বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > অনলাইন ক্লাসের জন্য কেনা ফোনে খেলত গেম,বকাবকি করায় আত্মঘাতী অষ্টম শ্রেণির ছাত্র
 (প্রতীকী ছবি)
 (প্রতীকী ছবি)

অনলাইন ক্লাসের জন্য কেনা ফোনে খেলত গেম,বকাবকি করায় আত্মঘাতী অষ্টম শ্রেণির ছাত্র

কান্নায় ভেঙে পড়েন রাশের দিদি। তাঁর কথায়, ‘‌ভাই ফ্রি ফায়ার গেম ডাউনলোড করেছিল। তাই মা ওকে বকাবকি করত।

‌সামনে পরীক্ষা থাকায় অনলাইন গেম বন্ধ করে পড়াশোনায় মন দিতে বলেছিলেন মা। আর তাতেই মায়ের উপর অভিমান করে আত্মঘাতী হলেন অষ্টম শ্রেণির ছাত্র। ঘটনাটি ঘটেছে দুর্গাপুরের বেনাচিতিতে। গোটা ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, দুর্গাপুরের বেনাচিতি এলাকার ১৪ নম্বর ওয়ার্ডের নতুন পল্লির বাসিন্দা ছিলেন রাশ রাউত। রাশ অষ্টম শ্রেণির ছাত্র ছিল। রাশের বাবা কম বেতনের কাজ করেন। খুবই অভাবের সংসার তাঁদের। রাশের বাবা সঞ্জয় রাউত জানান, ‘‌দুপুরে খাওয়া দাওয়ার পর মোবাইল গেম খেলছিল রাশ। মা মোবাইল রেখে পড়াশোনার কথা বলতেই দরজা বন্ধ করে দেয় সে। দীর্ঘক্ষণ পেরিয়ে গেলেও দরজা না খোলায় ডাকাডাকি শুরু হয়। কিন্তু কোনও সাড়াশব্দ পাওয়া যায়নি। এরপরই পরিবারের সদস্যরা পুলিশে খবর দেন। পুলিশ এসে দরজা ভাঙতেই ঝুলন্ত অবস্থায় রাশকে উদ্ধার করেন।’‌

সঞ্জয় জানিয়েছেন, যখন রাশের দেহ উদ্ধার করা হয়, তখন তিনি বাড়িতে ছিলেন না। কাজে গিয়েছিলেন। তিনি জানান, 'যেহেতু স্কুলে অনলাইন ক্লাস চলছে, সেজন্য মোবাইল ফোন কিনে দিয়েছিলাম। সেই মোবাইলই এখন ছেলের প্রাণ কেড়ে নিল।' দেহটি উদ্ধার করে প্রথমে দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। ময়নাতদন্তের পর দেহটি পরিবারের সদস্যদের হাতে তুলে দেওয়া হয়। গোটা ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। কান্নায় ভেঙে পড়েন রাশের দিদি। তাঁর কথায়, ‘‌ভাই ফ্রি ফায়ার গেম ডাউনলোড করেছিল। তাই মা ওকে বকাবকি করত। মায়ের বকা খেলে ঘরের দরজা বন্ধ করে দিত সে। কিন্তু এদিন আর দরজা খোলেনি।’‌

বন্ধ করুন