বাংলা নিউজ > ময়দান > ত্রিপুরায় ঘাঁটি গাড়ছেন ঋদ্ধি? এ বার প্লেয়ারের সঙ্গে মেন্টরের ভূমিকায় দেখা যাবে?
ঋদ্ধিমান সাহা।

ত্রিপুরায় ঘাঁটি গাড়ছেন ঋদ্ধি? এ বার প্লেয়ারের সঙ্গে মেন্টরের ভূমিকায় দেখা যাবে?

  • অভিমান তবে কমেনি। বাংলা সত্যিই ছাড়ছেন ঋদ্ধি! অন্তত ত্রিপুরা টিমের সঙ্গে তিনি যে ভাবে কথা এগোচ্ছেন, তাতেই পরিষ্কার, তিনি তাঁর সিদ্ধান্তে অনড়। নিঃসন্দেহে ঋদ্ধির বাংলা ছেড়ে যাওয়াটা, এই রাজ্যের ক্রিকেটের জন্য মোটেও ভালো বার্তা হবে না।

সিএবি কর্তার সঙ্গে ঝামেলার জেরে বাংলা ছাড়ার কথা বহু দিন আগেই বলেছিলেন ঋদ্ধিমান সাহা। তবে কোন রাজ্যে নিজের নাম লেখাতে চলেছেন ঋদ্ধি, তা নিয়ে জল্পনা ছিল। জানা গিয়েছে, ঋদ্ধি নাকি ত্রিপুরার ক্রিকেট টিমে যোগ দেওয়ার জন্য কথাবার্তা চালাচ্ছেন। তবে শুধু প্লেয়ার হিসেবে নয়। প্লেয়ারের পাশাপাশি নতুন ভূমিকায় দেখা যেতে পারে তাঁকে। সেটা হল মেন্টরের ভূমিকায়।

এক কর্মকর্তা পিটিআই-কে বলেছেন, ‘তিনি ত্রিপুরার প্লেয়ার-কাম-মেন্টর হতে চাইছেন। এই নিয়ে ত্রিপুরার কিছু অ্যাপেক্স কাউন্সিলের সদস্যদের সঙ্গে আলোচনা করেছেন। কিন্তু এখনও কিছু চূড়ান্ত হয়নি।’ তিনি আরও যোগ করেছেন, ‘ওঁকে প্রথমে সিএবি এবং তার পর বিসিসিআই-এর থেকে ছাড়পত্র (এনওসি) পেতে হবে এবং তার পরে এই বিষয়টি এগোবে।’

আরও পড়ুন: CAB-র যে কর্তার সঙ্গে ঋদ্ধির ঝামেলা, তাঁকেই ইংল্যান্ডের টিম ম্যানেজার করল BCCI

আরও পড়ুন: ‘বাংলার হয়ে আর নয়’, সেমিতে মনোজদের ভুলের ব্যাখ্যা দিলেও, সিদ্ধান্তে অনড় ঋদ্ধি

এই বছরের শুরু থেকে নানা বিষয় নিয়ে মানসিক ভাবে বিধ্বস্ত ছিলেন ঋদ্ধিমান সাহা। তার উপর আবার ভারতীয় দল থেকেও তাঁকে বিনা কারণেই বাদ দেওয়া হয়। এই সব নিয়ে এমনিতেই মুষড়ে পড়েছিলেন তিনি। যে কারণে রঞ্জির প্রথম পর্বে খেলেননি ঋদ্ধি। প্রথমে তাঁর খেলার কথা থাকলেও, পরে তিনি সরে দাঁড়ান। 

সেই সময়ে সিএবি-র যুগ্মসচিব দেবব্রত দাস তাঁর দায়িত্ববোধ এবং দায়বদ্ধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। তাতেই চটে যান শিলিগুড়ির পাপালি। দেবব্রত দাসের করা মন্তব্য নিয়ে সিএবি প্রেসিডেন্ট অভিষেক ডালমিয়ার কাছে বিহিত চেয়েছিলেন। ঋদ্ধি দাবি করেছিলেন, এর জন্য সিএবি-র যুগ্মসচিবকে প্রকাশ্যে ঋদ্ধির থেকে ক্ষমা চাইতে হবে। সেই ক্ষমা দেবব্রতবাবু যদিও এখনও চাননি।

বন্ধ করুন