বাংলা নিউজ > ময়দান > সিটিকে হারিয়ে ১০ বছর পর এফএ কাপের ফাইনালে লিভারপুল, জোড়া গোল মানের
১০ বছর পর এফএ কাপের ফাইনালে লিভারপুল। ছবি: টুইটার

সিটিকে হারিয়ে ১০ বছর পর এফএ কাপের ফাইনালে লিভারপুল, জোড়া গোল মানের

  • এফএ কাপের ফাইনালে ১০ বছর পরে উঠতে সমর্থ হল জুর্গেন ক্লপের ছেলেরা।

শুভব্রত মুখার্জি: রোমাঞ্চকর লড়াই জিতে শেষ হাসি হাসল লিভারপুল। সাদিও মানের জোড়া গোলে ভর করে ম্যাঞ্চেস্টার সিটিকে হারিয়ে এফএ কাপের ফাইনালে ১০ বছর পরে উঠতে সমর্থ হল জুর্গেন ক্লপের ছেলেরা।

লিভারপুলের সামনে এদিন প্রথম থেকেই বেশ কোণঠাসা হয়ে পরে ম্যাঞ্চেস্টার সিটি। গোদের উপর বিষফোঁড়ার মতন গোলরক্ষকের ভুলের মাশুলও দিতে হল সিটিকে। বিরতির পর অসাধারণ লড়াই করেও লাভ হল না পেপ গুয়ার্দিওলার দলের।

লন্ডনের ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে শনিবার এফ এ কাপের সেমিফাইনালে ৩-২ গোলে সিটির বিপক্ষে জিতল লিভারপুল। প্রথমার্ধেই তিন গোল করে ফাইনালের উদ্দেশ্যে কার্যত এক পা বাড়িয়েই রেখেছিল লিভারপুল। জোড়া গোল করেন সাদিও মানে। অপর গোলটি করেছেন ইব্রাহিমা কোনাতে। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে এবং শেষে সিটির হয়ে ব্যবধান কমান জ্যাক গ্রিলিশ ও বার্নার্ডো সিলভা। তবে শেষ রক্ষা করতে পারেননি।

এই ম্যাচে হারের ফলে চলতি মরশুমে সিটির ট্রেবল জয়ের স্বপ্ন অধরা থেকে গেল। মরশুমে এরই মধ্যে লিগ কাপ জেতা লিভারপুলের অবশ্য চারটি শিরোপা জয়ের সব সম্ভাবনাই আপাতত বাস্তবে টিকে থাকল। এদিন ম্যাচের নবম মিনিটে এগিয়ে যায় লিভারপুল। অ্যান্ড্রু রবার্টসনের কর্নারে ছয় গজ বক্সের মুখে হেড করে গোল করেন ইব্রাহিমা কোনাতে। লিভারপুলের হয়ে টানা তিন ম্যাচে হেডে গোল করতে সক্ষম হলেন এই ফরাসি ডিফেন্ডার। আগের দুটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার-ফাইনালের দুই লেগে বেনফিকার বিপক্ষে করেছিলেন তিনি।

সিটির গোলরক্ষক জ্যাক স্টেফানের মারাত্মক ভুলে সপ্তদশ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করে লিভারপুল। জোন স্টোনসের ব্যাকপাস পেয়ে অনেকটা সময় পেয়েও ক্লিয়ার না করে যুক্তরাষ্ট্রের গোলরক্ষক বিপদ ডেকে আনেন দলের। তার আলগা স্পর্শে বল নিয়ন্ত্রণের বাইরে যায়। ছুটে গিয়ে সেই বল পেয়েই স্লাইডে করে বল জালে পাঠান সাদিও মানে। বিরতির আগে সেনেগালের এই ফরোয়ার্ডের দ্বিতীয় গোলে লিভারপুলের পক্ষে স্কোরলাইন হয় ৩-০। বক্সের মাথা থেকে থিয়াগো আলকান্তারার পাসে ভলিতে গোল করেন মানে।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই ৪৭তম মিনিটে সিটির হয়ে ব্যবধান কমান জ্যাক গ্রিলিশ। ডান দিক থেকে ফার্নান্ডিনিহোর বাড়ানো বল ডি-বক্সে একজনকে কাটিয়ে পাস দেন জেসুস। সেই বল পেয়ে গোল‌ করতে ভুল করেননি গ্রিলিশ। ম্যাচ শেষের চার মিনিট যোগ করা সময়ের প্রথম মিনিটে আরেকটি গোল শোধ করে ম্যাচকে জমিয়ে দেন সিলভা। কয়েক মিনিট আগে জেসুসের বদলি হয়ে মাঠে নেমেছিলেন রিয়াদ মাহরেজ। তার প্রচেষ্টা আলিসনের পায়ে লেগে দূরের পোস্টে থাকা সিলভার কাছে চলে গেলে তিনি তা পেয়ে সহজেই গোল করে ব্যবধান কমান। তবে শেষ রক্ষা করতে পারেননি।

বন্ধ করুন