বাংলা নিউজ > ময়দান > 'বয়স ভাঁড়িয়ে, পরিচয় লুকিয়ে খেলেছেন ফুটবলার', বিশ্বকাপে ইকুয়েডরের খেলা নিয়ে তৈরি শঙ্কা
বাইরন কাস্তিলো (REUTERS)

'বয়স ভাঁড়িয়ে, পরিচয় লুকিয়ে খেলেছেন ফুটবলার', বিশ্বকাপে ইকুয়েডরের খেলা নিয়ে তৈরি শঙ্কা

  • ফিফার কাছে ফুটবলার কাস্তিলোর জন্মশংসাপত্রে ভুয়ো তথ্য দেওয়ার অভিযোগ করেছিল চিলি। ফিফা তা খারিজো করে দিয়েছিল বিশ্ব ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থাটি। কিন্তু নতুন তদন্তে উঠে এসেছে আরও বিপদজনক প্রমাণ।

শুভব্রত মুখার্জি: কাতার বিশ্বকাপ শুরু হতে আর মাত্র কয়েকটা মাসের অপেক্ষা। ইতিমধ্যেই বিশ্বকাপের ড্র-ও প্রকাশিত হয়ে গিয়েছে। তারপরেই হঠাৎ করে ইকুয়েডরের ফিফা বিশ্বকাপে খেলতে পারা নিয়েই তৈরি হল অনিশ্চয়তা। অভিযোগ গুরুতর। ভুয়ো পাসপোর্ট, আসল পরিচয় লুকিয়ে খেলা। সর্বোপরি ইকুয়েডর ফুটবল ফেডারেশনের বিরুদ্ধে অভিযোগ সবটা ধামাচাপা দেওয়ার। চিলির তরফে ফিফার কাছে এই অভিযোগ করা হয়েছিল। যার প্রেক্ষিতে ফিফা আপিল কমিশন কালকেই তাদের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত ঘোষণা করতে চলেছে। তারপরেই নিশ্চিত হয়ে যাবে ইকুয়েডরের কাতার বিশ্বকাপের ভাগ্য।

নভেম্বরে কাতারে খেলা হবে বিশ্বকাপ ফুটবল। সেখানে দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের বাছাইপর্ব থেকে চতুর্থ দল হিসেবে সরাসরি জায়গা করে নিয়েছিল ইকুয়েডর। ইকুয়েডরের ডিফেন্ডার বাইরন কাস্তিলোকে 'অযোগ্য' ফুটবলার হিসেবে গণ্য করে ফিফার কাছে নালিশ জানিয়েছিল চিলি। ফিফা চিলির সেই অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছিল আগেই। তা সত্ত্বেও নতুন আশঙ্কায় ভুগছে ইকুয়েডর।

ফিফার কাছে ফুটবলার কাস্তিলোর জন্মশংসাপত্রে ভুয়ো তথ্য দেওয়ার অভিযোগ করেছিল চিলি। ফিফা তা খারিজো করে দিয়েছিল বিশ্ব ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থাটি। কিন্তু নতুন তদন্তে উঠে এসেছে আরও বিপদজনক প্রমাণ। ফলে এখন বিশ্বকাপ থেকে নিষিদ্ধ হওয়ার আশঙ্কায় ইকুয়েডর। চিলির বক্তব্য ছিল, কাস্তিলোর জন্মশংসাপত্র ভুয়ো। ইকুয়েডরের জন্মশংসাপত্রের নথিতে কাস্তিলোর আঙুলের ছাপ নেই। ইকুয়েডরের সিভিল রেজিস্ট্রি অফিস এবং ফুটবল ফেডারেশন একত্রিত হয়ে এই জালিয়াতি করেছে। চিলির তরফে দাবি করা হয়েছিল কাস্তিলোর জন্ম কলম্বিয়ার তুমাকোয়। কাস্তিলোকে খেলানোর জন্য নাকি সত্যকে ধামাচাপাও দিয়েছে ইকুয়েডর ফুটবল ফেডারেশন। তারা নাকি বেআইনিভাবেই কাস্তিলোকে বিশ্বকাপের বাছাইপর্বের ম্যাচগুলোতে খেলিয়েছে। বৃহস্পতিবার কাস্তিয়োর বিষয়ে রায় দেবে ফিফার আপিল কমিশন। তার আগে ফিফার তদন্তে উঠে আসা কাস্তিয়োর জন্মশংসাপত্র জালিয়াতির বিষয়টি ফাঁস করেছে ব্রিটেনের সংবাদ মাধ্যম মেইল অনলাইন।

তদন্ত কমিশনের কাছে সাক্ষাৎকারে কাস্তিলো স্বীকার করেছেন তাঁর জন্ম কলম্বিয়ায়। তাঁর জন্মসাল ১৯৯৫। কিন্তু ইকুয়েডরিয়ান জন্মশংসাপত্রে তার জন্ম সাল লেখা ছিল ১৯৯৮ সাল। কাস্তিলোর কলম্বিয়ান জন্মশংসাপত্রে নাম রয়েছে বায়রন হাভিয়ের কাস্তিলো সেগুরা। কিন্তু ইকুয়েডরিয়ান জন্মশংসাপত্রে নাম বায়রন ডেভিড কাস্তিলো সেগুরা। ফুটবলে কেরিয়ার গড়তেই কলম্বিয়ার তুমাকো ছেড়ে ইকুয়েডরের সান লরেঞ্জোয় এসেছিলেন বলে জানিয়েছেন কাস্তিলো স্বয়ং। ইকুয়েডরের এক ব্যবসায়ী কাস্তিলোকে নতুন নাম দিয়েছিলেন। তাকেও চিনতে পেরেছেন কাস্তিলো। 

কাস্তিলোর সবকিছু স্বীকার করার অডিয়ো ফাইল ও নাকি রয়েছে ব্রিটেনের সংবাদ মাধ্যমের কাছে। অভিযোগ প্রমাণিত হলে, ইকুয়েডরের হয়ে কাস্তিলো বাছাইপর্বে যে ৮ ম্যাচ খেলেছেন, তার সবগুলোতেই পয়েন্ট কাটবে ফিফা। উল্লেখ্য কাস্তিলো জাতীয় দলের হয়ে বাছাইপর্বে ৮ ম্যাচ খেলেছেন। সেখানে ইকুয়েডর পেয়েছে ১৪ পয়েন্ট। এই পয়েন্ট হারালে কাতার বিশ্বকাপে খেলা হবে না তাদের। উল্টে ইকুয়েডরের বদলে কাতার বিশ্বকাপের মূলপর্বের দরজা খুলে যেতে পারে ইভান জামোরানো, মার্সেলো সালাসদের দেশ চিলির।

বন্ধ করুন