বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Murder: মাঝরাতে স্ত্রীর দেহ টুকরো টুকরো করল স্বামী, হাড়হিম ঘটনা পশ্চিম মেদিনীপুরে
স্ত্রীকে কুপিয়ে খুন করল স্বামী।

Murder: মাঝরাতে স্ত্রীর দেহ টুকরো টুকরো করল স্বামী, হাড়হিম ঘটনা পশ্চিম মেদিনীপুরে

  • পুলিশ একটি ধারালো ছুরি বা চপার উদ্ধার করেছে। স্ত্রী কেকাকে কুপিয়েছে অশোক টুকরো টুকরো করে। তারপর বাড়ির বাইরে বেরিয়ে দরজায় তুলে দেয় শিকল। আর বাড়িতে একটি গোয়াল ঘরে গিয়ে আত্মঘাতী হয় সে। আনন্দপুর থানার পুলিশ দেহ দুটি ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে। তদন্ত শুরু হয়েছে গোটা ঘটনার।

হাড়হিম ঘটনা ঘটল পশ্চিম মেদিনীপুরে। নিজের স্ত্রীকে চপার দিয়ে টুকরো টুকরো করে কেটে খুন করল স্বামী। এই বীভৎস ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই ব্যাপক আলোড়ন পড়ে গিয়েছে। এখানেই থেমে থাকেনি ওই স্বামী। তারপর নিজে আত্মহত্যা করেন ওই স্বামী। একসঙ্গে দুটো এমন মৃত্যুর ঘটনা এখন চর্চায় উঠে এসেছে। এলাকার সর্বত্র এই ঘটনাই আলোচিত হচ্ছে।

ঠিক কী ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুরে?‌ স্থানীয় সূত্রে খবর, পশ্চিম মেদিনীপুরের আনন্দপুর থানার টুকুরিয়া পাট এলাকায় মঙ্গলবার মাঝরাতে স্ত্রীর দেহ টুকরো টুকরো করার ঘটনা ঘটে। তারপর নিজে আত্মহত্যা করে স্বামী। সাংসারিক অশান্তি থেকেই এই ঘটনা ঘটেছে। অভাব–অনটন এই সংসারের নিত্যসঙ্গী ছিল। তা নিয়ে ঝগড়াও হতো স্বামী–স্ত্রীর মধ্যে।

পুলিশ কী তথ্য পেয়েছে?‌ পুলিশ সূত্রে খবর, মৃত গৃহবধূর নাম কেকা কোলে (‌৩৮)‌। আর তাঁর স্বামী অশোক কোলে (৪৮)। স্বামী স্ত্রীকে নৃশংসভাবে খুন করেছে বলে প্রাথমিক অনুমান। তারপর নিজেও আত্মঘাতী হয়েছে। অশোক–কেকার সংসারে নিত্যদিন অশান্তি হতো। মঙ্গলবার তাঁদের মধ্যে অশান্তি হয়েছিল। তারপর মাঝরাতে ভয়াবহ কাণ্ড ঘটিয়ে আত্মহত্যা করে অশোক।

আর কী জানা যাচ্ছে?‌ পুলিশ একটি ধারালো ছুরি বা চপার উদ্ধার করেছে। স্ত্রী কেকাকে কুপিয়েছে অশোক টুকরো টুকরো করে। তারপর বাড়ির বাইরে বেরিয়ে দরজায় তুলে দেয় শিকল। আর বাড়িতে একটি গোয়াল ঘরে গিয়ে আত্মঘাতী হয় সে। আনন্দপুর থানার পুলিশ দেহ দুটি ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে। তদন্ত শুরু হয়েছে গোটা ঘটনার।

বন্ধ করুন