নিয়ে ৫৫ রানের জুটি গড়েন পল স্টার্লিং। ২০ বলে ২৬ রান করে আউট হন ম্যাকব্রাইন।এরপর পল স্টার্লিং এবং হ্যারি টেকটর মিলে গড়েন ১৭৯ রানের জুটি। ২৪১ রানের মাথায় গিয়ে আউট হন পল স্টার্লিং। কেরিয়ারে এটা স্টার্লিংয়ের ১৩তম সেঞ্চুরি।

বন্ধ করুন