বাংলা নিউজ > ময়দান > ৮৭'র বেঙ্গালুরু টেস্টে তাঁর লেগ ব্রেকে আউট হন শ্রীকান্ত,অমরনাথ 'রহস্য' ফাঁস আক্রমের

৮৭'র বেঙ্গালুরু টেস্টে তাঁর লেগ ব্রেকে আউট হন শ্রীকান্ত,অমরনাথ 'রহস্য' ফাঁস আক্রমের

ওয়াসিম আক্রম (ছবি-ক্রিকে অস্ট্রেলিয়া)

ওয়াসিম আক্রম কিনা একবার ম্যাচে করেছিলেন লেগ ব্রেক বোলিং! তাও আবার বল করা শুধু নয় বোলিং করে দু'দুটি উইকেটও তুলে নিয়েছিলেন তিনি। ১৯৮৭ সালের বেঙ্গালুরু টেস্টে লেগ ব্রেক বোলিং করে প্যাভিলিয়নে ফিরিয়েছিলেন কৃষ্ণমাচারি শ্রীকান্ত এবং মহিন্দর অমরনাথকে।

শুভব্রত মুখার্জি: বিশ্ব ক্রিকেটের অন্যতম বিধ্বংসী পেসার বিশ্বকাপজয়ী প্রাক্তন পাক তারকা ওয়াসিম আক্রম। তাঁর আউট সুইং বা ইনসুইংয়ে ব্যাটারদের বিব্রত করার ক্ষেত্রে আক্রমের জুড়ি মেলা ভার। প্রচন্ড গতিতে ধেয়ে আসা তাঁর ইনসুইং ইয়র্কার ছিটকে দিত ব্যাটারদের স্ট্যাম্প। সেই ওয়াসিম কিনা একবার ম্যাচে করেছিলেন লেগ ব্রেক বোলিং! তাও আবার বল করা শুধু নয় বোলিং করে দু'দুটি উইকেটও তুলে নিয়েছিলেন তিনি। ১৯৮৭ সালের বেঙ্গালুরু টেস্টে লেগ ব্রেক বোলিং করে প্যাভিলিয়নে ফিরিয়েছিলেন কৃষ্ণমাচারি শ্রীকান্ত এবং মহিন্দর অমরনাথকে। সেই 'রহস্যের' পর্দাফাঁস করলেন ওয়াসিম আক্রম।

আরও পড়ুন… Asia Cup 2022: ভাই এবার বিয়ে করে নাও, বাবরকে বিয়ে করার পরামর্শ দিলেন রোহিত শর্মা

ওয়াসিম আক্রম জানিয়েছেন ১৯৮৭ সালের বেঙ্গালুরু টেস্টে বল এতটাই স্পিন করছিল যে তিনি গোটা দ্বিতীয় ইনিংসে স্পিন বোলিং করেন। সেখানেই লেগ ব্রেকে শ্রীকান্ত এবং অমরনাথের উইকেট নেন তিনি। আগামী ২৮ অগস্ট এশিয়া কাপে ভারতের মুখোমুখি হবে পাকিস্তান দলের। তার আগেই ব্রডকাস্টার স্টার স্পোর্টসের তরফে তাদের ইউটিউব চ্যানেলে ভারত-পাক ম্যাচের স্মৃতি নিয়ে তারকাদের নিয়ে একটি সিরিজ লঞ্চ করা হয়েছে। সেখানেই এক অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কপিল দেব এবং ওয়াসিম আক্রম। ওয়াসিম আক্রম সেখানেই এই রহস্য উন্মোচন করেছেন।

আরও পড়ুন… ‘সব ফর্ম্যাটেই সেরা ও, আমি ওর খেলা দেখতে পছন্দ করি,’ বিরাটের মুখে বাবরের প্রশংসা

আক্রাম জানান, ‘উইকেটে অল্প ঘাস ছিল।’ কপিল দেব জানান, ‘ম্যাচের আগের রাতে সব ঘাস ছেঁটে ফেলা হয়েছিল।’ তার উত্তরে আক্রম বলেন, ‘তাও কিছু কিছু জায়গায় ঘাস রয়ে গেছিল। বল টার্ন করছিল। উইকেটে বল এতটাই টার্ন করছিল যে আমি লেগ স্পিন বোলিং করি গোটা দ্বিতীয় ইনিংসে। আমি নতুন বলেও শুধুমাত্র লেগ ব্রেক বল করছিলাম। আমি দুটো উইকেটও পাই । শ্রীকান্ত এবং অমরনাথকে আউট করি।’ ম্যাচে পাকিস্তান প্রথম ইনিংসে ১১৬ রানে অলআউট হয়ে যায়। ভারত প্রথম ইনিংসে ২৯ রানের লিড পায়। দ্বিতীয় ইনিংসে পাকিস্তান ২৪৯ রান করে। ভারত ২০৪ রানেই অলআউট হয়ে যায়। ২৬৪ বল খেলে ৯৬ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলেন গাভাসকর। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ স্কোর ছিল মহম্মদ আজহারউদ্দিনের। তিনি করেছিলেন ২৬ রান।

বন্ধ করুন