বাংলা নিউজ > ময়দান > শেষ টেস্টেও একই রকম পিচে ইংল্যান্ডের পরীক্ষা নিক ভারত, চাইছেন কিংবদন্তি রিচার্ডস
ভিভ রিচার্ডস ও বিরাট কোহলি। ছবি- ইনস্টাগ্রাম।
ভিভ রিচার্ডস ও বিরাট কোহলি। ছবি- ইনস্টাগ্রাম।

শেষ টেস্টেও একই রকম পিচে ইংল্যান্ডের পরীক্ষা নিক ভারত, চাইছেন কিংবদন্তি রিচার্ডস

  • ভারতে এলে স্পিন খেলতে হবে, এটা জানা উচিত সবার, স্পষ্ট মত ক্যারিবিয়ান তারকার।

চারিদিকের হাহাকার, কান্নাকাটিতে কান না দিয়ে ভারতের উচিত ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে শেষ টেস্টেও একই ধরণের পিচ তৈরি করা। অন্তত তিনি নিজে দায়িত্বে থাকলে তাই করতেন বলে দাবি করলেন কিংবদন্তি ক্যারিবিয়ান তারকা ভিভ রিচার্ডস।

চেন্নাইয়ের ভারত-ইংল্যান্ড দ্বিতীয় টেস্ট ও আমদাবাদের তৃতীয় টেস্টের পিচ নিয়ে যে রকম সমালোচনা চলছে, তা অবাক করেছে রিচার্ডসকে। তিনি পিচ ও ভারতের অবস্থানকে সমর্থন করে জানান, ইংল্যান্ডের উচিত কান্নাকাটি না করে স্পিন বোলিংয়ের মোকাবিলা করার জন্য নিজেদের প্রস্তুত করা। কেননা, পেস বোলিংয়ের মতো স্পিন বোলিংও ক্রিকেটের অঙ্গ এবং একারণেই খেলাটাকে টেস্ট ক্রিকেট বলা হয়। তাছাড়া ভারতে খেলতে এলে স্পিনিং ট্র্যাক নিয়ে নাকেকান্না উচিত নয় বলেই দাবি ক্যারিবিয়ান তারকার।

নিজের ফেসবুক পেজে পোস্ট করা ভিডিওয় রিচার্ডস বলেন, ‘সম্প্রতি ভারতে অনুষ্ঠিত টেস্ট সিরিজ নিয়ে আমাকে বিস্তর প্রশ্ন করা হয়, বিশেষ করে দ্বিতীয় ও তৃতীয় টেস্ট নিয়ে। পিচ নিয়ে চারিদিকে যেরকম কান্নাকাটি, হাহাকার চোখে পড়ছে, তাতে আমি একটু বিভ্রান্ত। যাঁরা কান্নাকাটি করছেন, তাঁদের স্মরণ করিয়ে দিতে চাই যে, একটা সময় আপনদের সিমিং পিচে খেলতে হয়। বল গুডলেনথ স্পট থেকে হঠাৎ লাফিয়ে ওঠে। তখন মনে করা হয় এটা ব্যাটসম্যানদের সমস্যা। ব্যাটসম্যানরা কখনও কখনও এটার সঙ্গে মানিয়েও নেন। তবে এখন আপনারা অন্য দিকটা দেখতে পাচ্ছেন। যে কারণেই এটাকে টেস্ট ম্যাচ বলা হয়। কেননা, এটা সবরকমভাবে পরীক্ষা নিয়ে থাকে।’

রিচার্ডস আরও বলেন, ‘পিচে বিস্তর বল ঘুরছে বলে অভিযোগ উঠছে। তবে এটা পয়সার অন্য পিঠ। লোকে হয়ত ভুলে গিয়েছে যে ভারতের মাটিতে টেস্ট খেলা হচ্ছে। ভারতের খেলা হলে এমন পিচ প্রত্যাশিত। আপনি ভারতে খেলতে যাচ্ছেন মানে স্পিনিং ল্যান্ডে আপনার পরীক্ষা নেওয়া হবে। আপনার উচিত এরকম পরিস্থিতির জন্য প্রস্তুতি নেওয়া।’

শেষে ভিভ বলেন, ‘ইংল্যান্ড চতুর্থ টেস্টে কীভাবে পালটা লড়াই চালায়, সেটা দেখার। যদি আমি ভারতে থাকতাম এবং পিচ তৈরিতে আমার ভূমিকা থাকত, তবে আমি হুবহু একই রকমের পিচ তৈরি করতাম। ইংল্যান্ড এতদিন স্বস্তিজনক জায়গায় ছিল। ভারত তাদের সেই জায়গা থেকে টেনে বার করেছে।’

বন্ধ করুন