বাংলা নিউজ > ময়দান > Ravi Shastri on Test Cricket Future: দুধেভাতে দলে লাভ নেই, টেস্ট খেলুক বিশ্বের প্রথম ৬ দেশ, প্রস্তাব শাস্ত্রীর
রবি শাস্ত্রী। (ছবি সৌজন্যে টুইটার)

Ravi Shastri on Test Cricket Future: দুধেভাতে দলে লাভ নেই, টেস্ট খেলুক বিশ্বের প্রথম ৬ দেশ, প্রস্তাব শাস্ত্রীর

  • রবি শাস্ত্রী বলেন, 'যে দেশ কখনও টেস্ট খেলেনি, তাকে ভারতের স্পিন সহায়ক উইকেটে বা ইংল্যান্ডের পেস সহায়ক পরিবেশে খেলতে পাঠালে দুই থেকে আড়াই দিনের মধ্যে খেলা শেষ হয়ে যাবে।

শুভব্রত মুখার্জি

ইতিমধ্যেই ক্রিকেটের তিন ফর্ম্যাট আদৌ একসঙ্গে চালানো সম্ভব হবে কিনা, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠে গিয়েছে। বেন স্টোকস একদিনের ক্রিকেট থেকে অবসর গ্রহণের পরেই এই প্রশ্ন আরও জোরালো হয়েছে। এমন আবহে টেস্ট ক্রিকেটকে বাঁচাতে অভিনব দাওয়াই দিলেন প্রাক্তন ভারতীয় হেড কোচ রবি শাস্ত্রীর। তাঁর স্পষ্ট বক্তব্য, দলের সংখ্যা বাড়ানোর কোনও দরকার নেই। বরং খেলার মানের দিকে নজর দেওয়া হোক।

শাস্ত্রী তিন ফর্ম্যাটের খেলা চালিয়ে যাওয়ার পক্ষে। তবে টেস্ট ক্রিকেট জনপ্রিয় করে তুলতে তিনি নয়া প্রস্তাব দিয়েছেন। তাঁর বক্তব্য, টেস্ট ক্রিকেটটা বিশ্বের প্রথম ছটি দলকে নিয়ে খেলা হোক। শাস্ত্রী জানিয়েছেন, 'যদি টেস্ট ক্রিকেট বাঁচিয়ে রাখতে হয়, তাহলে ১০-১২ দলকে খেলানো যাবে না। প্রথম ছয়টি দল খেলুক। সংখ্যা নয়, গুণগত মান বজায় থাকুক। এই পথে হাঁটলে অন্যান্য ফর্ম্যাটের ক্রিকেটকেও টিকিয়ে রাখা সম্ভব হবে । খেলার সম্প্রসারণ করতে চাইলে দলগুলিকে টি-টোয়েন্টি বা একদিনের ক্রিকেটে সুযোগ দেওয়া হোক। কিন্তু টেস্ট ক্রিকেটে দল কমাতেই হবে। তাহলে আর এটা ভাবতে হবে না যে ইংল্যান্ড বা ওয়েস্ট ইন্ডিজ- কে আসছে, কে আসছে না।'

আরও পড়ুন: Wasim Akram bats for scrapping ODI: 'টাকার জন্য T20 থাক', ‘বিরক্তিকর’ ODI তুলে দেওয়ার পক্ষে সওয়াল ওয়াসিম আক্রমের

শাস্ত্রী আরও যোগ করেন, 'প্রথম ছয়টি দল টেস্ট খেলবে। যারা প্রথম ছয়ে থাকবে না, তারা খেলবে না। ভারত হোক বা ইংল্যান্ড বা অস্ট্রেলিয়া - সবাইকে টপ-সিক্সের জন্য কোয়ালিফাই করতে হবে। খেলার সম্প্রসারণের জন্য সাদা বলের ক্রিকেট রয়েছে। টেস্ট ক্রিকেট আসলে কী? যেটা আপনাকে পরীক্ষায় ফেলে। যেখানে দক্ষতার প্রয়োজন। যদি কোনও দক্ষতাই না থাকে, তাহলে সেই খেলা কেউ দেখবে?'

তিনি আরও বলেন, 'যে দেশ কখনও টেস্ট খেলেনি, তাকে ভারতের স্পিন সহায়ক উইকেটে বা ইংল্যান্ডের পেস সহায়ক পরিবেশে খেলতে পাঠালে দুই থেকে আড়াই দিনের মধ্যে খেলা শেষ হয়ে যাবে। সম্প্রচারকারীদের থেকে পাঁচ দিনের ক্রিকেটের টাকা নেওয়া হয়েছে। আড়াই দিনে শেষ হলে তারাও খুশি হবে না। দর্শকরাও আনন্দ পাবে না। এর ফলে ক্রিকেট খেলাটার প্রতি আকর্ষণ উলটে কমতে পারে।'

বন্ধ করুন