বাংলা নিউজ > ময়দান > করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত হলেন মিলখা সিং-এর স্ত্রী নির্মল কাউর
মিলখা সিং এবং তাঁর স্ত্রী।
মিলখা সিং এবং তাঁর স্ত্রী।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত হলেন মিলখা সিং-এর স্ত্রী নির্মল কাউর

  • মিলখা সিং যখন প্রথম করোনায় আক্রান্ত হন, সে সময়ে চিন্তায় পড়ে গিয়েছিলেন নির্মল কাউর। বলেছিলেন, ভারতের কিংবদন্তি স্প্রিন্টারের ৯১ বছর বয়স হয়ে যাওয়ায়, তিনি তাঁকে নিয়ে চিন্তায় রয়েছেন। পরে নিজে করোনায় আক্রান্ত হলে, হাসপাতালে ভর্তি করতে হয় নির্মলকেও। কিন্তু এই লড়াইটা আর জেতা হল না ৮৫ বছরের নির্মলের।

করোনা পরবর্তী শারীরিক জটিলতার সঙ্গে এখনও লড়াই চালাচ্ছেন ভারতের কিংবদন্তি স্প্রিন্টার মিলখা সিং। কিন্তু তাঁর স্ত্রী নির্মল কাউরের সব লড়াই শেষ হয়ে গেল। প্রায় তিন সপ্তাহ করোনার সঙ্গে লড়াই করার পর রবিবার বিকেল চারটে নাগাদ প্রয়াত হন ফ্লাইং শিখের স্ত্রী। নির্মল নিজেও মহিলার জাতীয় ভলিবল দলের অধিনায়ক ছিলেন। পঞ্জাব রাজ্য সরকারের  মহিলা খেলাধূলা বিভাগের প্রাক্তন ডিরেক্টরও ছিলেন নির্মল কাউর।

মিলখা সিং যখন প্রথম করোনায় আক্রান্ত হন, সে সময়ে চিন্তায় পড়ে গিয়েছিলেন নির্মল কাউর। বলেছিলেন, ভারতের কিংবদন্তি স্প্রিন্টারের ৯১ বছর বয়স হয়ে যাওয়ায়, তিনি তাঁকে নিয়ে চিন্তায় রয়েছেন। তার পরে নিজে করোনায় আক্রান্ত হন নির্মল কাউর। মিলখা সিং-কে হাসপাতালে ভর্তি করার দিন দুয়েক বাদেই হাসপাতালে ভর্তি করতে হয় নির্মলকেও। কিন্তু এই লড়াইটা আর জেতা হল না ৮৫ বছরের নির্মলের। মিলখা সিং নিজে এখন আইসিইউ-তে রয়েছেন। তবে চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, তাঁর  শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল।

রবিবার মিলখা সিং-এর পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে, ‘গভীর দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি, অনেক লড়াই করার পরে আজ (রবিবার) বিকেল চারটের সময়ে প্রয়াত হয়েছেন নির্মল মিলখা সিং।’ একই সঙ্গে তারা জানিয়েছে, ‘মিলখা সিং এখনও আইসিইউ-তে রয়েছেন। তাই তিনি শেষকৃত্যে উপস্থিত থাকতে পারবেন না।’

মিলখা সিং-এর স্ত্রী ভর্তি ছিলেন মোহালির এক বেসরকারি হাসপাতালে। এই হাসপাতালেই প্রথমে মিলখা সিং-কেও ভর্তি করা হয়েছিল। পরে শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হলে বাড়ির লোকের অনুরোধেই মিলখা সিং-কে মোহালির বেসরকারি হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছিল। তবে কোভিড পরবর্তী সমস্যার কারণে ফের চণ্ডীগড়েের একটি হাসপাতালে ভর্তি করতে হয় মিলখা সিং-কে।

শোনা গিয়েছিল, মিলখা সিং-এর বাড়ির পরিচারক প্রথমে করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। এর পরই বাড়ির প্রত্যেকেরই করানো টেস্ট করা হয়েছিল। প্রথমে শুধুমাত্র মিলখা সিংয়েরই পজিটিভ রিপোর্ট এসেছিল। তবে শুরুর দিকে তাঁর শরীরে করোনার কোনও উপসর্গ বা সমস্যা সে ভাবে ছিল না। তাই প্রথম দিকে বাড়িতেই হোম আইসোলেশনে ছিলেন তিনি। পরে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়।

এর পর তাঁর স্ত্রী নির্মল কাউরও করোনায় আক্রান্ত হন। কোভিড-১৯ সংক্রমণের পাশাপাশি নিউমোনিয়া হয়ে যাওয়ায় মহিলা ভলিবল দলের প্রাক্তন অধিনায়ক নির্মল কাউরকেও হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছিল। তবে শেষের দিকে তাঁর শারীরিক অবস্থা সঙ্কটজনকই ছিল। রবিবার তাঁর যাবতীয় লড়াই শেষ হয়ে যায়। এ দিকে বাবার করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর পেয়েই দুবাই থেকে উড়ে এসেছিলেন গল্ফার জীব মিলখা সিং।

বন্ধ করুন