বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > 'ডেস্টিনেশন শিল্প', পানাগড় ইন্ডাস্ট্রিয়াল হাবে ৪০০ কোটির কারখানা শিলান্যাস মমতার
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় 
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় 

'ডেস্টিনেশন শিল্প', পানাগড় ইন্ডাস্ট্রিয়াল হাবে ৪০০ কোটির কারখানা শিলান্যাস মমতার

  • ৩৮ একর জমির উপর প্রায় ৪০০ কোটি টাকা ব্যয় করে এই পলিফিল্ম কারখানা হতে চলেছে।

আজ পানাগড়ে একটি কারখানার শিলান্যাস করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ৩৮ একর জমির উপর প্রায় ৪০০ কোটি টাকা ব্যয় করে এই পলিফিল্ম কারখানা হতে চলেছে। কারখানার কাজ শেষ হলে বহু বেকার যুবক-যুবতী এখানে কাজ পাবে বলে আশাবাদী সরকার। সূত্রের খবর, মুখ্যমন্ত্রী আজ পানাগড় শিল্পতালুকেই বেশ কয়েকজন শিল্পপতির সঙ্গে বৈঠক করবেন। স্বাভাবিকভাবেই মুখ্যমন্ত্রীর আজকের এই সফরকে ঘিরে সাজো সাজো রব। এদিন মঞ্চ থেকে বেশ কয়েকটি সরকারি প্রকল্প, বাস রুটের উদ্বোধন করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রসঙ্গত, দুই নম্বর জাতীয় সড়কের পাশে কাঁকসা এবং আউসগ্রাম ব্লকের প্রায় দেড় হাজার একর জমি সংরক্ষিত রয়েছে পানাগড় ইন্ডাস্ট্রিয়াল হাবের জন্য। আজকের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন তৃণমূলের একগুচ্ছ বিধায়ক। ছিলেন মলয় ঘটক, অনুব্রত মণ্ডলরাও। ছিলেন শিল্পপতি হর্ষ নেওটিয়া সহ অনেকে। WBIDC-র চেয়ারম্যান রাজীব সিনহাও ছিলেন। এদিন অনুষ্ঠানে মমতা বলেন, ‘এখন আমার ডেস্টিনেশন শিল্প।'

এদিকে পানাগড়ে সিএনজি চালিত যে সার কারখানা রয়েছে তা বর্তমানে বেশ কিছু প্রতিবন্ধকতার মুখোমুখি । সেই কারখানাও পুনরায় চালু হবে বলে জানানো হয়েছে সরকার পক্ষের তরফে। এছাড়াও রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় বর্তমান সরকারের উদ্যোগে তৈরি হচ্ছে বড় বড় কারখানা। জানা গিয়েছে, ইন্ডাস্ট্রিয়াল হাবে একটি নয়, আরও ১২টি কারখানার নির্মাণকাজ চলছে জোড়কদমে। আগামী এক বছরের মধ্যেই কয়েকটি কারখানা উৎপাদন শুরু করতে চায়। ফুড প্রসেসিং থেকে পাইপ ফ্যাক্টরি-সহ অনেক ক্ষেত্রেই বিনিয়োগ করা হয়েছে। এই ইন্ডাস্ট্রিয়াল হাবের জন্য জমি অধিগ্রহণ শুরু হয়েছিল বাম জমানায়। পরবর্তীতে এই ইন্ডাস্ট্রিয়াল হাবের দিকে বিশেষ নজর দেওয়া হয় তৃণমূল সরকারের তরফে।

এদিকে মুখ্যমন্ত্রীর আজকের এই অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়াকে কটাক্ষ করেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। তিনি বলেন, 'রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মেলা খেলা এইসব উদ্ধোধন করেন। কখনও কারখানা উদ্ধোধন করেননি। আমরা চাই এইরকম উদ্ধোধন আরও হোক। কারখানা হলে রাজ্যে কর্মসংস্থান হবে। বেকাররা চাকরি পাবে। যদিও কারখানা চালু হবে কিনা তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন তিনি।'

বন্ধ করুন